ঢাকা, শুক্রবার, ৩০ শ্রাবণ ১৪২৭, ১৪ আগস্ট ২০২০, ২৩ জিলহজ ১৪৪১

ক্রিকেট

‘রিয়েল হিরো’ অভিনন্দনকে শচীন-কোহলির ‘স্যালুট’

স্পোর্টস ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪১৫ ঘণ্টা, মার্চ ২, ২০১৯
‘রিয়েল হিরো’ অভিনন্দনকে শচীন-কোহলির ‘স্যালুট’ শিল্পীর কল্পনায় উইং কমান্ডার অভিনন্দন/সংগৃহীত ছবি

সকল উত্তেজনা, উৎকণ্ঠার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে পাকিস্তান থেকে স্বদেশে ফিরেছেন ভারতের পাইলট উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমান। শুক্রবার (১ মার্চ) স্থানীয় সময় রাত সোয়া ৯টার দিকে (বাংলাদেশ সময় পৌনে ১০টার দিকে) দুই দেশের ‘ওয়াঘা সীমান্ত’ দিয়ে অভিনন্দনকে ভারতীয় কর্তৃপক্ষের কাছে হস্তান্তর করে পাকিস্তান সরকার। 

এদিকে অভিনন্দনের স্বদেশ প্রত্যাবর্তনে উচ্ছ্বসিত ভারতের রাজনৈতিক অঙ্গন থেকে শুরু করে শোবিজ, ক্রীড়াঙ্গনসহ সব অঙ্গন। ভারতীয় ক্রিকেট কিংবদন্তি শচীন টেন্ডুলকার তার টুইটে লিখেছেন, ‘একজন হিরো শুধু চার অক্ষরের চেয়ে অনেক বেশি কিছু।

সাহস, নিষ্ঠা ও নিঃস্বার্থ আচরণের মধ্য দিয়ে আমাদের নায়ক নিজেদের ওপর আস্থা রাখতে শেখালেন। #ওয়েলকামহোমঅভিন্দন। জয় হিন্দ!’

অভিনন্দনের প্রতি মাথা নোয়ানো সম্মান জানিয়েছেন ভারতীয় অধিনায়ক বিরাট কোহলি। সেই সঙ্গে তাকে ‘রিয়েল হিরো’ উপাধি দিয়ে জানিয়েছেন ‘স্যালুট’।

টুইটারে অভিনন্দনের একটি ছবি দিয়ে কোহলি লিখেছেন, ‘রিয়েল হিরো, আমি তোমার কাছে মাথা নত করি। জয় হিন্দ। '

টুইটারে অভিনন্দনের প্রতি স্যালুট জানিয়েছেন বীরেন্দ্র শেবাগ, গৌতম গম্ভীর, মোহাম্মদ কাইফ, সুরেশ রায়না, রবীচন্দ্রন অশ্বিন, টেনিস তারকা সানিয়া মির্জাসহ আরও অনেকে।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি বিকেলে কাশ্মীরের পুলওয়ামা জেলায় ভারতের বিশেষায়িত নিরাপত্তা বাহিনী সেন্ট্রাল রিজার্ভ পুলিশ ফোর্সের (সিআরপিএফ) গাড়িবহরে ভয়াবহ জঙ্গি হামলায় ৪৪ জওয়ান নিহত হন।

জঙ্গিদের মদত দেওয়ার জন্য ইসলামাবাদকে অভিযুক্ত করে এর মোক্ষম জবাব দিতে গত ২৬ ফেব্রুয়ারি ভোরের দিকে পাকিস্তানের বালাকোট শহরে জঙ্গি গোষ্ঠী জইশ-ই-মোহাম্মদের আস্তানায় হামলা চালায় ভারতীয় বিমান বাহিনী। এর একদিন পরই বুধবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) ভারতের দু’টি যুদ্ধবিমান বিধ্বস্ত ও পাইলট উইং কমান্ডার অভিনন্দনকে আটক করে পাকিস্তান।  

অভিনন্দন পাকিস্তানে হামলা চালাতে গিয়েছিলেন যুদ্ধবিমান মিগ-২১ নিয়ে। তবে সেই যুদ্ধবিমানটি ভূপাতিত করে ফেলে পাকিস্তানের সামরিক বাহিনী। ওই যুদ্ধবিমান থেকে তৎক্ষণাৎ বেরিয়ে পাইলট অভিনন্দন পড়ে যান পাকিস্তাননিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরে। কাশ্মীরীরা তাকে ধরে আক্রমণ করতে চাইলে পাকিস্তান সেনাবাহিনী অভিনন্দনকে নিজেদের জিম্মায় নেয়।

স্বদেশের মাটিতে অভিকে স্বাগত জানাতে ভারতের পাঞ্জাব রাজ্যের অংশে উপস্থিত ছিলেন তার বাবা এয়ার মার্শাল (অব.) এস বর্তমান ও মা ড. শোভা বর্তমান। ছিলেন সরকারি শীর্ষ কর্মকর্তাসহ বিপুলসংখ্যক জনতা। এসময় তাদের হাতে ছিল ভারতের জাতীয় পতাকা। অভিনন্দন ভারতের মাটিতে পা রাখতেই তুমুল করতালিতে মুখর হয়ে ওঠে সীমান্ত।

বাংলাদেশ সময় ০৯১৫ ঘণ্টা, মার্চ ০২, ২০১৯
এমএইচএম

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa