রূপপুরের যন্ত্রপাতি তৈরি প্রক্রিয়া পরিদর্শনে ইয়াফেস ওসমান

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

রাশিয়ায় কারখানা পরিদর্শনে মন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান। ছবি: রোসাটমের সৌজন্যে

walton

ঢাকা: রাশিয়ার এইএম টেকনলজির ভলগাদন্সক কারখানা পরিদর্শন করেছেন বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রী স্থপতি ইয়াফেস ওসমানের নেতৃত্বে উচ্চ পর্যায়ের একটি প্রতিনিধি দল। এ কারখানায় তৈরি হচ্ছে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎকেন্দ্রের যন্ত্রপাতি।

রোববার (০১ মার্চ) রোসাটমের এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়। 

এতে বলা হয়, এইএম টেকনলজি রাশিয়ার রাষ্ট্রীয় পারমাণবিক শক্তি কর্পোরেশন-রোসাটমের যন্ত্র প্রকৌশল বিভাগের একটি অংশ। গত ২৭ ফেব্রুয়ারি ইয়াফেস ওসমানের নেতৃত্বে ওই কারখানা পরিদর্শন করেন একটি প্রতিনিধিদল। 

নির্মাণাধীন রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্পের জন্য প্রয়োজনীয় যন্ত্রপাতি প্রস্তুত প্রক্রিয়ার অগ্রগতি সম্পর্কে জানাই হচ্ছে এ পরিদর্শনের উদ্দেশ্য। 

রোসাটম জানায়, বর্তমানে এই কারখানায় একটি রিয়্যাক্টরের আপার ও লোয়ার সেমি-ভেসেলের প্রস্তুত কাজ সম্পন্ন হয়েছে এবং একটি ইউনিটের বাষ্প জেনারেটর ভেসেলের কাজ এগিয়ে চলছে। পরবর্তী এক মাসে প্রয়োজনীয় ওয়েল্ডিং কাজও সম্পন্ন হবে। 

এইএম টেকনোলজি রূপপুর প্রকল্পের দু’টি ইউনিটের জন্য দু’টি রিয়্যাক্টর এবং দুই সেট বাষ্প জেনারেটর নির্মানের কাজ করছে। 

এই নির্মাণ কাজ পরিদর্শনকালে মন্ত্রী ইয়াফেস ওসমান বলেন, এটি শুধুমাত্র একটি বাণিজ্যিক প্রকল্প নয়। দু’টি বন্ধুপ্রতীম দেশ প্রকল্পটি বাস্তবায়ন করছে। এই বন্ধুত্বের উদ্দীপনা নিয়েই এগিয়ে চলছে প্রকল্পের কাজ।

রুশ নকশা অনুযায়ী নির্মিত হচ্ছে রূপপুর পারমাণবিক বিদ্যুৎ প্রকল্প। প্রকল্পের দু’টি ইউনিটেই ৩+ প্রজন্মের সর্বাধুনিক ভিভিইআর-১২০০ রিয়্যাক্টর স্থাপিত হবে। এই রিয়্যাক্টরগুলোর কার্যকাল ৬০ বছর, যা প্রয়োজনে আরও ২০ বছর বাড়ানো সম্ভব।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪৮ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২০
এসকে/এমএ

লাঞ্ছিত না করে শ্রমজীবী মানুষকে খাদ্য দিন: ক্ষেতমজুর সমিতি
সরকারি খাস জমিতে বাড়ি পাচ্ছেন সেই বৃদ্ধ
ছিন্নমূল মানুষকে একবেলা খাবার দেবে ডিএমপি
টিভিতে ‘আমার ঘরে আমার ক্লাস’ শুরু সকাল ৯টায়
ভূতুড়ে নগরী ঢাকা


সংকট মোকাবিলায় জনগণ জাতীয় ঐক্য স্থাপন করেছে: জেএসডি
নারায়ণগঞ্জে পর্যাপ্ত পিপিই মজুদ আছে: ডিসি
বগুড়ায় দিনমজুরদের খাদ্যসামগ্রী দিলেন আ’লীগ নেতা রনি
বগুড়ায় হোম কোয়ারেন্টিনে ৭৫২, ছাড়পত্র পেয়েছে ১৬১ জন
করোনা ইউনিটে নেয়ার পরেই রোগীর মৃত্যু