ফিরে দেখা ২০১৯

এমপিপুত্র থেকে ওসি, রেহাই পাননি কেউ

খাদেমুল ইসলাম, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

এমপিপুত্র রনি, ওসি মোয়াজ্জেম, জাবালে নূরের চালক।

walton

বিদায়ী বছরের শুরু থেকে শেষ পর্যন্ত ঢাকার মহানগর আদালতে বেশ কিছু আলোচিত মামলার রায় হয়। বছরের শুরুতেই ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের সংরক্ষিত নারী আসনের এক সংসদ সদস্যের ছেলেকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন একটি আদালত। বছরের শেষদিকে ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তাকে (ওসি) আট বছরের কারাদণ্ড দেন বাংলাদেশ সাইবার ট্রাইব্যুনাল। আর ডিসেম্বর মাসে ঢাকার রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থীর মৃত্যুর ঘটনায় জাবালে নূর বাসের চালক-হেলপারসহ তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেওয়া হয়। ক্ষমতাসীন দলের এমপিপুত্র থেকে শুরু করে পুলিশের ওসি পর্যন্ত সবাই শাস্তির আওতায় এসেছেন এসব রায়ে। বিগত বছরের আলোচিত কয়েকটি রায় নিয়ে বাংলানিউজের এবারের আয়োজন ফিরে দেখা-২০১৯।

এমপিপুত্র রনির যাবজ্জীবন
চার বছর আগে মগবাজারের নিউ ইস্কাটনে গাড়ি থেকে হঠাৎ এলোপাতাড়ি গুলিতে প্রাণ হারান নিরপরাধ দু’জন মানুষ। পরে জানা যায়, ঘটনাটি ঘটিয়েছেন মহিলা আওয়ামী লীগের তৎকালীন ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক ও সংরক্ষিত আসনের তৎকালীন সংসদ সদস্য পিনু খানের ছেলে বখতিয়ার আলম রনি। তবে এমপিপুত্র হয়েও ছাড় পাননি তিনি, এসেছেন বিচারের আওতায়। ওই খুনের ঘটনায় এমপিপুত্র রনিকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন ঢাকার একটি আদালত। একই সঙ্গে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা, অনাদায়ে তার আরও ছয় মাসের কারাদণ্ডের আদেশ দেন বিচারক।

ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে ওসি মোয়াজ্জেমই প্রথম
বিদায়ী বছরের শেষদিকে আট বছরের কারাদণ্ড হয় ফেনীর সোনাগাজী থানার সাবেক ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোয়াজ্জেম হোসেনের। শ্লীলতাহানীর অভিযোগ দিতে থানায় গেলে মাদ্রাসাছাত্রী নুসরাত জাহান রাফির জবানবন্দি ভিডিও করেন তিনি। সেই ভিডিও ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেওয়ার অভিযোগে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা হয় ওসি মোয়াজ্জেমের নামে। এ মামলায় গত ২৮ নভেম্বর সাইবার ট্রাইব্যুনালের বিচারক মোহাম্মদ আসসামছ জগলুল হোসেন দু’টি ধারায় মোয়াজ্জেমকে মোট আট বছর কারাদণ্ড দেন। এসময় ১০ লাখ টাকা অর্থদণ্ড, অনাদায়ে দু’টি ধারায় আরও ছয় মাস বিনাশ্রম কারাদণ্ডও দেওয়া হয় তাকে। ২০১৮ সালে পাস হওয়া ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে প্রথম সাজাপ্রাপ্ত ব্যক্তি হচ্ছেন ওসি মোয়াজ্জেম।

দিয়া-রাজীবের মৃত্যু: দুই চালকসহ তিনজনের যাবজ্জীবন
বেপরোয়া দুই বাসের রেষারেষিতে রাজধানীর রমিজ উদ্দিন ক্যান্টনমেন্ট কলেজের দুই শিক্ষার্থী আবদুল করিম রাজীব ও দিয়া খানম মিমের মৃত্যু ২০১৮ সালে আলোড়ন সৃষ্টি করে। সারাদেশের শিক্ষার্থীরা রাস্তায় নেমে আসেন নিরাপদ সড়কের দাবিতে। আলোচিত এ ঘটনায় হওয়া মামলায় রায় হয়েছে দেড় বছরের মধ্যেই।

গত ১ ডিসেম্বর ওই রায়ে ঢাকার মহানগর দায়রা জজ কে এম ইমরুল কায়েশ দুই বাসের চালকসহ তিনজনকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। দণ্ডপ্রাপ্তরা হলেন- জাবালে নূর পরিবহনের দুই চালক মাসুম বিল্লাহ ও জুবায়ের সুমন এবং এক বাসের সহকারী কাজী আসাদ। এর মধ্যে কাজী আসাদ পলাতক থাকলেও বাকি দুইজন কারাগারে রয়েছেন। রায়ে জাবালে নূর পরিবহনের মালিক জাহাঙ্গীর আলম ও বাসচালকের সহকারী এনায়েত হোসেনকে বেকসুর খালাস দেওয়া হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১১২৩ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ৩০, ২০১৯
কেআই/একে

সারাদেশ থেকে বিনা মাশুলে মৌসুমি ফল পরিবহন করবে ডাকঘর
রাঙামাটিতে মাস্ক না পরায় ১৭ জনকে জরিমানা
বাস ভাড়া বাড়ার প্রতিবাদে খুলনায় মানববন্ধন
৪ মাস চিকিৎসার পর উহানে করোনা আক্রান্ত চিকিৎসকের মৃত্যু
সরকারি চাকুরেদের এসিআর দাখিলের সময় বাড়লো ২ মাস


ইউনাইটেড হাসপাতালে আগুনের ঘটনায় প্রতিবেদন চেয়েছেন হাইকোর্ট
করোনায় কপাল খুলেছে নওগাঁর লেবু চাষিদের 
মাঠে ফেরার পরিকল্পনা করে ফেলেছে বিসিবি
খাবারের কারখানায় তৈরি হচ্ছে নকল স্যানিটাইজার!
১৬ হাজার ২৭৬ কোটি টাকার ১০ প্রকল্প অনুমোদন