অল ইংলিশ ফাইনাল, নাকি দুরন্ত আয়াক্স

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

টটেনহাম ও আয়াক্স- সংগৃহীত

walton

ইতিহাস ডাকছে টটেনহামকে। নিজেদের ইতিহাসে প্রথমবারের মতো চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে ওঠার সুযোগ স্পার্সদের সামনে। তবে তার জন্য মাউরিসিও পচেত্তিনো শিষ্যদের পার হতে হবে আয়াক্সের পাহাড়সম বাধা।

php glass

গত সপ্তাহে ঘরের মাঠে আয়াক্সের বিপক্ষে ১-০ ব্যবধানে হেরেছে টটেনহাম। ফাইনালে যেতে হলে বুধবার (০৮ মে) দিবাগত রাতে আমাস্টারডামের ফিরতি লেগে ঘুরে দাঁড়ানোর গল্পই লিখতে হবে তাদের। কিন্তু দলটা আয়াক্স। চলতি মৌসুমে যারা কিনা পাত্তাই দেয়নি রিয়াল মাদ্রিদ ও জুভেন্টাসের মতো ইউরোপ জায়ান্টদের।

ঘরের মাঠে টটেনহামের বিপক্ষে জিতলে ১৯৯৫-৯৬ মৌসুমের পর পুনরায় চ্যাম্পিয়নস লিগের ফাইনালে উঠবে আয়াক্স। অবশ্য এক পা এগিয়ে থেকেই ফিরতি লেগে নামবে এরিক টেন হাগের দল।

মহারণের আগে প্রস্তুতিটাও ভালভাবে সম্পন্ন করেছে আয়াক্স। ইতোমধ্যে ঘরে তুলেছে ডাচ কাপ। আয়াক্সের সোনালি প্রজন্মরাও স্বপ্ন দেখছে ট্রেবল জয়ের। ঘরোয়া লিগে আপাতত শীর্ষে তারা। চ্যাম্পিয়নস লিগ জিতলে ১৯৭১-৭২ মৌসুম পর প্রথমবার ট্রেবল স্বপ্ন পূরণ হবে আয়াক্সের।

আয়াক্সের সবেচেয়ে বড় শক্তি তারুণ্য। টেন হাগের শিষ্যরা অধিকাংশই সদ্য টিনেজ পার হয়ে আসা। ফ্রাঙ্কি দে জং, দোনি ফন দে বেক, মাতিজ দে লিটরা এরইমধ্যে প্রমাণ দিয়েছে নিজেদের সামর্থ্যের। ইউরোপের বড় ক্লাবগুলোও তাদের দলে টানতে উঠেপড়ে লেগেছে। বার্সেলোনা ইতোমধ্যে দলে ভিড়িয়েছে দে জংকে। আর দে বেকের জন্য ৬০ মিলিয়ন ইউরো নিয়ে প্রস্তুত রিয়াল।

অন্যদিকে পচেত্তিনোর শিষ্যরাও এবার উপহার দিয়েছে দুর্দান্ত ফুটবল। তবে মৌসুমের শেষদিকে এসে নিজেদের ধারটা হারিয়ে ফেলেছে তারা। সব প্রতিযোগিতা মিলে হেরেছে টানা তিন ম্যাচে।

প্রথম লেগে চোটের কারণে দলে ছিলেন না স্পার্সদের ইংলিশ ফরোয়ার্ড হ্যারি কেন ও কোরিয়ার ডেভিড বেকহাম খ্যাত সন হিয়ুং-মিন। ঝুঁকির মুখে থাকা পচেত্তিনো এবার ফেরাতে পারেন এই দুই তারকাকে। এছাড়া স্পার্সদের ডেলে আলী, ক্রিস্টিয়ান এরিকসেন, এরিক ডায়ারদের মতো মিডফিল্ডাররা তো আছেই।

স্পার্সদের অনুপ্রেরণা হতে পারে প্রিমিয়ার লিগের আরেক ক্লাব লিভারপুল। সেমিফাইনালের প্রথম লেগে তিন গোলে পিছিয়ে থেকেও মঙ্গলবার (০৭ মে) অ্যানফিল্ডের ফিরতি লেগে ৪-০ গোলে জিতে ফাইনালে উঠে অলরেডসরা ইতিহাস গড়েছে। টটেনহাম যদি ফাইনালে উঠে তবে ২০০৭-০৮ মৌসুমের পর আরেকবার অল ইংলিশ ফাইনাল দেখবে চ্যাম্পিয়নস লিগ। সেবার ফাইনালে চেলসিকে হারিয়ে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড শিরোপা ঘরে তোলে।

চ্যাম্পিয়নস লিগে আয়াক্স সফলতম ক্লাবের একটি। চারবার শিরোপা আছে তাদের ঘরে। প্রিমিয়ার লিগে টটেনহাম সমীহ জাগানিয়া দল হলেও চ্যাম্পিয়নস লিগে কোনো সফলতা নেই। তবে একটা জায়গায় আয়াক্সের চেয়ে এগিয়ে টটেনহাম। তিনবারের মুখোমুখি সাক্ষাতে দু’বার জিতেছে তারা। আয়াক্সের ঘরে আছে এক জয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৫৭ ঘন্টা, মে ০৮, ২০১৯
ইউবি/এমএমএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ফুটবল
ওয়ালটন ফ্রিজ কিনে গাড়ি পেলেন বিজিবি সদস্য বাচ্চু
পশ্চিমবঙ্গে তৃণমূল কংগ্রেস ভালো ভালো করবে: দেব
সিআইইউর কালচারাল ক্লাবের ইফতার মাহফিল
মোস্তফা জামাল হায়দার হাসপাতালে ভর্তি
এতিম শিশুদের সঙ্গে ইফতার করলেন প্রধানমন্ত্রী


কিশোরগঞ্জে আদালত থেকে আসামির পলায়ন, ৫ পুলিশ প্রত্যাহার
বঙ্গবন্ধুর ভাগ্নে ‘দাদা ভাই’র মৃত্যুবার্ষিকী পালন
বাজে হারে মৌসুম শেষ করল রিয়াল মাদ্রিদ
এফবিসিসিআইর নতুন সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণ
বর্ণাঢ্য আয়োজনে আইইউবিএটিতে ওরিয়েন্টেশন প্রোগ্রাম