ঢাকা, বুধবার, ১৫ আশ্বিন ১৪২৭, ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১১ সফর ১৪৪২

রাজনীতি

বয়স্ক ভাতার ঘুষ নিয়ে দ্বন্দ্বে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৩৪৪ ঘণ্টা, আগস্ট ৬, ২০২০
বয়স্ক ভাতার ঘুষ নিয়ে দ্বন্দ্বে কৃষককে কুপিয়ে হত্যা

নোয়াখালী: বয়স্ক ভাতার ঘুষ নিয়ে দ্বন্দ্বের জের ধরে নোয়াখালীর সুবর্ণচর উপজেলার চরজব্বার ইউনিয়নে আবদুল মান্নান (৫১) নামে এক কৃষককে কুপিয়ে হত্যা করেছে সন্ত্রাসীরা।  এ ঘটনায় সন্ত্রাসীদের হামলায় আরও তিনজন গুরুতর আহত হয়েছেন।

খবর পেয়ে পুলিশ ইউনিয়ন পরিষদের এক সদস্যসহ ৩ জনকে আটক করেছে।

বুধবার (৫ আগস্ট) দিনগত রাতে উপজেলার চরজব্বার ইউনিয়নের কাঞ্চনবাজারে এ ঘটনা ঘটে। আহতরা হলেন-পশ্চিম চরজব্বার গ্রামের নুর আলমের ছেলে পল্লিচিকিৎসক আবুল কাশেম, রাসেল ও জয়নাল আবেদীনের ছেলে হেলাল উদ্দিন।

নিহতের ছোট ভাই স্থানীয় আওয়ামীলীগ নেতা সফিকুর রহমান জানান, মহামারি করোনা ভাইরাসের মাঝমাঝি সময়ে চরজব্বার ইউনিয়নের চার নম্বর ওয়ার্ডের ইউপি সদস্য বাহার উদ্দিন বৃদ্ধ মফিজুর রহমানকে বয়স্ক ভাতা দেওয়ার নাম করে তার কাছ থেকে এক হাজার টাকা ঘুষ নেয়। এর কিছুদিন পর ওই বৃদ্ধ ইউপি সদস্য বাহার উদ্দিনকে ভাতা অথবা ঘুষের টাকা ফেরত দেওয়ার জন্য চাপ প্রয়োগ করলে বাহার তাকে মারধর করেন।  

ওই ঘটনায় আমার চাচাতো ভাই যুবলীগকর্মী মঞ্জু প্রতিবাদ করলে বাহারের ছেলে বেন্ডা ও স্থানীয় মজিবুল হক মাঝির ছেলে ইসমাঈলের নেতৃত্বে একদল সন্ত্রাসী তাকে পিটিয়ে আহত করেন। পরে গত ১০ এপ্রিল মঞ্জু বাদী হয়ে চরজব্বার থানায় মামলা দায়ের করেন।

এর জের ধরে বুধবার রাতে স্থানীয় কাঞ্চন বাজারে ইউপি সদস্য বাহার উদ্দিন ও মজিবুল হক মাঝির ছেলে ফজলুল হক ফজলুর নেতৃত্বে ইসমাঈল হোসেন, আনিছ, আবুল কালাম, আবদুল আলী, আজাদ হোসেনসহ ১৫/২০ জনের একদল সন্ত্রাসী মঞ্জুকে না পেয়ে বাজারে ফাঁকা গুলি ছোড়ে।  

একপর্যায়ে আমার ভাই আবদুল মান্নান ও আমাদের আত্মীয়-স্বজনের ওপর হামলা চালিয়ে এলোপাথাড়ি কুপিয়ে একাধিক ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে লুটপাট করে চলে যায়। পরে স্থানীয় লোকজনের সহযোগিতায় গুরুতর আহত আবদুল মান্নান, আবুল কাশেম, রাসেল ও হেলাল উদ্দিনকে উদ্ধার করে নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করলে কর্তব্যরত চিকিৎসক আবদুল মান্নানকে মৃত ঘোষণা করেন।

নোয়াখালী জেনারেল হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল কর্মকর্তা সৈয়দ মহিউদ্দিন  আবদুল আজিম কৃষক আবদুল মান্নানের মৃত্যুর বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।  

তিনি জানান, আহত তিনজনকে হাসপাতালে চিকিৎসা দেওয়া হচ্ছে।

চরজব্বার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) শাহেদ উদ্দিন জানান, দুই পক্ষের সংঘর্ষে একজনের মৃত্যুর ঘটনায় স্থানীয় ইউপি সদস্য বাহার উদ্দিনসহ তিনজনকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১৩৪০ ঘণ্টা, আগস্ট ০৬, ২০২০
এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa