কঠোর নিরাপত্তায় চলছে গাইবান্ধা-৩ আসনে ভোটগ্রহণ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ভাতগ্রাম স্কুল অ্যান্ড কলেজ ভোটকেন্দ্রে ভোট প্রদান করেন নৌকা প্রতীকের প্রার্থী ডা. মো. ইউনুস আলী সরকার

walton

গাইবান্ধা: আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর কঠোর নিরাপত্তা বেষ্টনীর মধ্য দিয়ে স্থগিত গাইবান্ধা-৩ (সাদুল্যাপুর-পলাশবাড়ী) আসনে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। মোট চার লাখ ১১ হাজার ৮৫৪ ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন।

রোববার (২৭ জানুয়ারি) সকাল ৮টা থেকে সাদুল্যাপুর ও পলাশবাড়ী দুই উপজেলায় ১৩২টি ভোটকেন্দ্রে ভোটগ্রহণ শুরু হয়। বিরতিহীনভাবে চলবে বিকেল ৪টা পর্যন্ত। 

ভোটগ্রহণের শুরু থেকে সকাল ১০টা পর্যন্ত কেন্দ্রগুলোতে লাইনে দাঁড়িয়ে নারী-পুরুষরা তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করছেন। তবে ভোটার উপস্থিতি একেবারের কম দেখা গেছে।

সকাল পৌনে ৯টার দিকে সাদুল্যাপুর মডেল বহুমুখি সরকারি উচ্চ বিদ্যালয় কেন্দ্রে গিয়ে দেখা যায়, ভোটগ্রহণে ছয়টি বুথ করা হয়েছে। সেখানে ভোট প্রদান করেন ১৭ জন নারী-পুরুষ।

অপরদিকে তরফবাজিত দাখিল মাদ্রাসা ভোটকেন্দ্রেও ভোটার উপস্থিতি তেমন চোখে পড়েনি। চারটি বুথে সকাল ৯টা পর্যন্ত ভোট পড়েছে ১১টি। 

তবে কেন্দ্রের দায়িত্বে থাকা সহকারী প্রিজাইটিং কর্মকর্তা রেহানা বেগম বাংলানিউজকে বলেন, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ শুরু হয়েছে। এখন ভোটারের উপস্থিতি কম হলেও বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে ভোটারদের উপস্থিতিও বাড়তে পারে বলে আশা করেন তিনি।

এদিকে সকাল সাড়ে  ৮টায় নিজ এলাকার ভাতগ্রাম স্কুল অ্যান্ড কলেজ ভোটকেন্দ্রে ভোট প্রদান করেন নৌকা প্রতীকের আওয়ামী লীগের প্রার্থী বর্তমান সংসদ সদস্য ডা. মো. ইউনুস আলী সরকার। এসময় তিনি সাংবাদিকদের বলেন, আওয়ামী লীগ গণতন্ত্রে বিশ্বাসী একটি সংগঠন। শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ চলছে। নৌকার বিজয় নিশ্চিত। বিপুল ভোটেই নৌকার জয় হবে।

অপরদিকে সকাল সাড়ে ৯টায় জাসদের প্রার্থী মশাল প্রতীকে ভোট দেন ফরিদপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে। এসময় তিনি বলেন, সুষ্ঠু পরিবেশে ভোট সম্পন্ন হলে মশালের জয় হবে। সাধারণ মানুষ পরিবর্তনের লক্ষে মশালে ভোট দিয়ে তাকে নির্বাচিত করবেন।

এ আসনে মহাজোটের তিন প্রার্থীসহ পাঁচজন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। দুই উপজেলায় মোট চার লাখ ১১ হাজার ৮৫৪ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করবেন। সুষ্ঠু ও অবাধ নির্বাচন অনুষ্ঠানে দুই উপজেলা জুড়েই কঠোর নিরাপত্তা রয়েছে। এছাড়া মাঠে বিজিবি, র‌্যাব, পুলিশ ও নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেটদের টহলে দেখা গেছে। ভোটকেন্দ্রকে গুরুত্বপূর্ণ হিসেবে চিহ্নিত করে বাড়তি নিরাপত্তা ব্যবস্থা নেওয়া হয়েছে।

গাইবান্ধা জেলা নির্বাচন অফিসার ও সহকারী রিটার্নিং কর্মকর্তা মাহাবুবুর রহমান বাংলানিউজকে বলেন, সুষ্ঠুভাবেই ভোটগ্রহণ চলছে। কোথাও কোনো অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

বাংলাদেশ সময়: ১১২৫ ঘণ্টা, জানুয়ারি ২৭, ২০১৯
জিপি

মেয়ের কাছে যৌতুক চেয়ে উল্টো যৌতুক দিতে হলো ছেলেকে
করোনা: ফরজ নামাজের পরেই বন্ধ মসজিদের দরজা
চমেক হাসপাতালে পিপিই দিলো সানশাইন চ্যারিটি
চট্টগ্রামে আরও ১০৪ জনের করোনা পরীক্ষা, আক্রান্ত নেই
করোনা: বাংলাদেশে শুধু বয়স্ক নয়, ঝুঁকিতে সব বয়সীরাই


পুলিশ প্রধান হিসেবে আমি অত্যন্ত গর্বিত ও আনন্দিত: আইজিপি
জাতীয় অধ্যাপক সুফিয়া আহমেদের ইন্তেকাল
কোয়ারেন্টিনে থাকা ব্যক্তিকে অ্যাপে নজরদারি করবে পুলিশ
মসজিদে মুসল্লি নিয়ন্ত্রণে ভ্রাম্যমাণ আদালতের নজরদারি
করোনার মধ্যে বিয়ে: সেই সরকারি কর্মকর্তা চাকরি থেকে বরখাস্ত