ফ্রান্সে প্রথম বাংলাদেশি কাউন্সিলর শারমিন হক

মোসাদ্দেক হোসেন সাইফুল, প্যারিস করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

শারমিন হক আব্দুল্লাহ (ফাইল ছবি)

walton

ফ্রান্স: ফ্রান্সে বাংলাদেশিদের কলেরব দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। রাজনৈতিক আশ্রয়, উচ্চশিক্ষা, বিভিন্ন ধরনের বৃত্তিসহ নানা কারণেই শিল্প সংস্কৃতি ও মানবাধিকারের তীর্থভূমি ফ্রান্সে যাচ্ছেন বাংলাদেশিরা।



শুরুতে এই সংখ্যা হাতেগোনা হলেও বর্তমানে ফ্রান্সে বসবাসরত বাংলাদেশির সংখ্যা ৫০ হাজার ছাড়িয়ে গেছে বলে ধারণা করছেন দীর্ঘদিন ধরে এখানে বসবাসরত প্রবাসীরা।

বর্তমানে ফ্রান্সে বসবাসরত বাংলাদেশিরা রেস্টুরেন্ট ব্যবসা, ডিপার্টমেন্টাল স্টোর, ট্যাক্সিচালক, আমদানি-রফতানি, ডাক্তার, ইঞ্জিনিয়ার, ব্যাংকার ইত্যাদি ক্ষেত্রে অনেকেই সফলতার স্বাক্ষর রাখছেন। নিজেদের মেধা ও যোগ্যতা দিয়ে ধীরে ধীরে প্রবাসীরা নিজেদের অবস্থান জানান দিচ্ছেন। এরই ধারাবাহিকতায় ফ্রান্সের মূলধারা রাজনীতিতে বাংলাদেশি প্রজন্মের পদচারণা শুরু হয়েছে।
 
ফ্রান্সে শারমিন হক আব্দুল্লাহ প্রথম বাংলাদেশি হিসাবে পিয়ার ফি মিউনিসি্প্যাল থেকে কাউন্সিলর নির্বাচিত হয়েছেন।

২০১৪ সালের ২৩ মার্চ প্রথম দফা ও ৩০ মার্চ দ্বিতীয় দফায় কাউন্সিলর নির্বাচন হয়। নির্বাচনে তার দল সোশালিস্ট পার্টি অংশগ্রহণ করে এবং ষাট শতাংশ ভোট তাদের পক্ষে যায়। মেয়র মিশেল ফরকেদ-এর প্যানেলে ২৭ জন কাউন্সিলর নির্বাচিত হন। পরবর্তীতে সেই ২৭ জন থেকে একজনের মৃত্যু হলে 'শুন্য পদে' নির্বাচিত হন বাংলাদেশি শারমিন হক। তিনি আরও প্রায় তিন বছর কাউন্সিলর হিসাবে কাজ করবেন।
 
তার বাবা আব্দুল্লাহ আল বাকী ইউরোপিয়ান আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি।
 
নির্বাচিত শারমিন ফ্রান্স প্রবাসী বাংলাদেশিদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন এবং সবার কাছে দোয়া কামনা করেছেন।

শারমিনের এমন জয়ে উচ্ছ্বসিত ফ্রান্স প্রবাসী বাংলাদেশিরা। 

বাংলাদেশ সময়: ২১৪৮ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২২, ২০১৮
আরআর

ঢাকা শহরের চাপ কমাবে আউটার সার্কুলার রোড
কেন্দ্রে সেনাবাহিনীর উপস্থিতি থাকবে: ইসি রফিকুল ইসলাম
আদিতমারীতে জমি নিয়ে সংঘর্ষে যুবলীগ নেতাসহ আহত ৮
সাপ্তাহিক সরকারি ছুটি একদিন করার দাবি
বাংলাদেশের পর্যটক টানতে চায় ত্রিপুরা


রাজনৈতিক কারণে খালেদা জিয়ার জামিন হচ্ছে না: মওদুদ
ভোলার ১৯০ কিলোমিটার জলসীমায় ২ মাস ইলিশ ধরায় নিষেধাজ্ঞা
শিশুপ্রহরে শিশুদের উপচে পড়া ভিড়
চাকরিতে প্রবেশের বয়স ৩৫ করার দাবি
পাপিয়ার সঙ্গে জড়িত সবাইকে আইনের আওতায় আনা হবে