মুমিনুলের কাছে দলই বড়

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

মুমিনুল হক-ছবি: শোয়েব মিথুন-বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বাংলাদেশ ক্রিকেট লিগের (বিসিএল) চলতি আসরের তিন রাউন্ড শেষে মুমিনুল হকই ছিলেন সর্বোচ্চ রান সংগ্রাহক। তিন ম্যাচ থেকে তার সংগ্রহ ৩৮২ রান। যা করতে তিনি দুটি সেঞ্চুরির সাহায্য নিয়েছেন। এর মধ্যে আছে ২১১ রানের ঝলমলে এক ইনিংস।

ওমরাহ পালন করতে যাওয়ায় সদ্য সমাপ্ত চতুর্থ রাউন্ড তিনি খেলতে পারেননি। সুযোগটি বেশ ভালভাবে কাজে লাগিয়ে তুষার ইমরান ও লিটন দাস তাকে টপকে শীর্ষে জায়গা করে নিয়েছেন। ৫৫৮ রান নিয়ে শীর্ষে তুষার ইমরান ও ৪২৭ রানে দ্বিতীয়স্থানে লিটন দাস। মুমিনুল নেমে গেছেন ৩-এ।

শীর্ষস্থান হারিয়ে তা পুনরুদ্ধারে লিগের শেষ দুই রাউন্ডে ব্যাটহাতে মুমিনুল নিজের শতভাগ দেবেন, আবারো টুর্নামেন্ট সেরা ব্যাটারের তকমা গায়ে মাখবেন। একজন পেশাদার ক্রিকেটার হিসেবে তার এমন ভাবনা থাকাটাই বাঞ্ছনীয় এবং আগে তিনি এভাবেই ভাবতেন। কিন্তু এখন তিনি আর সেই মুমিনুল নেই।

এখনকার মুমিনুল নিজের নয় বরং দলের অর্জনকেই গুরুত্ব দিচ্ছেন এবং দলকে চ্যাম্পিয়ন করতে যেভাবে খেলা প্রয়োজন সেভাবেই তিনি খেলবেন। আপনি যখনই সর্বোচ্চ রান করার চেষ্টা করবেন, চিন্তা করবেন, তার মানে হলো আপনি নিজের জন্য চিন্তা করছেন। এভাবে আগে চিন্তা করতাম, সেটা ভুল ছিল, এখন বুঝি। সুতরাং আমি ওভাবে চিন্তা করে খেলবো না। দলকে চ্যাম্পিয়ন করার চেষ্টা করবো। একটা দল যখন চ্যাম্পিয়ন হবে, তখন দেখবেন যে তালিকায় তাদের ব্যাটসম্যানরাই উপরে থাকবে।’

রোববার (১৫ এপ্রিল) মিরপুর জাতীয় ক্রিকেট একাডেমিতে তিনি একথা বলেন।

এ সময় বাংলাদেশের ক্রিকেটের এগিয়ে যাওয়ার প্রেক্ষাপটে বিসিএলের গুরুত্ব তুলে ধরে এই লিটল মাস্টার বলেন, ‘জাতীয় লিগ বলেন, বিসিএল বা যা-ই বলেন, বাংলাদেশের খেলোয়াড়দের জন্য সবই গুরুত্বপূর্ণ। আমার তো শুধু টেস্ট খেলা হয়, তাই আমি খুব মন দিয়ে খেলি।’

আন্তর্জাতিক সিরিজ নিয়ে ব্যস্ত থাকায় লিগের প্রথম তিন রাউন্ডে জাতীয় দলের প্লেয়ারদের উপস্থিতি ছিল না। কিন্তু এখন সেই ব্যস্ততা না থাকায় দুই মাস বিরতির পর শুরু হওয়া চতুর্থ রাউন্ড থেকেই তারা খেলতে শুরু করেছেন। মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ-মুশফিকুর রহিমের পাশাপাশি খেলছেন লিটন দাস এবং সৌম্য সরকারও।

শেষ দুই রাউন্ডেও তারা খেলবেন এবং ইনজুরি থেকে সেরে উঠলে খেলতে পারেন তামিম ইকবাল, তাসকিন আহমেদ এবং মেহেদি হাসান মিরাজ। তাদের উপস্থিতিতে শেষ দুই রাউন্ড বেশ প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে বলে বিশ্বাস তার।

‘আমার মনে হয় প্রতিদ্বন্দ্বিতাপূর্ণ হবে। বিশেষ করে মিরপুরে যেটা হবে, সেটায় প্রতিদ্বন্দ্বিতা একটু বেশিই থাকবে। এটা নিয়ে একটু উত্তেজনা কাজ করছে। জাতীয় দলের খেলোয়াড়রা থাকলে মনোযোগ দিয়ে খেলে। অন্যরাও ভালো করে খেলে।’-যোগ করেন মুমিনুল।

আগামী ১৭ এপ্রিল বিসিএলের ৫ম রাউন্ডের ম্যাচে মিরপুর শের-ই-বাংলা জাতীয় ক্রিকেট স্টেডিয়ামে জহুরুল-নাঈমদের নর্থ জোনের মুখোমুখি হবে মুমিনুল-আশরাফুলের ইস্ট জোন।

বাংলাদেশ সময়: ১৭২৩ ঘণ্টা, ১৫ এপ্রিল, ২০১৮
এইচএল/এমএমএস/জেএম

ঈশ্বরগঞ্জে ‘জিনের বাদশা’ প্রতারক চক্রের ৩ জন আটক
স্বাধীনতাবিরোধীদের সঙ্গে ঐক্য করবো না: বি. চৌধুরী
প্রাথমিক শিক্ষা কারিকুলাম নিয়ে সংশ্লিষ্টদের মতবিরোধ
জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবেলায় বৃক্ষরোপণকে গুরুত্ব দিতে হবে
নাটোর হবে তথ্য-প্রযুক্তির উত্তরাঞ্চলীয় হাব
‘ফেনীর তিনটি আসন শেখ হাসিনাকে উপহার দেওয়া হবে’
‘দেশের মানুষ খালেদা জিয়ার গণতন্ত্র চায় না’
সৌম্যের ‘কোয়ার্টার ফাইনাল’ ‘সেমি ফাইনাল’ টোটকা
রাজধানীতে জেএমবি সদস্য আটক
আশফাকের ‘মন শুধু চায়’ লিয়াকে!