php glass

রাসেল ঝড়ে কলকাতার আরও একটি জয়

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ব্যাট করছেন আন্দ্রে রাসেল

walton

ঢাকা: পরাজয়ের বৃত্ত থেকে আর বের হয়ে আসা হলো না রয়েল চ্যালেঞ্জার্স ব্যাঙ্গালুরুর। নিজেদের পঞ্চম ম্যাচেও হেরেছে কোহলির দলটি। ব্যাঙ্গালুরুকে ৫ উইকেটে হারিয়েছে কলকাতা নাইট রাইডার্স। 

কলকাতা বললেও ভুল হবে, আসলে ব্যাঙ্গালুরু ম্যাচ হেরেছে আন্দ্রে রাসেলের কাছে। চিন্নাস্বামী স্টেডিয়ামে আগে ব্যাট করে ৩ উইকেটে ২০৫ রান করে ব্যাঙ্গালুরু। জবাবে ব্যাট করতে নেমে হারতে বসা ম্যাচটা ‘রাসেল ঝড়’র কল্যাণে ৫ বল আর ৫ উইকেট হাতে রেখে সহজেই জয় তুলে নেয় কলকাতা।

২০৬ রানের টার্গেটে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ২৮ রানে ওপেনার সুনিল নারাইনের উইকেট হারায় কলকাতা। দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে ক্রিস লিন ও রবিন উথাপ্পা ৬৫ রান যোগ করলেও রান তোলার গতি ছিল কম। উথাপ্পা ৩৩ রান করে নেগির বলে আউট হন। এরপর দলীয় ১০৮ রানে লিন ৪৩ রান করে নেগির দ্বিতীয় শিকারে পরিণত হয়।

এরপর ব্যাঙ্গালুরুর নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ে ধীরে ধীরে ম্যাচ থেকে ছিটকে যেতে থাকে কলকাতা। জয়ের জন্য ওভার প্রতি রানরেট ১৪ রানের উপরে চলে যায়। নিতিশ রানার ২৩ বলে ৩৭ রানের ঝড়ো ইনিংস খেলে কিছুটা জয়ের আশা বাঁচিয়ে রাখেন।

ম্যাচের বাকি গল্পটা রচনা করেন এক ক্যারিবিয়ান দানব। আন্দ্রে রাসেল ঝড়ে মুহূর্তেই লণ্ডভণ্ড হয়ে যায় ব্যাঙ্গালুরুর জয়ের আশা। রাসেল যখন ক্রিজে আসেন কলকাতার তখন জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিল ২৪ বলে ৬৬ রান। স্কোর বোর্ডে রান ৫ উইকেটে ১৫৩ রান।

১৩ বলের এক টর্নেডো ইনিংস খেলে ৪৮ রান করে দলকে জয়ের বন্দরে পৌঁছে দেন রাসেল। ১৩ বলের এই ইনিংসে ছয়ের মার ছিল ৭টি। সাউদির করা ১৯ তম ওভারেই নেন ৫ বলে ২৮ রান। মূলত ঐ ওভারেই ম্যাচটাকে হাতের মুঠোয় নিয়ে আসেন রাসেল। ৫ বল হাতে রেখে ৫ উইকেটের সহজ জয় তুলে নেয় কলকাতা। ব্যাঙ্গালুরুর নেগি ও সাইনি ২টি করে উইকেট নেন।

এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে ব্যাঙ্গালুরুকে ভাল সূচনা এনে দেন পার্থিব প্যাটেল ও বিরাট কোহলি। উদ্বোধনী জুটিতে ৬৪ রান আসে। ব্যক্তিগত ২৩ রান করে নিতিশ রানার বলে আউট হন পার্থিব।

এরপর দ্বিতীয় উইকেটে জুটিতে কলকাতার বোলারদের শাসন করেন দুই ব্যাটসম্যান কোহলি ও এবি ডিভিলিয়ার্স। তাদের ব্যাটে ভর করে বড় সংগ্রহের পথে এগিয়ে যায় ব্যাঙ্গালুরু। ১০৮ রান আসে কোহলি ও ডিভিলিয়ার্সের ব্যাট থেকে। দুজনেই তুলে নেন অর্ধ-শতক। সেঞ্চুরি মিস করেন কোহলি। ৪৯ বলে ৮৪ রান করে দলীয় ১৭২ রানে কুলদিপ যাদবের বলে আউট হন কোহলি।

ডিভিলিয়ার্স ৩২ বলে ৬৩ রান করে আউট হন। দলের রান তখন ১৮৫। এরপর মার্কাস স্টোইনিসের ১৩ বলে ২৮ রানের ঝড়ো ইনিংসের কল্যাণে ২০০ রান পার করে ব্যাঙ্গালুরু। ২০ ওভারে ব্যাঙ্গালুরুর সংগ্রহ দাঁড়ায় ৩ উইকেটে ২০৫ রান। কলকাতার রানা, কুলদিপ যাদব ও নারাইন ১টি করে উইকেট নেন।

কলকাতার আন্দ্রে রাসেল ম্যাচ সেরা নির্বাচিত হয়েছেন। এই জয়ে ছয় পয়েন্ট নিয়ে পয়েন্ট তালিকার দ্বিতীয় স্থানে উঠে এসেছে কলকাতা নাইট রাইডার্স।

বাংলাদেশ সময়: ০২৩৭ ঘণ্টা, এপ্রিল ০৬, ২০১৯
আরএআর/জেআইএম

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ক্রিকেট খেলা
রপ্তানি আয়ে প্রবৃদ্ধি ১৩.০৬ শতাংশ
নোফেলকে উড়িয়ে দিল শেখ রাসেল
শিমুলিয়া-কাঁঠালবাড়ী নৌরুটে ফেরি চলাচল ব্যাহত
মৌলভীবাজারে বন্যা পরিস্থিতির অবনতি, হাওরে পানি বাড়ছে
রূপসা সেতুর টোলঘরে দুদকের হানা


প্রিয়া প্রকাশের ‘শ্রীদেবী বাংলো’ নিয়ে বিতর্ক
ফেনীর এসএসকে সড়কে অটোরিকশা চলাচল বন্ধ
ঈদুল আজহা পর্যন্ত বিদেশি গরু প্রবেশ নিষিদ্ধ
ব্রাদার্সকে উড়িয়ে শিরোপার আরো কাছে বসুন্ধরা কিংস
মেসিকে ক্ষমা চাওয়ার উপদেশ দিল ক্রীড়া আদালত