php glass

জেতা ম্যাচ হারলো নেদারল্যান্ডস

102 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
বলা চলে, শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জেতা ম্যাচই হাতছাড়া হলো আন্ডারডগ নেদারল্যান্ডসের। ম্যাচের পুরোভাগে নিয়ন্ত্রণে থেকে আশা জাগিয়েও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এবারের আসরের অন্যতম ফেবারিট প্রোটিয়াদের ‍কাছে মাত্র ৬ রানে হেরেছে ডাচরা।

চট্টগ্রাম জহুর আহমেদ চৌধুরী স্টেডিয়াম থেকে: বলা চলে, শক্তিশালী দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে জেতা ম্যাচই হাতছাড়া হলো আন্ডারডগ নেদারল্যান্ডসের। ম্যাচের পুরোভাগে নিয়ন্ত্রণে থেকে আশা জাগিয়েও টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের এবারের আসরের অন্যতম ফেবারিট প্রোটিয়াদের ‍কাছে মাত্র ৬ রানে হেরেছে ডাচরা।

শেষ উইকেট পড়ার আগ পর্যন্তও ডাচদের শারীরিক ভাষা বলছিল, অপেক্ষাকৃত শক্তিশালী আয়ারল্যান্ডের পর এবার বুঝি শিরোপার দাবিদার দক্ষিণ আফ্রিকাই ধরাশায়ী হতে যাচ্ছে নেদারল্যান্ডসের কাছে।

তবে, শেষ পর্যন্ত দলের বোলারদের সুবাদে বড় অঘটন থেকে বেঁচে গেল প্রোটিয়ারা। ব্যাটসম্যানদের ১৪৫ রানকে পুঁজি করে নিয়ন্ত্রিত বোলিং করে দলকে ৬ রানের জয় এনে দিয়েছেন তাহির-স্টেইনরা।

বৃহস্পতিবার চূড়ান্ত পর্বের দ্বিতীয় ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে টসে জিতে ফিল্ডিংয়ের সিদ্ধান্ত নেন ডাচ অধিনায়ক পিটার বোরেন। তার এ সিদ্ধান্তের যৌক্তিকতা প্রমাণ করেন দলের বোলাররা।

নিয়ন্ত্রিত বোলিং করে সেরা ব্যাটিং লাইনআপের দল দক্ষিণ আফ্রিকাকে বেঁধে রাখেন ১৪৫ রানের মধ্যে। প্রোটিয়া ব্যাটসম্যানদের পক্ষে সর্বোচ্চ ৪৩ রান সংগ্রহ করেন হাশিম আমলা। এছাড়া, অধিনায়ক ফাফ ডু প্লেসিস করেন ২৪ এবং এবিডি ভিলিয়ার্স করেন ২১ রান।

ডাচ বোলারদের পক্ষে আহসান মালিক নেন ৫ উইকেট। এছাড়া, একটি করে উইকেট নেন সোয়ার্ট, গুগটেন, বিক ও কুপার।

জবাবে ব্যাটিং করতে নেমে দুরন্ত সূচনা করেন ডাচ ওপেনাররা। ওপেনিং জুটিতে যখন ৫৮ রান যোগ হয় তখন ম্যাচ অনেকটাই নেদারল্যান্ডসের নিয়ন্ত্রণে। ৮০ রানে দ্বিতীয় উইকেটের পতনের পরও ডাচরা ম্যাচ হারবে মনে হচ্ছিল না। কিন্তু ক্রিকেট অনিশ্চয়তার খেলা বলে ৩ রান যোগ করতেই তৃতীয় উইকেটের পতনের পর নতুন করে হিসাব-নিকাশ শুরু হয়। প্রোটিয়া বোলারদের নিয়ন্ত্রিত বোলিংয়ের পরও ডাচ মিডল অর্ডার ও লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যানরা দলকে জয়ের বন্দরে ভিড়াতে চেষ্টা করেন। কিন্তু শেষ পর্যন্ত তীরে এসে ঘাট না চেনায় তরী ডুবে যায় নেদারল্যান্ডসের।

ডাচ ওপেনার মাইবার্গ করেন ৫১ রান। এই ব্যাটসম্যান বল খেলেন মাত্র ৩৪টি।

প্রোটিয়া বোলারদের পক্ষে ঘূর্ণি জাদুকর ইমরান তাহির নেন ৪ উইকেট। এছাড়া ডেইল স্টেইন দু’টি এবং হেন্ড্রিক, ডুমিনি ও সোতসোবে নেন একটি করে উইকেট।

দলকে এমন ঘাম ঝরানো জয় এনে দিতে অসামান্য অবদান রাখায় প্লেয়ার অব দ্য ম্যাচ হয়েছেন ইমরান তাহির।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪২ ঘণ্টা, মার্চ ২৭, ২০১৪

** জমেছে ডাচ-প্রোটিয়া লড়াই

রেলের ১ লাখ হাজার কোটি টাকার জমি বেদখল
কাপ্তাই হ্রদে সেকেন্ডে ছাড়া হচ্ছে ৩৩ হাজার কিউসেক পানি
এইচএসসির ফল জানা যাবে যেভাবে
সিরাজগঞ্জ চরাঞ্চলের সাড়ে ৯০০ গ্রাম প্লাবিত
কুড়িগ্রামে পানিবন্দি সাড়ে ৩ লাখ মানুষ


মেঘনার ভাঙন রোধে ১৬ কিলোমিটার বাঁধ হবে
বন্যাকবলিতদের জন্য রেডক্রিসেন্টের বিশেষ সহায়তা
অসাম্প্রদায়িক চেতনায় বিশ্বাসী বিরোধীদল দরকার
তৃণমূল থেকে দলকে সুসংগঠিত করার নির্দেশ আ’লীগ নেতাদের 
শ্রীপুরে বজ্রপাতে এক ব্যক্তির মৃত্যু