php glass

২ সেঞ্চুরিতেও প্রাইম ব্যাংককে হারাতে পারেনি ব্রাদার্স

স্পোর্টস করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

জয়ের দেখা পেয়েছে প্রাইম ব্যাংক

walton

ব্রাদার্স ইউনিয়নের মিজানুর রহমান ও ফজলে মাহমুদ দুর্দান্ত সেঞ্চুরি হাঁকিয়েও দলের পরাজয় ঠেকাতে পারলেন না। বরং চার ফিফটির সমন্বয়ে ঢাকা প্রিমিয়ার ডিভিশন ক্রিকেট লিগে টানা পঞ্চম জয় তুলে নিয়েছে প্রাইম ব্যাংক।

শনিবার (৩০ মার্চ) মিরপুর শেরে বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে মিজানুর রহমান ও ফজলে মাহমুদের জোড়া সেঞ্চুরিতে ২ উইকেটে ৩৩০ রানে বড় স্কোর গড়ে ব্রাদার্স ইউনিয়ন। জবাবে ব্যাট করতে নেমে চার ব্যাটসম্যানের অর্ধ শতকে ৫ উইকেটের জয় তুলে নেয় প্রাইম ব্যাংক।
 
৩৩১ রানের বড় লক্ষ্যে ব্যাট করতে নেমে শুরুটা ভালো হয়নি প্রাইম ব্যাংকের। দলীয় ১৯ রানে শামীম হোসাইনের উইকেট হারায় তারা। দ্বিতীয় উইকেটে এনামুল হক ও অভিমন্যু ইয়াসওয়ারান ৭৫ রান যোগ করেন। অর্ধ শতক তুলে ৪৭ বলে ৫৪ রান করে আউট হন এনামুল হক।
 
তৃতীয় উইকেটেও প্রতিরোধ গড়ে ইয়াওয়ারান ও আল-আমিন ৭৯ রানের জুটি গড়েন। আল-আমিন ৪৭ বলে ৫২ রান করে দলীয় ১৭৩ রানে বিদায় নেন। পঞ্চম উইকেটে অলক কাপালিকে সঙ্গে নিয়ে জয়ের কাজটা সহজ করেন ইয়াসওয়ারান। তাদের শতরানের জুটিতেই ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ নিয়ে নেয় প্রাইম ব্যাংক। তবে ১০ রানে জন্য সেঞ্চুরি মিস করেন ইয়াসওয়ারান। ব্যক্তিগত ৯০ রানে আউট হন তিনি।
 
প্রাইম ব্যাংকের অলক কাপালিও অর্ধ-শতক তুলে নেন। নাজমুল মিলন ১ রান করে যখন দ্রুত বিদায় নেন, স্কোর বোর্ডে রান তখন ৫ উইকেটে ২৮২ রান। তবে ম্যাচের নিয়ন্ত্রণ ছিল প্রাইম ব্যাংকের হাতেই। অলক কপালি ও নাহিদুল ইসলাম ষষ্ঠ উইকেটে ৪৯ রান যোগ করে ৭ বল হাতে রেখে দলের জয় নিশ্চিত করেন। কাপালি ৬৫ বলে ৮২ রান করে অপরাজিত ছিলেন। ব্রাদার্স ইউনিয়নের সাজেদুল ৩টি এবং মোহাম্মদ শরিফ ও নাঈম ইসলাম জুনিয়র ১টি করে উইকেট নেন।
 
এর আগে টস হেরে ব্যাট করতে নেমে দলীয় ১০ রানে ওপেনার জুনায়েদ সিদ্দিকির উইকেট হারায় ব্রাদার্স। তবে দ্বিতীয় উইকেট জুটিতে দারুণভাবে প্রতিরোধ গড়েন মিজানুর রহমান ও ফজলে মাহমুদ। এই দুজনের ব্যাটে ২০০ রানের কোটা পার হয় প্রাইম ব্যাংক। তাদের জুটিতে আসে ১৯৩ রান।
 
দুর্দান্ত সেঞ্চুরি তুলে নেন মিজানুর। অন্যদিকে অর্ধশতক তুলে নেন ফজলে মাহমুদ। ১০০ রান করে দলীয় ২০৩ রানে আউট হন মিজানুর রহমান। এরপর তৃতীয় উইকেট জুটিতেও প্রাইম ব্যাংকের বোলাদের ওপর তাণ্ডব চালান ফজলে মাহমুদ ও ইয়াসির আলী। 

মিজানুরের পর সেঞ্চুরি তুলে নেন ফজলে। লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ার সেরা ১৪৭ বলে ১৪৯ রানের অপরাজিত ইনিংস খেলেন তিনি। ইয়াসির ৩৭ বলে ৬১ রানে ঝড়ো ইনিংস খেলেন। ১২৭ রানের তৃতীয় উইকেট জুটি অবিচ্ছিন্ন থাকেন। ২ উইকেটে ৩৩০ রানের বড় স্কোর দাড় করায় ব্রাদার্স ইউনিয়ন। প্রাইম ব্যাংকের নাঈম হাসান ১টি উইকেট নেন।
 
ম্যাচ হেরেও ১৪৯ রানে দারুণ এক ইনিংস খেলে ম্যাচ সেরা হয়েছেন ব্রাদার্স ইউনিয়নের ফজলে মাহমুদ। এই জয়ে ৭ ম্যাচে ১২ পয়েন্ট নিয়ে রান রেটে পিছিয়ে দ্বিতীয় স্থানে রয়েছে প্রাইম ব্যাংক।  
 
বাংলাদেশ সময়: ১৮৩৮  ঘন্টা, মার্চ ৩০, ২০১৯
আরএআর/এমএইচএম

২০২০ সালের জুনের মধ্যেই নতুন ১৫ ট্রেন
ঢাবিতে ভর্তি: দেড় ঘণ্টার পরীক্ষায় এমসিকিউ ৭৫, লিখিত ৪৫
গুজবে সরকারবিরোধী পক্ষের যোগসূত্র পেয়েছে পুলিশ
সামাজিক নিরাপত্তায় ১৪ কোটি ইউরো দেবে ইউরোপীয় ইউনিয়ন
সিরাজগঞ্জে বন্যা পরিস্থিতির উন্নতি


১০০ গান করবেন তারা
ডাক বিভাগে ৬৫ পদে নিয়োগ
গুজব ঠেকাতে সরকার কঠোর: কাদের
নিজেকে নয় উইলিয়ামসনকে সেরা মানছেন স্টোকস
সাগ‌রে ধরা পড়‌ছে ই‌লিশ, দেখা মিলছে বাজারেও