php glass

ভ্রমণের টুকিটাকি

748 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: সংগৃহীত

walton
তুহিন বান্দরবান গেছে বন্ধুদের সঙ্গে। শুধু বান্দরবান গিয়েই খান্ত হয়নি, যাবে থানচি উপজেলার রেমাক্রিতে অবস্থিত নাফাখূম ঝর্না দেখতে। যেতে হবে সাঙ্গু নদী ধরে।

তুহিন বান্দরবান গেছে বন্ধুদের সঙ্গে। শুধু বান্দরবান গিয়েই খান্ত হয়নি, যাবে থানচি উপজেলার রেমাক্রিতে অবস্থিত নাফাখূম ঝর্না দেখতে। যেতে হবে সাঙ্গু নদী ধরে। কিন্তু নদীতে পানি কম থ‍াকায় আর উজানের দিকে যাওয়ায় রেমাক্রি যেতে হবে কিছুটা হেঁটে আবার কখনো নৌকায়। আর নাফাখূম যেতে হলে পুরোটাই প্রায় হাঁটা পথ। মাঝে মাঝে ছোটখাটো খালের মতো পার হতে হবে, হতে পারে হাঁটু বা কোমর সমান পানি।

এবারতো তুহিন মহা বিপ‍াকে। সঙ্গে মাত্র একজোড়া কেটস। পানিতে ভেজালে বেশিক্ষণ পায়ে রাখা যাবে না। আর হাঁটতেও কষ্ট। আবার পাথুরে এবড়ো-থেবড়ো পথ হওয়ায় খালি পায়ে হাঁটতেও কষ্ট হচ্ছে। এর মধ্যে হাঁটতে গিয়ে পাও ছিলে গেছে। ফাস্ট এইডেরও কিছু নেই। যদিও এটাই তার প্রথম
ট্যুর নয় তবুও এসবের কিছুই সঙ্গে আনেনি তুহিন বা তার বন্ধুরা।

তুহিনের মতো এমন বিপাকে আপনিও পড়তে পারেন প্রিয় পাঠক। তাই ভ্রমণে বের হওয়ার আগে টুকিটাকি কিছু জিনিস গুছিয়ে নিন। বিষয়গুলো মনে রাখলে বা সঙ্গে থাকলে আপনার ভ্রমণ হবে নির্বিঘ্ন ও আনন্দদায়ক। সেই সঙ্গে এড়াতে পারবেন ‍অযথা বিড়ম্বনাও।

ভ্রমণের সময় অনেকেই নানা ধরনের সমস্যায় আক্রান্ত হন। অনেকের দূরে কোথাও যাওয়ার কথা শুনলেই যেনো গায়ে জ্বর আসে। ভয়ে বুক হীম হয়ে যায়। অনেকের মাথা ঘুরায়, অনেকের আবার বমিও হয়। অনেকে আবার ছোট ছেলে মেয়েকে নিয়ে পড়েন মহা বিপকে।  তবে একটু খেয়াল করলে এবং কিছুটা সচেতন হয়ে সামান্য কয়েকটা বিষয় মনে রাখলেই এই বিপাক থেকে মুক্তি মেলে। সেই সঙ্গে আপনার ভ্রমণটাও হয়ে উঠবে অনেক আনন্দদায়ক।

ভ্রমণ পিপাষু এবং ট্রাভেলার্স নোটবুকের লেখকদের ভ্রমণ সম্পর্কিত গুরুত্বপূর্ণ ১০ টিপস।

১. আপনি যদি দেশের ‍বাইরে বেড়াতে যান তবে সবচেয়ে গুরত্বপূর্ণ জিনিস হলো পাসপোর্ট। পাসপোর্ট ছাড়া আপনি কখনোই বিদেশে ভ্রমণ করতে পারবেন না। উপরন্তু  এজন্য আপনাকে বিব্রতকর প্ররিস্থিতির মুখোমুখি হতে হবে। এমনকি আপনি হয়ত আপনার ফ্লাইট, বাস কিংবা ট্রেন মিস করতে পারেন। কাজেই  ঘর থেকে বের হওয়ার আগে শেষবারের মতো আপনার ব্যগ চেক করে নিন। 


 
২. দ্বিতীয় গুরুত্বপূর্ণ জিনিস হলো আপনার টিকিট। আপনি বাস, ট্রেন বা প্লেন যে ভাবেই যান না কেন টিকটি খুবই গুরত্বপূর্ণ।  যদি আপনি ঠিক সময় টিকিট এবং বোর্ডিংপাস দেখাতে না পারেন তবে বিব্রতকর পরিস্থিতির মুখোম‍ুখি হতে হবে আপনাকে। 

৩. আপনার যদি কোনো বড় ধরনের স্বাস্থ্যগত জটিলতা থেকে থাকে তবে কোথাও ঘুরতে যাওয়ার আগে অবশ্যই  আপনার পারিবারিক ডাক্তারের সঙ্গে পরামর্শ করে তবেই সিদ্ধান্ত নেবেন।  এতে আপনি যদি কখনো কোনো ধরনের স্বাস্থ্যগত সমস্যায় আক্রান্ত হনও তবে যেনো সঙ্গে সঙ্গে সে বিষয়ে দ্রুত এবং সঠিক সিদ্ধান্তত নেওয়া যায়।



আর সে সঙ্গে আপনার প্রয়োজনীয় ওষুধ, প্রেস্ক্রিপশন নিতেও ভুলবেন না। যদি আপনার কোনো বিষয়ে ফোবিয়া থাকে তবে সে সংক্রান্ত অষুধও সঙ্গে নিতে ভুলবেন না একেবারেই।

৪. আপনি যদি চশমা ব্যবহান করেন এবং চশমা ছাড়া যদি আপনার কোনো কিছু দেখতে সমস্যা হয় তাহলে চশমা  সঙ্গে নিতে ভুলবেন না। কেননা বাস, ট্রেন বা এয়ারপোর্টে গরুত্বপূর্ণ কাগজ দেখার প্রয়োজন হতে পারে আপনার।



আর রোদ থেকে বাঁচতে রোদ চশমাকেও সঙ্গী করুন।

৫. কোথাও যাওয়ার সময় আপনার সেল ফেনটিও সঙ্গে নিন। সেই সঙ্গে চার্যার নিতে ভুলবেন না যেনো। চার্যার গুছিয়ে রাখুন হাতের কাছেই। নইলে প্রয়োজনের সময় খুঁজে পাবেন না। আর আপনি যদি দেশের বাইরে বেড়াতে যান সেক্ষেত্রে সম্ভব হলে সেদেশের কোনো মোবাইল অপারেটরের সিমকার্ড কিনে ফেলুন। এতে বাড়ির মানুষ যেমন আপনার সঙ্গে যোগাযোগ করতে পারবে তেমনি আপনিও প্রয়োজনে তা ব্যবহার করতে পারবেন।



 ৬. আপনি চাকরিজীবী বা শিক্ষার্থী যাই হোন না কেন আপনার আইডিকার্ডটি সঙ্গেই রাখুন। যদি কোনো দুর্ঘটনা ঘটে যায় তবে সহজেই আপনার বাড়ির লোকজনের সঙ্গে যোগাযোগ করা যাবে। এছাড়া গুরুত্বপূর্ণ কয়েকটি
ফোন নম্বর, আপনার নাম ঠিকানা একটি কাগজে লিখে মানিব্যাগে বা হ্যান্ডব্যাগে রাখুন। 

৭. ভ্রমণের সময় অতিরিক্ত কাপড় না নেওয়াই ভালো। আপনি যদি রিমোট এরিয়ায় যান তবে সেখানে আপনাকে অনেকসময় খাবার এবং পানি বহন করতে হবে। হয়ত অতিরিক্ত বোঝা কোথাও রাখার জায়গাই পাবেন না! সেক্ষেত্রে এমন কাপড় নির্বাচন করুন যা একাধিকবার ব্যবহার করা যায়, এক্ষেত্রে জিন্সপ্যান্টের কোনো বিকল্প নেই। এর সঙ্গে টিশার্ট, ফতুয়া বা মেয়েরা কামিজ নিতে পারেন। আর অবশ্যই একাধিক জুতো রাখবেন সঙ্গে। বলাতো যায় না কখন কোথায় হোঁচট খেয়ে জুতো জোড়া অকেজো হয়ে যায়!  


 
৮. আপনি যদি ব্যবসায়িক কাজে ভ্রমণে বের হন তবে বাড়ি থেকে বের হওয়ার আগে দেখে নিন সব কাগজপত্র ঠিক আছে কিনা। আর যদি কোনো জড়িপে বের হন তাহলে দেখে নিন সে সম্পর্কে  প্রয়োজনীয় উপকরণ আপনার সঙ্গে আছে কিনা।



৯. ঘুরতে বের হলে হয়ত আদরের সন্তানটিকে বাসায় রেখে যেতে মন চাইবে না, সেক্ষেত্রে সবার আগে তার জন্য প্রয়োজনীয় ও পর্যাপ্ত খাবার আর ওষুধ নিয়ে নিন। সেই সঙ্গে শিশু হলে ডায়াপার, প্রয়োজন ও ‌ঋতু অনুযায়ী পোশাক তার কিছু টুকিটাকি খেলনা ইত্যাদি সঙ্গে নিতে ভুলবেন না একদমই।  



১০. সব শেষে এবার আপনার টুকিটাকি অথচ অপরিহার্য জিনিস যেমন  সাবান, শ্যাম্পো, টাওয়াল, ব্রাশ, পেস্ট, চিরুনি, সেভিং ক্রিম, বডি স্প্রে, টুকিটাকি কিছু ওষুধ, যেমন প্যারাসিটামল, বোমির ওষুধ, স্যালাইন, প্যাটের সমস্যার ওষুধ, গ্যাসের ওষুধ, প্রয়োজনে সানস্কিন, ছাতা ইত্যাদি।

বাংলাদেশ সময়: ০৩৫০ ঘণ্টা, মার্চ ৩০, ২০১৪

বিশ্বকাপের পরও খেলতে চান মালিঙ্গা
অনির্দিষ্টকালের জন্য সরে দাঁড়ালেন সানা মির
টিটিএডিসিকে টেরিটোরিয়াল কাউন্সিলে উন্নীত করার প্রস্তাব
কিন্ডারগার্টেন স্কুলগুলো নিবন্ধনের আওতায় আনা হবে
গাজীপুরে যান চলাচল কম, ভোগান্তিতে দূরপাল্লার যাত্রীরা


খাগড়াছড়িতে বাবাকে হত্যার দায়ে ছেলের মৃত্যুদণ্ড
অভিনেত্রী নওশাবার মামলা হাইকোর্টে স্থগিত
‘পরিবহনে চাঁদাবাজি বন্ধ হলে সব সমস্যার সমাধান হবে’
রাউজানে বিপুল অস্ত্রসহ ডাকাত সর্দার গ্রেফতার
ধর্মঘট স্থগিত, ঢাকা-চট্টগ্রাম-সিলেট সড়কে যান চলাচল শুরু