ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৩ কার্তিক ১৪২৭, ২৯ অক্টোবর ২০২০, ১১ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

আগরতলা

বাদামের ফালির ওপর ছবি এঁকে নজির গড়লেন ত্রিপুরার বিপ্রজীৎ

সুদীপ চন্দ্র নাথ, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১১০০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০
বাদামের ফালির ওপর ছবি এঁকে নজির গড়লেন ত্রিপুরার বিপ্রজীৎ

আগরতলা (ত্রিপুরা): চীনা বাদামের এক ফালির ওপর ছবি এঁকে নজির সৃষ্টি করছেন ত্রিপুরার এক চিত্রশিল্পী।  

ত্রিপুরা রাজ্যের রাজধানী আগরতলার মোহনপুর এলাকার বাসিন্দা ওই চিত্রশিল্পীর নাম হলেন বিপ্রজীৎ সাহা।

 ২১ বছর বয়সি ওই চিত্রশিল্পী তেল-রং অ্যাক্রিলিকসহ অন্যান্য মাধ্যমে চিত্রশিল্প এঁকে ইতোমধ্যে একাধিক পুরস্কার জিতে নিয়েছেন।

সম্প্রতি ছোট চীনা বাদামের ফালির ওপর বিভিন্ন শিল্পকর্ম সৃষ্টি করে আলোড়ন সৃষ্টি করেছেন ওই শিক্ষক। ত্রিপুরা বিশ্ববিদ্যালয় থেকে শিক্ষা শাস্ত্র বিষয়ক নিয়ে মাস্টার্স করছেন বিপ্রজীৎ সাহা। পাশাপাশি তিনি একজন আর্টেরও শিক্ষক। .সোমবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিপ্রজীৎ নিজ বাড়িতে বাংলানিউজের সামনে চীনা বাদামের অর্ধেক ফালি ওপর তার নতুন উদ্ভাবনাময় শিল্প কর্ম এঁকে দেখান।

তিনি বাংলানিউজকে জানান, ছোটবেলা থেকেই তার ছবি আঁকার প্রতি খুব ঝোঁক ছিলো। তখন থেকেই কাঠপেন্সিল ও রং-তুলি দিয়ে মানুষের ছবি এঁকেছেন এবং এখনও আঁকছেন। তাছাড়া মাটি দিয়ে দেব-দেবীমূর্তি তৈরি করা, গাছের পাতা কেটে ছবি তৈরি করার নেশায় রয়েছে ওই শিক্ষকের। চিত্রশিল্প আঁকার বিষয়ে তিনি ডিপ্লোমাও করেছেন। .এত কিছু থাকতে হঠাৎ চীনা বাদামের এক ফালির ওপর ছবি আঁকার ভাবনা মাথায় কীভাবে এলো? জানতে চাইলে তিনি বাংলানিউজকে জানান, গত পাঁচদিন আগে তিনি বাড়িতে বসে বাদাম খাচ্ছিলেন। তখন হাত দিয়ে বাদামের খোসা ছাড়ানোর পর বীজগুলো দুই ভাগে ভাগ হয়ে যায়। হঠাৎ তার নজরে আসে বাদামের এক ফালির একটি অংশে ছবির মত কিছু একটা মনে হচ্ছে। . তখন তার মাথায় আসে যে, চাইলে বাদামের ফালির ওপর ছবি আঁকা যেতে পারে। সঙ্গে সঙ্গে তিনি রং-তুলি নিয়ে বসে পড়েন ও বাদামের ফালির ওপর ছবি আঁকা শুরু করেন। আর কিছুদিন পর দুর্গাপূজা তাই তিনি দেবীদুর্গার মুখমণ্ডল আঁকা শুরু করেছেন। মিনিট কুড়ির মধ্যে বাদামের এক ফালির মধ্যেই ফুটে উঠে দুর্গাপ্রতিমার রূপ। এরপর তিনি লক্ষ্মী, সরস্বতীসহ দুর্গাদেবীর গোটা পরিবারের মুখমণ্ডল এঁকে ফেলেন এক একটি বাদাম ফালির ওপর। বাড়ির অন্যান্য সদস্যরা তার এই শিল্পকর্ম দেখে বেশ খুশি বলেও জানান তিনি। .তবে এমন সরু কাজের জন্য তিনি বিশেষ ধরনের চশমা বা আতস কাঁচ ব্যবহার করছেন না। খালি চোখে ছবিগুলো এঁকেছেন বলেও জানান।  এর প্রমাণ হিসেবে তিনি বাংলানিউজের সামনে একটি ছবি এঁকে দেখান। সবমিলিয়ে এখন পর্যন্ত পাঁচ থেকে সাতটি ছবি এঁকেছেন বাদাম ফালির ওপর। এক একটি ছবি আঁকতে তার মিনিট কুড়ির বেশি সময় লাগছে না বলেও জানান। .এই শিল্প নিয়ে আগামীদিনের কী পরিকল্পনা রয়েছে তার? এমন প্রশ্ন করা হলে তিনি জানান, অনেক শিল্পী এর চেয়েও ছোট জিনিসের ওপর শিল্পকর্ম করেছেন। তাই এখন তার পরিকল্পনা চাল,মসুর ডাল ও এর চেয়েও ছোট দ্রব্যের ওপর নিখুঁতভাবে শিল্প-ভাবনাকে ফুটিয়ে তোলা।  এছাড়া তিনি এই শিল্পকর্মগুলো নিয়ে একটি প্রদর্শনী আয়োজন করার পরিকল্পনা নিচ্ছেন বলেও জানান।

বাংলাদেশ সময়: ১০৫৮ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৫, ২০২০
এসসিএন/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa