ভাঙা মন চাঙ্গা করে স্যাক্সটন ওভাল

521 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: সংগৃহীত

walton
জিম্বাবুয়ে বানাম সংযুক্ত আরব অমিরাতের অনুষ্ঠেয় ম্যাচটি নিউজিল্যান্ডের নেলসনের স্যাক্সটন ওভালে গ্যালারিতে দর্শকের ধারণ ক্ষমতা মাত্র ৬ হাজার। এই কম সংখ্যক দর্শক দেখে হয়তো আপনার মন খারাপও হতে পারে। বিরক্তি প্রকাশ করে মনে মনে হয়তো বলবেন, এতো কম দর্শক নিয়ে কিভবে বিশ্বকাপ ক্রিকেট হয়?

ঢাকা: জিম্বাবুয়ে বানাম সংযুক্ত আরব অমিরাতের অনুষ্ঠেয় ম্যাচটি নিউজিল্যান্ডের নেলসনের স্যাক্সটন ওভালে গ্যালারিতে দর্শকের ধারণ ক্ষমতা মাত্র ৬ হাজার।

এই কম সংখ্যক দর্শক দেখে হয়তো আপনার মন খারাপও হতে পারে। বিরক্তি প্রকাশ করে মনে মনে হয়তো বলবেন, এতো কম দর্শক নিয়ে কিভাবে বিশ্বকাপ ক্রিকেট হয়?

গ্যালারিতে দর্শক কম থাকলেও ঘাটতি নেই উত্তেজনার। চারদিকে পাহাড় মাঝখানে খেলার মাঠ ভাবতেই মনটা রোমান্টিক হয়ে ওঠে। পাহাড় কেটেই গ্যালারিতে দর্শকের বসার স্থান। চেয়ারও রয়েছে তবে সেদিকে দর্শকের আগ্রহ কম। বয়ফ্রেন্ড কিংবা প্রিয়জনদের সাথে নিয়ে মাটিতে বসে, শুয়ে খেলার দেখার আনন্দ উপভোগের দৃশ্যই এখানে বেশি চোখে পরে।

প্রাকৃতিক সৌন্দর্যে ভরপুর স্টেডিয়ামটির চারপাশের বৃক্ষরাজি আপনাকে দিবে এক অনাবিল সবুজময় প্রশান্তি। স্টেডিয়ামের বাইরে মাথা উঁচু করে দাঁড়িয়ে থাকা পাহাড়গুলো দেখে মনটা শুধু উড়ু উড়ু করে।

সেই সঙ্গে কিছুক্ষণ পর পর টেলিভিশন স্ক্রিনে সাদা চামড়ার প্রমিলা  দর্শকের নাচন ভাঙা মন চাঙ্গা করতে সময় নেয় না।

২০০৯ সালে স্যাক্সটন স্টেডিয়ামটি স্থাপিত হলেও প্রথম নিউজিল্যান্ড বানাম ওয়েস্ট ইন্ডিজের মধ্যে আন্তর্জাতিক ম্যাচ অনুষ্ঠিত হয় ২০১৪ সালে ৪ জানুয়ারি।  চলমান বিশ্বকাপের আয়ারল্যান্ড বানাম ওয়েস্ট ইন্ডিজের ম্যাচটি এই মাঠেই অনুষ্ঠিত হয়।

এখানে ফ্লাড লাইটের কোনো ব্যবস্থা নেই। তাই দিনের আলোই খেলার উপযুক্ত সময়।

বাংলাদেশ সময়: ০৫৪০ ঘণ্টা,  ফেব্রুয়ারি ১৯, ২০১৫

Nagad
বেগমগঞ্জে ৩০ মেট্রিক টন গম জব্দ
করোনা উপসর্গ নিয়ে বিসিএসআইআর কর্মকর্তার মৃত্যু
সভাপতি পদে রাহুলকে চান কংগ্রেসের সাংসদরা
নালিতাবাড়ী-ঝিনাইগাতীতে ২৫ গ্রাম প্লাবিত
বিপিও উদ্যোক্তাদের বিনিয়োগের আহ্বান পলকের


বিনিয়োগ আকর্ষণে নীতিমালা সংস্কারের পরামর্শ
ভুয়া চিকিৎসকসহ ৩ জনকে কারাদণ্ড, হাসপাতাল সিলগালা
পশ্চিমবঙ্গে একদিনে করোনা আক্রান্ত ১,৫৬০ জন
নভোএয়ারে ভ্রমণ করলে ফ্রি কাপল টিকিট
‘টাউট’ শহীদুলের আইন পেশা, আছে মানবাধিকার সংগঠন!