ঢাকা, বুধবার, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭, ১২ আগস্ট ২০২০, ২১ জিলহজ ১৪৪১

রাজনীতি

পাপিয়ার মতো অন্যদের বিরুদ্ধে পর্যায়ক্রমে ব্যবস্থা

শামীম খান, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৪৩২ ঘণ্টা, মার্চ ১, ২০২০
পাপিয়ার মতো অন্যদের বিরুদ্ধে পর্যায়ক্রমে ব্যবস্থা

ঢাকা: সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে অপকর্মের সঙ্গে জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেবে সরকার। তাদের সম্পর্কে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারীবাহিনী তথ্য সংগ্রহ অব্যাহত রেখেছে। পর্যায়ক্রমে অভিযান চালিয়ে এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

এরই অংশ হিসেবে যুব মহিলা লীগ নেত্রী পাপিয়াকে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে সরকারের একাধিক সূত্র জানিয়েছে।

মাদক, অস্ত্র, চোরাচালান, জমি দখল, চাঁদাবাজি, হোটেলে নারীদের জিম্মি করে যৌন ব্যবসাসহ বিভিন্ন অপকর্মের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে গত ২২ ফেব্রুয়ারি নরসিংদী জেলা যুব মহিলা লীগের সাধারণ সম্পাদক শামীমা নুর পাপিয়াকে গ্রেফতার করেছে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারীবাহিনী।

 

এর পর গত ২৫ ফেব্রুয়ারি রাতে গেন্ডারিয়া থানা আওয়ামী লীগের সহসভাপতি এনামুল হক এনু এবং যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক রূপম ভুঁইয়ার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারীবাহিনী নগদ ২৭ কোটি টাকা ও এক কেজি সোনা উদ্ধার করেছে।

সূত্রগুলো জানায়, গ্রেফতার হওয়া যুব মহিলা লীগ নেত্রী পাপিয়া এতদিন কাদের ছত্র ছায়ায় এত দাপট দেখিয়েছে বা কাদের সঙ্গে যোগাযোগ ছিলো তাদের বিষয়েও খোঁজ খবর নেওয়া হচ্ছে। পাশাপাশি গেন্ডারিয়ার এনু ও রূপমকে কারা প্রশ্রয় দিয়েছে বা কাদের যোগাযোগ ছিলো তাদের তথ্য সংগ্রহ করা হচ্ছে। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

গত বছর সেপ্টেম্বর থেকে দুনীতি অপকর্মের বিরুদ্ধে শুদ্ধি অভিযান শুরু করে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী। ওই সময় অভিযানে বিভিন্ন অপরাধের সঙ্গে জড়িত থাকার অভিযোগে বেশ কয়েক জনকে গ্রেফতার করা হয়। এর পর গত কয়েক মাস হলো এই অভিযান দৃশ্যমান থাকেনি।

তবে সরকার ও ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের একাধিক সূত্র বলছে, অভিযান দৃশ্যমান না হলেও আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতা অব্যাহত রয়েছে। সব ধরনের অনিয়মের বিরুদ্ধে কার্যকর ব্যবস্থা নিতে বিভিন্নভাবে তথ্য অনুসদ্ধান অব্যাহত রয়েছে।

ওই সূত্রগুলো আরও জানায়, টানা তৃতীয় মেয়াদে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় রয়েছে। ইতোমধ্যেই ক্ষমতার ১১ বছার পার হয়েছে। দীর্ঘ দিন দল ক্ষমতায় থাকায় আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের অনেকেই ক্ষমতার দাপট দেখিয়ে আসছে। দলের ও সংগঠনের পদে থেকে অনেকেই বিভিন্নভাবে প্রভাব খাটিয়ে অপকর্ম ও দুনীতির সঙ্গে জড়িত হয়ে পড়েছে।  

আবার অনেকেই দলকে ব্যবহার করে প্রভাব খাটানোর চেষ্টায় রয়েছে। অপকর্মের সঙ্গে জড়িত এ সব নেতাদের ব্যাপারে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী তথ্য সংগ্রহ অব্যাহত রেখেছে। সুনির্দিষ্ট তথ্যের ভিত্তিতে এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সরকার। এরই অংশ হিসেবে পাপিয়াকে গ্রেফতার এবং গেন্ডারিয়ার অভিযান চলে।  

দলীয় ক্ষমতা ব্যবহার করে বিভিন্ন অকর্মের সঙ্গে জড়িত হয়ে পড়ায় গত বছর সেপ্টেম্বর থেকে শুরু হওয়া অভিযানে আওয়ামী লীগ ও এর সহযোগী সংগঠনের কয়েকজন নেতা গ্রেফতার হয়ে জেলে আছেন। বেশ কিছু নেতার রাজনৈতিক জীবন নষ্ট হয়ে গেছে। অনেকেই আবার গা ঢাকা দিয়ে আছেন। গ্রেফতার হওয়াদের কাছ থেকে যে তথ্য পাওয়া গেছে এবং যাদের নাম এসেছে তাদের বিষয়েও তদন্ত্র চলছে। এদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলেও সরকার ও আওয়ামী লীগের সূত্রগুলো থেকে আরও জানা যায়।

বাংলাদেশ সময়: ১৪২৮ ঘণ্টা, মার্চ ০১, ২০২০
এসকে/এজে

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa