কমছে পেট্রোল, ডিজেলের পাইকারি দর

2052 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
কনডেনসেট থেকে উৎপাদিত জ্বালানি তেলের (পেট্রোল, অকটেন, ডিজেল) দাম কমানো হচ্ছে। দু’একদিনের মধ্যেই এ বিষয়ে গেজেট প্রকাশ করা হবে। ভোক্তারা দাম কমানোর সুফল পাবেন না। তবে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন’র (বিপিসি) মুনাফা কিছুটা বাড়বে।

ঢাকা: কনডেনসেট থেকে উৎপাদিত জ্বালানি তেলের (পেট্রোল, অকটেন, ডিজেল) দাম কমানো হচ্ছে। দু’একদিনের মধ্যেই এ বিষয়ে গেজেট প্রকাশ করা হবে। ভোক্তারা দাম কমানোর সুফল পাবেন না। তবে বাংলাদেশ পেট্রোলিয়াম করপোরেশন’র (বিপিসি) মুনাফা কিছুটা বাড়বে। এমন তথ্য জানিয়েছে জ্বালানি বিভাগ।

সূত্র জানিয়েছে, দেশের গ্যাস ক্ষেত্রগুলো থেকে গ্যাসের সঙ্গে পাওয়া কনডেনসেট রাষ্ট্রীয় প্রতিষ্ঠান ইস্টার্ন রিফাইনারি ছাড়াও পাঁচটি বেসরকারি কোম্পানি শোধন করে। এসব কনডেনসেট শোধন করে পেট্রোল, অকটেন, ডিজেল, কেরোসিন, তারপিনসহ বিভিন্ন জ্বালানি পণ্য উ‍ৎপাদন করা হয়।

এর মধ্যে পেট্রোল, অকটেন, ডিজেল ও কেরোসিন কিনে নেয় সরকারি প্রতিষ্ঠান বিপিসি। বিপিসি এসব জ্বালানি তেল রাষ্ট্রীয় কোম্পানি পদ্মা, মেঘনা ও যমুনার মাধ্যমে খুচরা পর্যায়ে বিক্রি করে থাকে।

কনডেনসেট থেকে উৎপাদিত ডিজেলের দাম লিটারপ্রতি ৫৫.৫৪ টাকা। যা ৪.৯৬ টাকা কমানোর প্রস্তাব করা হয়েছে। কেরোসিনের বর্তমান দর ৫৫.৯২ টাকা থেকে ৫.৬৯ টাকা কমানো, পেট্রোল ৫৬.২৯ টাকা থেকে ২৯.২৮ টাকা কমিয়ে ২৭ টাকা, অকটেন ৫৮.২৭ টাকা থেকে কমিয়ে ২৮.২৯ করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই সিদ্ধান্ত গত নভেম্বর মাস থেকে কার্যকরের প্রস্তাব করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

৫ মার্চ বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ এ সংক্রান্ত সিদ্ধান্তে স্বাক্ষর করেছেন। মন্ত্রণালয় গেজেট আকারে প্রকাশের জন্য বিজি প্রেসে পাঠিয়েছে। দু’একদিনের মধ্যেই গেজেট প্রকাশ করার সম্ভাবনা রয়েছে বলে জানা গেছে।

কনডেনসেট উৎপাদিত জ্বালানি তেল বিপিসির কাছে বিক্রি করে অতিরিক্ত মুনাফা করছিল বেসরকারি প্রতিষ্ঠানগুলো। মুনাফার রাশ টেনে ধরার জন্য সরকারের জ্বালানি বিভাগ কনডেনসেট থেকে উৎপাদিত পেট্রোল, অকটেন, ডিজেল ও কেরোসিনের দাম কমিয়ে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে বলে জ্বালানি বিভাগ সূত্র জানিয়েছে।

আন্তর্জাতিক বাজারে জ্বালানি তেলের দাম অর্ধেকে নেমে এসেছে। এ কারণে অভ্যন্তরীণ বাজারেও জ্বালানি তেলের দাম কমানোর দাবি উঠেছে। দাম কমানোর বিষয়ে এখনও ভাবছে না বলে জানিয়েছেন জ্বালানি বিভাগের সচিব আবুবকর সিদ্দিক।

তিনি বাংলানিউজকে জানিয়েছেন, এখন আন্তর্জাতিক বাজারে তেলের দাম কমে গেছে। এতে বিপিসি মুনাফা করছে এ কথা সত্যি। তবে দীর্ঘদিনের লোকসানের তুলনায় কিছুই না। আবার হঠাৎ করে তেলের দাম বেড়ে যাওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ দর অব্যাহত থাকলে দু’এক মাস পর তেলের দাম কমানোর চিন্তা করা হবে।

২০১৩ সালে জ্বালানি তেলের দাম ব্যারেল প্রতি বেড়ে দাঁড়ায় ১২২ ডলারে। তখন দাম বৃদ্ধির কারণ দেখিয়ে বাংলাদেশে সকল জ্বালানি তেলের দাম বাড়ানো হয়। এখন সেই জ্বালানি তেলের দাম ৫০ ডলারের নিচে নেমে এসেছে।

বাংলাদেশ সময়: ০২০০ ঘণ্টা, মার্চ ১১, ২০১৫

Nagad
যে গ্রামে হাতি-মানুষের যুদ্ধ
শেষ শ্রদ্ধা শেষে সিমেট্রিতে এন্ড্রু কিশোরের কফিন
বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবি: ময়ূরের দুই ইঞ্জিন ড্রাইভার গ্রেফতার
স্বাস্থ্য সংকট হ্রাসে ‘ডাটা বিপ্লব’
এন্ড্রু কিশোরের শেষ যাত্রায় জায়েদ খান


মাশরাফির ছোট ভাই সেজারেরও করোনা নেগেটিভ
খনন হবে সাঙ্গু-চাঁদখালী নদী, সোনাইছড়ি বেড়িবাঁধে সংস্কার
র‍্যাঙ্কিংয়েও বড় লাফ হোল্ডারের
সাহেদের যত প্রতারণা
ইউআইটিএস ও গুলশান ক্লিনিকের মধ্যে সমঝোতা স্মারক