ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ শ্রাবণ ১৪২৭, ০৪ আগস্ট ২০২০, ১৩ জিলহজ ১৪৪১

খেলা

নিউইয়র্কে বাংলাদেশি ফুটবল: ব্রঙ্কস ইউনাইটেড চ্রাম্পিয়ন

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৩-০৯-১৬ ১২:০৫:০৮ পিএম
নিউইয়র্কে বাংলাদেশি ফুটবল: ব্রঙ্কস ইউনাইটেড চ্রাম্পিয়ন

নিউইয়র্ক: দেশের জনপ্রিয় খেলা ফুটবলকে প্রবাসেও ভুলে যায়নি বাংলাদেশিরা। লীগ আয়োজন করে প্রতিবছর এই খেলায় মেতে ওঠেন বাংলাদেশি যুবক-তরুণরা।

বয়োঃবৃদ্ধরাও যোগ দেন এই আনন্দে। খেলার মূল আয়োজন বাংলাদেশ স্পোর্টস কাউন্সিল অব আমেরিকা। রোববার ছিলো ২০১৩ সালের ফুটবল লীগের চূড়ান্ত ম্যাচ। তাতে জয়ী হয়ে পরপর দুই বছর জয়ের ধারা অব্যাহত রেখেছে ব্রঙ্কস ইউনাইটেড। রানার্সআপ হয়েছে লীগে নবাগত আইসাব। ৪-১ গোলে জিতেছে ব্রঙ্কস ইউনাইটেড।
 
এবছর লীগের প্রধান পৃষ্ঠপোষক আবদীন ব্রাদার্সের নামেই আয়োজন করা হয় ফুটবলের এই টুর্নামেন্ট। সিটির এলমহার্স্টস্থ নিউটাউন অ্যাথলেটিক মাঠে প্রায় তিন মাস ধরে চললো এই লিগ। ফাইনাল ম্যাচে ছিলো বিপুল সংখ্যক দর্শকের ভীড়। বিকেল ৫টায় ব্যাপক আনন্দ উচ্ছ্বাসে শুরু হয় ম্যাচ । দাপটের সাথে খেলেই গতবারের চ্যাম্পিয়ন ব্রঙ্কস ইউনাইটেড ৪-১ গোলে আইসাবকে পরাজিত করে।

ফাইনাল খেলার অপরাহ্নে মাঠে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে এর উদ্বোধন করেন বাংলাদেশের জাতীয় ফুটবল দলের সাবেক অধিনায়ক ও সাবেক কোচ আব্দুস সালাম এবং সন্ধ্যায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে পুরষ্কার বিতরণ করেন নিউইয়র্কস্থ বাংলাদেশ কনস্যুলেটে নিযুক্ত কনসাল জেনারেল মোহাম্মদ মনিরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন বাংলাদেশের সাবেক জাতীয় দলের খেলোয়ার সাঈদ-উর রব ও ফারুক আহমেদ। এছাড়া এটর্নি পেরী ডি সিলভার, বাংলাদেশ সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক আব্দুর রহীম হাওলাদার, জালালাবাদ এসোসিয়েশনের সাবেক সভাপতি বদরুন নানাহার খান মিতা প্রমুখ।  

বিকেল পাঁচটার দিকে ফাইনাল ম্যাচের বল মাঠে গড়ালে কয়েক মিনিটেই ব্রঙ্কস ইউনাইটেড গোল করার সুযোগ নষ্ট করে। শুরু হয় আক্রমণ পাল্টা আক্রমন। তবে দ্রুতই মাঠে পাধান্য বিস্তার করে ব্রঙ্কস ইউনাইটেড।   প্রথমার্ধের ২৪ মিনিটে বিপরীত পক্ষের গোল পোস্টের সামনে জটলা থেকে চমৎকার শটে ব্রঙ্কস ইউনাইটেডের পক্ষে প্রথম গোল (১-০) করেন খায়ের। এরপর সংঘবদ্ধ আক্রমন চালায় ব্রঙ্কস। ২৮ মিনিটে ব্যবধান ২-০ নিয়ে যান ইমরান। ৪০ মিনিটে কর্নার কিক থেকে পাওয়া বল জালে জড়াতে সময় নেননি খায়ের। ফলাফল ৩-০। এর মধ্যে আইসাবের দিকেও সুযোগ সৃষ্টি হয়। তবে তার কোনোটিই কাজে লাগাতে পারেনি দলের খেলোয়াড়রা।   প্রথমার্ধ শেষ হয় ৩-০ গোলের ব্যবধানেই।

খেলার দ্বিতীয়ার্ধের আবারও সংঘবদ্ধ আক্রমন চালায় ব্রঙ্কস ইউনাইটেড। এই অর্ধের ১৬ মিনিটের সময় আইসাবের কয়েকজন খেলোয়ারকে কাটিয়ে ব্রঙ্কস ইউনাইটেডের কফিল চমৎকার শটে গোল করে দলকে চ্যাম্পিয়নশীপের দ্বারপ্রান্তে নিয়ে যান (৪-০)। দ্বিতীয়ার্ধের ৩১ মিনিটের সময় আইসাবের পক্ষে আবু একমাত্র গোলটি করেন। ব্রঙ্কস ইউনাইটেডের গোলপোস্টের সামনের জটলা থেকে আকস্মিক শটে আবু গোলটি করে স্কোর ৪-১ গোলে পৌঁছায়।

পরে পুরস্কার বিতরণীতে লীগ পরিচালনায় বিশেষ অবদান রাখার জন্য সোনার বাংলা দলের প্রতিষ্ঠাতা জুয়েল আহমেদ ও স্পোর্টস কাউন্সিলের কোষাধ্যক্ষ ওয়াহিদ কাজী এলিনকে ক্রেস্ট দেওয়া হয়। এছাড়া উদ্বোধনী অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি জাতীয় দলের সাবেক ফুটবলার আব্দুস সালামকে ক্রেস্ট প্রদান করা হয়। লীগের সেরা খেলোয়ারের পুরষ্কার পান ব্রঙ্কস ইউনাইটেডের কফিল। এমভিপি’র পুরষ্কার লাভ করেন ব্রঙ্কস ইউনাইটেডের কায়সার। লীগে ১১টি করে গোল করে যৌথভাবে সেরা গোলদাতার পুরষ্কার পান ব্রাদার্স এলান্সের আশরাফ ও আইসাবের মিলাদ। সেরা ডিফেন্ডার খেলোয়ারের পুরষ্কার লাভ করেন ব্রঙ্কস ইউনাইটেডের খায়ের।

ব্রঙ্কস ইউনাইটেড দলের খেলোয়াড়রা হচ্ছেন: মিনহা, রাজু, কফিল, হাসান, ইমরান, রাসেল, পিপলু, পাপ্পু, খায়ের, সামি। অতিরিক্ত: জামি, সামি, দেলোয়ার ও মাহিদ।

আইসাব দলে ছিলেন: পারভেজ, সৈকত, আবু, জাকির, রহমান, অভি, শাকিল, রুবেল, ওমর, রনি, রাব্বি। অতিরিক্ত: সাব্বির, আরেফীন, ইমন, হাসান, সামিউল, মহিতুল ও মিলার।

বাংলাদেশ সময় ১২০০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৬, ২০১৩
এমএমকে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa