php glass

কমলায় ভেসে গেল ইংলিশরা

58 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ২৯তম ম্যাচে টসে জিতে ইংল্যান্ড অধিনায়ক স্টুয়ার্ট ব্রড ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রন জানিয়েছিলেন ডাচদের। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৩৩ রান করে ডাচরা।

জহুর আহমেদ চৌধুরি স্টেডিয়াম থেকে: টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের ২৯তম ম্যাচে টসে জিতে ইংল্যান্ড  অধিনায়ক স্টুয়ার্ট ব্রড ব্যাটিংয়ের আমন্ত্রন জানিয়েছিলেন ডাচদের। নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ১৩৩ রান করে ডাচরা। ১৩৪ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ১৭.৪ ওভার খেলে ৮৮ রান করতেই থেমে যায় ইংল্যান্ডের ইনিংস। ডাচরা জয় পায় ৪৫ রানের।

এর আগে প্রথম ইনিংসে ডাচদের হয়ে ব্যাটিংয়ের সূচনা করতে আসেন স্টিফেন মিবার্গ এবং মিচেল স্টুয়ার্ট। দুই ওপেনার প্রথম থেকেই ইংলিশ বোলারদের ওপর চড়াও হয়ে খেলেন। তিন ওভারেই তারা ৩২ রান তুলে নেন। মিচেল স্টুয়ার্ট চতুর্থ ওভারে স্টুয়ার্ট ব্রডের বলে মিডঅনে দাঁড়ানো স্টিফেন পেরীর তালুবন্দ্বি হয়ে সাজঘরে ফেরেন।

আরেক ওপেনার মিবার্গ এবং ওয়েসলি বারেসি ৫০ (৪৩ বলে) রানের জুটি গড়েন। স্টিফেন মিবার্গ ৩১ বলে ছয়টি চার আর একটি ছয়ে ৩৯ রান করে সাজঘরে ফেরেন। তবে ক্যারিয়ারের তৃতীয় অর্ধশতক থেকে মাত্র দুই রান দুরে থাকতে ৪৮ রানে আউট হয়ে যান ওয়েসলি বারেসি ।

নির্ধারিত ২০ ওভারে ৫ উইকেটে হারিয়ে ১৩৩ রান করেছিল নেদারল্যান্ডস।

ডাচদের পাওয়ার প্লেতে ৪৭ রান এবং দলীয় ৫০ রান ৩৯ বলে আসে। দলীয় শতক আসে ৮৪ বলে।

১৩৪ রানের টার্গেটে খেলতে নেমে দলীয় ১৮ ও ১৯ রানে ইংলিশ দলের দুই ওপেনার এবং ২৬ রানে ইয়ন মরগান সাজঘরে ফিরলে কিছুটা চাপে পড়ে ইংল্যান্ড। এই চাপ সামাল দেয়ার আগেই দলীয় ৩২ রানে মঈন আলীকে পিটার বোরেন ফিরিয়ে দিলে চার উইকেট হারিয়ে আরো চাপে পড়ে ইংল্যান্ড। ১০ রান যোগ হতেই জোস বাটলার ভ্যান বেকের বলে ডিপ মিড উইকেটে পিটার সিলারের কাছে ক্যাচ তুলে দিলে দলীয় ৪২ রানে ৫ উইকেট হারায় ইংল্যান্ড।

৫২ রানের মাথায় টিম ব্রেসনান রান আউট হয়ে যান। এতে করে দলীয় ৫২ রানে ৬ উইকেট হারায় ইংল্যান্ড। বাউন্ডারির কয়েক ইঞ্চি সামনে থেকে পিটার সিলার রবি বোপারার (১৮ রানে) ক্যাচটি লুফে নিলে দলীয় ৭৪ রানে ইংলিশরা ৭ উইকেট হারায়। দুই রান যোগ হতেই ক্রিস জর্ডানও (১৪ রানে) সাজঘরে ফেরেন।

১৭.৪ ওভার খেলে ইংলিশরা ৮৮ রানেই গুটিয়ে যায়। ডাচদের হয়ে মুদাচ্ছের বুখারি এবং ভ্যান বেক ৩ টি করে উইকেট নেন।

পাওয়ার প্লের ছয় ওভারে ইংলিশদের সংগ্রহ ছিল তিন উইকেটে ২৬ রান। দলীয় ৫০ রান আসে ৬৮ বলে।

এর আগে সুপার টেনের খেলায় ইংল্যান্ড ডি/এল পদ্ধতিতে নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে ৯ রানে এবং দ. আফ্রিকার সঙ্গে ৩ রানে হেরেছিল। তবে শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ইংলিশরা ৬ উইকেটে জিতেছিল। আর নেদারল্যান্ডস শ্রীলঙ্কার সঙ্গে ৯ উইকেটে, দ. আফ্রিকার সঙ্গে ৬ রানে এবং নিউজিল্যান্ডের সঙ্গে ৬ উইকেটে হেরেছিল।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪০ ঘন্টা, ৩১ মার্চ ২০১৪

**জয়ের খুব কাছে ডাচরা

আন্তর্জাতিক শাহাদাতে কারবালা মাহফিলের প্রস্তুতি সভা
রোহিঙ্গা নির্যাতন তদন্তে ঢাকায় আইসিসি প্রতিনিধিদল
মুহূর্তেই রাজ্যের নীরবতা নেমে আসে উৎসবমুখর বিয়ে বাড়িতে
মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ, রাজধানীর ৮ ফার্মেসিকে জরিমানা
টেলিযোগাযোগ সেবায় সোনালী ব্যাংক-পিএসসি-বিটিভির চুক্তি


এরশাদের মৃত্যুতে পাকিস্তানের শোক
কিশোর গ্যাংয়ের ৯ সদস্য সংশোধন কেন্দ্রে
নিজ দেশে ফেরত গেছেন ৫১৯ ভারতীয় জেলে
চুয়াডাঙ্গায় বিদ্যুৎস্পৃষ্ট হয়ে গৃহবধূর মৃত্যু
আজিজ কো-অপারেটিভ ব্যাংকের চেয়ারম্যান তাজুল কারাগারে