স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি মোল্লা কাওসারকে অব্যাহতি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

মোল্লা মোহাম্মদ আবু কাওসার

walton

ঢাকা: ক্যাসিনোকাণ্ডে নাম আসায় আওয়ামী লীগের সহযোগী সংগঠন স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি অ্যাডভোকেট মোল্লা মোহাম্মদ আবু কাওসারকে সংগঠন থেকে অব্যাহতি দেওয়া হয়েছে। সাংগঠনিক প্রধান, আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার নির্দেশে তাকে অব্যাহতি দিয়ে তা অবহিতও করা হয়েছে।

বুধবার (২৩ অক্টোবর) দুপুরে রাজধানীর ধানমন্ডির হোয়াইট হলে আওয়ামী লীগ ঢাকা মহানগর উত্তরের বিশেষ বর্ধিত সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা জানান দলের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা নিজ দলের মধ্য থেকে শুদ্ধি অভিযান শুরু করেছেন। দলের মধ্যে দুর্নীতি, সন্ত্রাস, চাঁদাবাজি মাদক ও টেন্ডারবাজি সঙ্গে জড়িত কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না। 

‘১৯৭৫-পরবর্তী সময়ে নিজের দলেই শুদ্ধি অভিযান পরিচালনা করেছেন একমাত্র প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। শুদ্ধি অভিযানে প্রভাবশালী কেউ যদি জড়িত থাকে, তাহলে তাদেরও বিচারের আওতায় আনা হবে।’

আওয়ামী লীগ নেতাদের উদ্দেশ্য করে মন্ত্রী বলেন, নিজেদের পকেট ভারী করার জন্য দলে কোনো বিতর্কিত ব্যক্তিকে ঢোকাবেন না। দুষ্ট গরুর চেয়ে শূন্য গোয়াল ভালো। এসব বিতর্কিত ব্যক্তিই দলের জন্য ক্ষতির কারণ হয়ে দাঁড়ায়। এরইমধ্যে যদি কোনো বিতর্কিত ব্যক্তি দলে স্থান পেয়ে থাকে, তাহলে আপনারা তাদের বের করে দিন। আওয়ামী লীগের লোকের কোনো অভাব নেই। 

প্রধানমন্ত্রীর জনপ্রিয়তা তুলে ধরে কাদের বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ’৭৫-পরবর্তী সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় রাষ্ট্রনায়ক। শুদ্ধি অভিযানের মাধ্যমে দেশের সাধারণ মানুষের কাছেও তার জনপ্রিয়তা অনেক বেড়েছে। আজকের শেখ হাসিনার উন্নয়নের ফলে বিরোধীদল আন্দোলনের ইস্যু খুঁজে পাচ্ছে না। বক্তব্য রাখছেন ওবায়দুল কাদের। ছবি: জিএম মুজিবুরবিরোধী দলের আন্দোলন-সংগ্রাম প্রসঙ্গে তিনি বলেন, আজকে (জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট নেতা) ড. কামাল হোসেন নাকি (বিএনপি প্রধান) খালেদা জিয়ার সঙ্গে দেখা করতে পারলেই চাঙ্গা হয়ে যাবে। যারা খালেদা জিয়া কারাগারে থাকাকালীন মুক্তির জন্য পাঁচ হাজার লোকের একটি জমায়েত করতে পারেনি, তারা তার সঙ্গে দেখা করলে কীভাবে চাঙ্গা হয়ে যাবে, এটা বোধগম্য নয়। 

বিএনপি প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, আজকে বিএনপির কাছে কোনো ইস্যু নেই, তাই তারা আবরার ফাহাদ হত্যাকাণ্ডকে ইস্যু করে আন্দোলন করতে চাইছে। এর আগেও তারা কোটা সংস্কার আন্দোলন, নিরাপদ সড়ক আন্দোলনের ওপর ভর করে আন্দোলন করতে চেয়েছিল, কিন্তু তারা সফল হয়নি। বর্তমানে ভোলার বোরহানউদ্দিনের ঘটনায়ও তারা ঘোলা পানিতে মাছ শিকারের চেষ্টা করেছে। তারা ষড়যন্ত্রের পথ বেছে নিয়েছে, তবে দেশের জনগণ তাদের কোনো আন্দোলনে সাড়া দেয়নি। 

মন্ত্রী বলেন, জাতীয় সম্মেলনের আগে মেয়াদোত্তীর্ণ জেলা, থানা, উপজেলা ইউনিয়নের কমিটিগুলোর সম্মেলন করা হচ্ছে। 

আওয়ামী লীগের ঢাকা মহানগর উত্তরের সিনিয়র সহ-সভাপতি বজলুর রহমান সভাপতিত্বে আরও বক্তব্য রাখেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল, উত্তরের সাধারণ সম্পাদক সংসদ সদস্য সাদেক খান, আসলাম খান, ইলিয়াস উদ্দিন মোল্লা প্রমুখ।

আওয়ামী লীগের ঢাকা মহানগর উত্তর শাখার সম্মেলন শেরে বাংলানগরে বাণিজ্যমেলার মাঠে অনুষ্ঠিত হবে, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা এই স্থান ঠিক করে দিয়েছেন বলে সভায় জানানো হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১২১৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৩, ২০১৯
আরকেআর/এইচএ/

Nagad
সেদিন কেঁদেছিল বাংলাদেশ
শেখ হাসিনার কারাবন্দি দিবস বৃহস্পতিবার
নিল আর্মস্ট্রংয়ের চাঁদে যাত্রা
শাহজাহান সিরাজের দাফন সম্পন্ন
ডিএসসিসিতে সন্ধ্যা ৬টা থেকে বর্জ্য সংগ্রহ শুরু


কামরাঙ্গীরচরে সিনিয়র-জুনিয়র মারামারি, ছুরিকাঘাতে যুবক খুন
আগোরা স্মাইল হিরো খুলনার হাবিবুর রহমান
দেবহাটা থানায় সাহেদ করিমের বিরুদ্ধে অস্ত্র মামলা
প্রথমবারের মতো পালিত বিশ্ব যুব দক্ষতা দিবস
আড়াইহাজারে মাদক কারবারি আটক