ঢাকা, শনিবার, ৩১ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৫ আগস্ট ২০২০, ২৪ জিলহজ ১৪৪১

আগরতলা

সরকারের অপশাসনের বিরুদ্ধে সিপিআই-এম’র প্রতিবাদ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫৪৭ ঘণ্টা, মে ৬, ২০১৮

আগরতলা: ত্রিপুরা রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রীর মন্তব্য ও রাজ্য সরকার বিভিন্ন এলাকায় সরকারি জায়গা অবৈধভাবে রাজনৈতিক দলের দখলের বিরুদ্ধে যে অভিযান শুরু করেছে। এ বিষয়ে মুখ খুলল বিরোধী সিপিআই(এম) দলের নেতারা।

রোববার (৬ মে) সন্ধ্যায় সিপিআই(এম) ত্রিপুরা রাজ্য কমিটির সম্পাদক বিজন ধর এক সংবাদ সম্মেলন করে এর বিরুদ্ধে তীব্র প্রতিবাদ জানান।  

রাজধানী আগরতলার মেলারমাঠ এলাকার দশরথ দেব স্মৃতি ভবনে দলের রাজ্য কমাটির কার্যালয়ে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করা হয়।

এতে দলের জনজাতি নেতা নরেশ জমাতিয়াও উপস্থিত ছিলেন।

সম্প্রতি সময়ে মুখ্যমন্ত্রী বিপ্লব কুমার দেব সরকারি অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখতে গিয়ে বলে ছিলেন ‘যে ত্রিপুরা সরকারকে খোঁচা দেওয়ার চেষ্টা করবে, তার আঙ্গুল কেটে ফেলা হবে’। মুখ্যমন্ত্রীর এমন বক্তব্যের তীব্র প্রতি প্রতিবাদ জানান বিজন ধর প্রশ্ন করেন, সরকার যে কথা বলবে তা মেনে নিতে হবে? সরকারের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ করা যাবে না? তা কখনো হয় না। সিপিআই(এম) -এর তীব্র নিন্দা যানাচ্ছে।

রাজ্য সরকার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকারি জায়গা দখল করে রাজনৈতিক কার্যালয় গড়ে উঠেছে তা ভেঙে ফেলা হবে। সরকারের এমন সিদ্ধান্তের ব্যাপারে তিনি বলেন, এসব অফিস ভাঙা যাবে না। এগুলোকে সরকারিভাবে বৈধতা দিতে হবে। তবে রাজ্য সরকার যদি এসব অফিস ভেঙে ফেলে এর বিরুদ্ধে সিপিআই(এম)-এর নেতা-কর্মীরা তীব্র প্রতিবাদ গড়ে তুলবে।  

এক প্রশ্নের জবাবে ত্রিপুরা রাজ্য কমিটির সম্পাদক বিজন ধর বলেন, আপাতত সরকার প্রতিরোধের কথা চিন্তা করছেন না সিপিআই(এম) দল।

সম্প্রতি রাজ্যের বুদ্ধিজীবী মহলের একাংশ রাজ্যের সব ক্যাবল চ্যানেলে বাংলার পাশাপাশি রাষ্ট্র ভাষা হিন্দিতে সংবাদ পরিবেশন করতে ত্রিপুরা সরকারের কাছে দাবি জানান।  

এ দাবির বিরোধীতা করে বিজন ধর বলেন, এর ফলে ত্রিপুরা রাজ্যের জনজাতিদের নিজেস্ব ভাষা ককবরক ভাষার ব্যাপক ক্ষতি হবে। হিন্দি ভারতের রাষ্ট্র ভাষা নয় বলেও দাবি করেন তিনি।  

বাংলাদেশ সময়: ২১৪৭ ঘণ্টা, মে ০৬, ২০১৮
এসসিএন/জিপি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa