ঢাকা, শনিবার, ৮ কার্তিক ১৪২৭, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ০৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

লন্ডন

‘ইভোরা’য় রক্ষিত প্রথম বাংলা ব্যাকরণ

সৈয়দ আনাস পাশা, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৬৪৮ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৭, ২০১৬
‘ইভোরা’য় রক্ষিত প্রথম বাংলা ব্যাকরণ

লিসবন (পর্তুগাল) থেকে: বাংলা ব্যাকরণ ও অভিধান প্রথম মুদ্রিত এবং প্রকাশিত হয় পর্তুগিজ মিশনারি ফাদার ম্যানুয়েল (Manuel Da Assumpcao) উদ্যোগে।  

অষ্টাদশ শতাব্দীর প্রথম দিকে ১৭৪৩ সালে পর্তুগালের রাজধানী লিসবন থেকে  বাংলা ও পর্তুগিজ ভাষায় অভিধান ও বাগধারায় ভাগ করে এই বাংলা ব্যাকরণ বই মুদ্রণ ও প্রকাশ করেন তিনি।

 

প্রথম মুদ্রিত এই ব্যকরণ বই বাংলা ভাষার উন্নয়নে পর্তুগিজদের অন্যতম গুরুত্বপূর্ণ অবদান ও বাংলা ভাষার ইতিহাসে প্রথম আধুনিক মুদ্রিত ব্যাকরণ বই হিসেবেই বিবেচিত হয়।  

লিসবনের দ্য পাবলিক লাইব্রেরি অব ইভোরা (Evora) হস্ত লিখিত পান্ডুলিপির কিছু অংশসহ বাংলা ভাষার প্রথম মুদ্রিত ব্যাকরণের এই কপি তাদের আর্কাইভে সংরক্ষণ করছে। লিসবনের বাংলাদেশ হাইকমিশনের ডিজিটাল ভার্সন সংগ্রহ করে হাইকমিশন ভবনে প্রদর্শনীর জন্য রেখেছে।  

স্থানীয় সময় সোমবার (২৪ অক্টোবর) এই প্রতিবেদককে এর কপি দেখান লিসবনে নিযুক্ত বাংলাদেশি রাষ্ট্রদূত ইমতিয়াজ আহমেদ।  

বললেন, বাংলা ভাষার ইতিহাসের এটি একটি অনন্য দলিল, যা হাইকমিশনে সংরক্ষণ করতে পেরে নিজেকে ধন্য মনে করছি।

আজ থেকে প্রায় ৫০০ বছর আগে ব্রিটিশ ও অন্যান্য ইউরোপীয় শক্তি বাংলাদেশে সাম্রাজ্য বিস্তারের অনেক আগেই পর্তুগিজ ব্যবসায়ী ও ধর্ম প্রচারকরা বাংলাদেশে যান।

ইতিহাস পর্যালোচনায় দেখা যায়, ১৫১৬ সালের কোনো এক সময় পর্তুগিজরা প্রথম বাংলাদেশে যান। ১৫৩৬/৩৭ সালের দিকে শুরু হয় তাদের বসতি স্থাপন।  

প্রথম দিকে বাংলাদেশের চট্টগ্রাম অঞ্চলে বসতি শুরু হলেও ১৬৬৬ সালের দিকে পর্তুগিজরা ঢাকাতেও বসবাস শুরু করেন। বিশেষ করে ঢাকা ও চট্টগ্রাম এলাকায় বাঙালিদের ব্যবসা বাণিজ্য, ধর্ম, সংস্কৃতি, শিক্ষা ও ভাষার  ওপর ব্যাপক প্রভাব রয়েছে পর্তুগিজদের।  
 
বাংলাদেশ সময়: ০৬৩৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৭, ২০১৬
এমএ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa