সুবিধাভোগীদের খুঁজে আইনের আওতায় আনা জরুরি: নাসিম

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

বক্তব্য রাখছেনআওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম/ছবি- রাজীন চৌধুরী

walton

ঢাকা: বিএনপি-জামায়াতের চেয়ে এখন ভয়ঙ্কর হলো নব্য আওয়ামী লীগাররা। এসব দুর্বৃত্ত, সুবিধাভোগীদের কারণে আওয়ামী লীগের বড় বড় অনেক নেতাকে খুঁজে পাওয়া যায় না। সুবিধাভোগীদের খুঁজে বের করে আইনের আওতায় আনা জরুরি হয়ে পড়েছে। না হলে শেখ হাসিনার সব অর্জন ধূলায় মিশে শেষ হয়ে যাবে।

শনিবার (২৯ ফেব্রুয়ারি) রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোট আয়োজিত ‘খ্যাতিমান চলচ্চিত্রকার আলমগীর কুমকুমের ৮ম মৃত্যুবার্ষিকী’ উপলক্ষে এক আলোচনা সভায় এ কথা বলেন আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলীর সদস্য ও ১৪ দলের মুখপাত্র মোহাম্মদ নাসিম।

নাসিম বলেন, পাহাড় সমান বাধা পেরিয়ে শেখ হাসিনা দেশে আইনের শাসন প্রতিষ্ঠা করেছেন। তিনি যুদ্ধাপরাধীদের বিচার করেছেন, জাতির পিতার হত্যাকারীদের বিচার করেছেন। তার অনেক বড় অবদান আছে। তবে এসব অবদান ধূলায় মিশিয়ে দিতে চায় কিছু নব্য আওয়ামী লীগাররা।

তিনি বলেন, এসব নব্য আওয়ামী লীগারদের খুঁজে বের করে শাস্তির আওতায় আনতে হবে। এরা বিএনপি-জামায়াতের চেয়েও ভয়ঙ্কর। এরা শেখ হাসিনার সব অর্জন ধূলায় মিশিয়ে দিতে চায়।

১৪ দলের মুখপাত্র বলেন, দেশে নারী ও শিশু নির্যাতন বন্ধ হচ্ছে না। আমরা এর বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলতে চাই। আমি স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী ও আইনমন্ত্রীকে অনুরোধ জানাবো, নারী নির্যাতনকারীদের আপনারা দ্রুত বিচারের আওতায় আনুন এবং সর্বোচ্চ শাস্তি মৃত্যুদণ্ড দেওয়ার বিধান নিশ্চিত করুন।

বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সাধারণ সম্পাদক অরুণ সরকার রানার পরিচালনা আয়োজিত আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন সাবেক স্বরাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শামসুল হক টুকু, আওয়ামী লীগ নেতা শাহে আলম মুরাদ, বলরাম পোদ্দার, বঙ্গবন্ধু সাংস্কৃতিক জোটের সহ-সভাপতি শিল্পী রফিকুল আলম প্রমুখ।

বাংলাদেশ সময়: ১৪৩০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ২৯, ২০২০
ইএআর/জেডএস

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: আওয়ামী লীগ
প্রকৌশলী দেলোয়ারের হত্যাকারীদের বিচার চায় টিআইবি
ভোলায় সড়ক দুর্ঘটনায় নিহত ১, আহত ৩
বরগুনায় প্রকাশ্যে পিটিয়ে কিশোর হত্যা
'শহরতলী চুপ' ও 'মেঘ বালিকা' নিয়ে ঈদে সমরজিৎ
বাগেরহাটে সড়ক দুর্ঘটনায় শিশুর মৃত্যু


শিক্ষাবিদ নিলুফার মঞ্জুরের মৃত্যুতে প্রধানমন্ত্রীর শোক
আরও শান্ত ঢাকা
রিটার্ন দাখিলের সময় বাড়লো 
চট্টগ্রামে মেম্বার হত্যার মামলায় চেয়ারম্যান গ্রেফতার
৩১ দেশে ভ্রমণ নিষেধাজ্ঞা তুলে নিচ্ছে জার্মানি সরকার