মাদকবিরোধী অভিযানে বছরজুড়ে ত্রিপুরা পুলিশের সাফল্য

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

উদ্ধার করা মাদকদ্রব্য, ছবি: বাংলানিউজ

walton

আগরতলা (ত্রিপুরা): প্রতি বছরের মতো এবছরও মাদকবিরোধী অভিযানে নেমে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে ত্রিপুরা পুলিশ।

php glass

পুলিশের প্রধান কার্যালয় থেকে পাওয়া তথ্য অনুসারে, ২০১৭ সালের নভেম্বর থেকে ২০১৮ সালের নভেম্বর পর্যন্ত রাজ্যের বিভিন্ন থানা এলাকায় অভিযান চালিয়ে ৬২ হাজার ৯৩৬ কেজি গাঁজা, ১ লাখ ৮৩ হাজার ২৪৭ বোতল বিভিন্ন ব্রান্ডের নিষিদ্ধ কফ সিরাপ, ২ লাখ ৩৬ হাজার ২৯৬ টি বিভিন্ন ব্রান্ডের নেশার ট্যাবলেট ও ৩ হাজার ৫৮ গ্রাম হেরোইন জব্দ করেছে পুলিশ। পাশাপাশি মাদকসংক্রান্ত ৩৮৮টি মামলা নথিভূক্ত ও মাদকবিক্রয়ের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে ৩৯২ জনকে গ্রেফতার করেছে ত্রিপুরা পুলিশ।

জানা যায়, গত ৩ মার্চ বিজেপি-আইপিএফটি জোট সরকার ত্রিপুরা রাজ্যের শাসন ক্ষমতায় বসার পর মাদকসংক্রান্ত অপরাধ দমনে ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে ত্রিপুরা পুলিশ। দায়িত্ব নেওয়ার পরপরই মাদকবিরোধী অভিযানের ডাক দেন মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব।

এমনকি রাজ্যের প্রতিটি জেলায় গিয়ে পুলিশ কর্মকর্তাদের সঙ্গে বৈঠক করেন এবং মাদকবিক্রেতা, গাঁজা চাষিদের বিরুদ্ধে কঠোর পদক্ষেপ নেওয়ার নির্দেশ দেন। এর পরেই পুলিশ রাজ্যের গ্রাম পাহাড়ে গাঁজা চাষি এবং মাদকবিক্রেতাদের বিরুদ্ধে অভিযান শুরু করে এবং ব্যাপক সাফল্য পেয়েছে।

শুধু ত্রিপুরা রাজ্যেই মাদকবিরোধী অভিযানের ডাক দিয়ে থেমে থাকেননি বিপ্লব কুমার দেব। প্রতিবেশী রাষ্ট্র বাংলাদেশের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা মাদকবিক্রেতাদের বিরুদ্ধে জিরো টলারেন্স নীতি নেওয়ার পর ত্রিপুরায়ও নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদারের নির্দেশ দেন তিনি। যাতে বাংলাদেশের মাদকবিক্রেতারা ত্রিপুরা রাজ্যকে নিরাপদ আশ্রয় হিসেবে ব্যবহার না করতে পারেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৩০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ০৬, ২০১৮
এসসিএন/ওএইচ/

চবির সাবেক শিক্ষার্থীদের পুনর্মিলনী ১৮ নভেম্বর
শাহবাগে চাকরির বয়স ৩৫ করার দাবিতে সমাবেশ, আটক ৭
আদিতমারীতে গৃহবধূর ঝুলন্ত মরদেহ উদ্ধার 
টাঙ্গাইলে ভুয়া চিকিৎসকের কারাদণ্ড
অনশনরত রোহিঙ্গাদের নির্যাতন করছে সৌদি আরব!


উন্নয়‌নের অগ্রযাত্রা ধরে রাখ‌তে শেখ হা‌সিনার বিকল্প নেই
গাজীপুরে অটো‌রিকশা-কভার্ডভ্যানের সংঘর্ষে নিহত ১, আহত ৫
বিদেশে নেওয়ার আশ্বাসে ৮ কোটি টাকা হাতিয়ে নিলেন তারা
‘ট্যাক্স না দেয়ার সংস্কৃতি থেকে বের হতে হবে’
২০৩০ সালের মধ্যে গুণগত শিক্ষা নিশ্চিত করতে হবে