php glass

গঙ্গাপাড় যেনো টেমস তীর, বুড়িগঙ্গা কবে?

আসিফ আজিজ, অ্যাসিসট্যান্ট আউটপুট এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

সুন্দর, পরিপাটি, সাজানো, গোছালো ও বাঁধানো গঙ্গার পাড়ে যুবক-যুবতী/ছবি: আসিফ আজিজ

walton

কলকাতা: পাবলিক বাসে ৬ রুপি হলেই ঘোরা যায় শহর কলকাতা। এটাই সর্বনিম্ন ভাড়া। তবে পথ ফুরনো মুশকিল। তাই বলে সর্বোচ্চ ভাড়া কিন্তু বেশি নয়। মাত্র ১০ রুপি। দলবেঁধে পাবলিক বাসে মৌলালি থেকে ৬ রুপি ভাড়া দিয়ে নতুনরূপের গঙ্গাপাড় ঘুরতে যাওয়া। বাবুঘাটে নেমে প্রশস্ত ফুটপাত ধরে হাঁটতে হাঁটতে দেখা গেলো প্রাইভেট কারের সারি। এতো গাড়ির পার্কিং কেন তা বোধগম্য হলো গঙ্গাপাড়ে নেমে।

এতো পরিবর্তন! সম্প্রতি আহমেদাবাদ সফরে গান্ধী আশ্রম থেকে সবরমতীর বাঁধানো তীর দেখে অনেকটা বিস্মিত হয়েছিলাম। এবার গঙ্গা দেখে। সত্যিই তো বিখ্যাত টেমস নদীর মতো গোছানো হচ্ছে হিমালয় থেকে নেমে আসা ভারতের প্রধান নদী গঙ্গাকে। ভারত সরকারের এ প্রকল্প দেখে বুড়িগঙ্গার তীর দেখতে অভ্যস্ত ঢাকাবাসীর আফসোস কিংবা আক্ষেপ হওয়ারই কথা। হুগলির উপর দিয়ে বয়ে যাওয়া গঙ্গার এ অংশের নাম হুগলি নদী।
সুন্দর, পরিপাটি, সাজানো, গোছালো ও বাঁধানো গঙ্গার পাড়ে যুবক-যুবতী/ছবি: আসিফ আজিজএই গঙ্গা, সেই গঙ্গা! মেলানো সত্যি কঠিন। বর্জ্যের আবাস, দুর্গন্ধ নেই। পুরো পাড় বাঁধানো। প্রিন্সেপ ঘাটের পাশ দিয়ে নয়নাভিরাম বিদ্যাসাগর সেতু যুক্ত করেছে কলকাতার সঙ্গে হুগলিকে।

সুন্দর, পরিপাটি, সাজানো, গোছালো বাঁধানো পাড়ে বিশুদ্ধ বাতাসে নিশ্বাস নেওয়ার মতো সব ব্যবস্থাই রয়েছে। বাইরের সারিবদ্ধ গাড়ির লোকগুলো যে সব এখানে সেটা বুঝতে বাকি রইলো না। বিদেশি পর্যটকও কম নেই।
সব বয়সী মানুষের দেখা মিলে এ গঙ্গার তীরে/ছবি: আসিফ আজিজ
মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধায়ের একটি নামফলক থেকে জানা যায় এ সৌন্দর্যবর্ধনের কাজ উদ্বোধন হয় ২০১২ সালে। প্রায় ৮ কিলোমিটারের কাজ সম্পন্ন হলেও বাকি অনেক। এতেই লোকে লোকারণ্য।

মানুষ সময় কাটাতে এখানে আসবেই বা না কেন। নির্ভেজাল পরিবেশে ঘুরতে এসে যা চায় তার সবই আছে এখানে। যতদূর হাঁটবেন সঙ্গ দেবে রবীন্দ্রনাথের ভুবনভোলানো সব লিরিক্যাল গান। সাউন্ড সিস্টেমটাও এমন যে কানে লাগে না। মনে হয় প্রকৃতিকে উদ্ভাসিত হয়ে কানে লাগছে সুরেলা কথাগুলো।
ঐতিহাসিক প্রিন্সেপঘাট, বাবুঘাট/ছবি: আসিফ আজিজ
গঙ্গাপাড়ের বড় বড় গাছগুলো কাটা হয়নি। বাংলাদেশের উন্নয়ন কাজের শুরুতেই গাছ কাটার যে প্রবণতা লক্ষ্য করা যায়, এখানে ঠিক তার বিপরীত বলেই মনে হলো। সৌন্দর্যবর্ধনের মৌলিক কাজের জন্য যেগুলো কাটা পড়েছে সেগুলোর ক্ষতি পোষানোর জন্য যে নতুন গাছ কয়েকগুণ বেশি বসেছে সেটাও টের পাওয়া গেলো।

বিদেশি বিভিন্ন পার্কে দেখতে পাওয়া নান্দনিক বেঞ্চের মতো বেঞ্চও বসেছে এখানে। ডাস্টবিনগুলোর ডিজাইনেও রয়েছে ভিন্নতা। ময়লা গিলে ফেলে আনন্দে হাসছে প্রত্যেকে। সে কুমিরই হোক অথবা পান্ডা। সব বয়সী মানুষ দেখা মিললো টেমস তীরের আদলে গড়ে তোলা এ তীরে। কেউ এসেছেন প্রিয়জন নিয়ে, কেউ পরিবার, কেউ জগিংয়ে, কেউ বৈকালিক হাঁটায়। সবাই সবার মতো করে উপভোগ করছেন। ভিতরে প্রশস্ত ওয়াকওয়ের একটু পরপরই রয়েছে নিরাপত্তারক্ষী। পুলিশ রয়েছে সেখানে। খাবারের জন্য রয়েছে পর্যাপ্ত দোকান। বিনোদনের জন্য ৪-৫শ টাকায় নৌকা ভ্রমণও বাদ নেই। ঐতিহাসিক প্রিন্সেপঘাট, বাবুঘাটের মতো ঘাট রয়েছে কয়েকটি। ঘাটগুলো দিয়ে স্টিমারে পার হয়ে যাওয়া যায় হাওড়া ব্রিজ।
নয়নাভিরাম বিদ্যাসাগর সেতু যুক্ত করেছে কলকাতার সঙ্গে হুগলিক/ছবি: আসিফ আজিজ
আলো কমতে শুরু হলেই সৌন্দর্য যেনো পেখম মেলে বসে গঙ্গাপাড়ে। পাড়ের বিশালকায় বৃক্ষ আর বিদ্যাসাগর সেতুর ফাঁকগলে লাল সূর্যটা আস্তে আস্তে হারিয়ে যায় সন্ধ্যার অতলে। শুরু হয় মমতার নীল-সাদার কারসাজি। বিলাতি বাতি জ্বলে উঠলে রূপ বদলায় গঙ্গাপাড়। একটু পর চঞ্চলতা শুরু হয় ঝরনাগুলোর। বিদ্যাসাগর সেতু ও হাওড়া ব্রিজের আলোগুলো জ্বলে ওঠে একই সঙ্গে। নদীর পানিতে সে আলোর ঝলকানি তৈরি করে নতুন সিম্ফনি।
পরন্ত বিকেলে গঙ্গা/ছবি: আসিফ আজিজকোটি মানুষের কলকাতায় যেটি সম্ভব হয়েছে ঢাকায় সেটি কেন নয়। বুকভরা নিশ্বাস নেওয়ার মতো এমন করে দূষিত বুড়িগঙ্গাকে তো সাজিয়ে তোলাই যায়। পরিকল্পনাগুলো বাস্তবতায় রূপ পাক।

বাংলাদেশ সময়: ১০১৪ ঘণ্টা, মার্চ ২৫, ২০১৭
এএ

একাদশে ইন সাইফ-মোসাদ্দেক, আউট রুবেল-সাব্বির
শায়েস্তাগঞ্জে বাসচাপায় পথচারী নিহত
শিগগিরই জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের নির্বাচন: মেয়র লিটন
সিকিউরিটি সুপারভাইজার নেবে ডিপিডিসি
নীলফামারীতে বঙ্গবন্ধুর মুর‌্যাল উদ্বোধন


ঋণখেলাপি নিয়ে ব্যাংকের নীতিমালায় আরো ২ মাস স্থিতাবস্থা
বাজেটে সংসদ সদস্যদের মতামত নেওয়া হয়নি: বাদশা
কোলে চড়ে ভোট দিলেন ৯৫ বছরের মোমেনা
হাতীবান্ধায় দু’পক্ষের সংর্ঘষে আহত ১৮
শত ব্যস্ততায়ও সময় বের করতে হবে