php glass

বিএনপির জুটলো মোটে পাঁচ

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

...

walton

ঢাকা: একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ২৮৮টি আসন নিয়ে নিরঙ্কুশ সংখ্যাগরিষ্ঠতা অর্জন করেছে আওয়ামী লীগ নেতৃত্বাধীন মহাজোট। আওয়ামী লীগ দলগতভাবে পেয়েছে ২৫৯টি আসন। অন্যদিকে বিএনপি নিজের ঘরে তুলতে পেরেছে মাত্র ৫টি আসন।

বিএনপির দলগত ৫ আসনসহ ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্ট পেয়েছে মোটে সাতটি আসন।

ধানের শীষকে জয় এনে দেওয়া বিএনপির পাঁচ প্রার্থী হলেন- মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর (বগুড়া-৬), মোশাররফ হোসেন (বগুড়া-৪), আমিনুল ইসলাম (চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২) ও হারুনুর রশীদ (চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩) এবং জাহিদুর রহমান (ঠাকুরগাঁও-৩)। 

তবে মৌলভীবাজার-২ (কুলাউড়া) আসন থেকে বিএনপির ধানের শীষ মার্কা নিয়ে নির্বাচন করে জয় পেয়েছেন ঐক্যফ্রন্টের শরিক দল গণফোরামের সুলতান মোহাম্মদ মনসুর।

বগুড়া-৬ (সদর) আসনে বিপুল ভোটের ব্যবধানে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হন বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। মির্জা ফখরুল পেয়েছেন ২ লাখ ৭ হাজার ২৭ ভোট। প্রায় দেড় লাখ ভোটে পিছিয়ে থাকা তার নিকটতম প্রার্থী মহাজোট সমর্থিত জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক নূরুল ইসলাম ওমর লাঙল প্রতীক নিয়ে পেয়েছেন ৪০ হাজার ২৬২ ভোট।

বগুড়া-৬ ছাড়াও মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর নিজ আসন ঠাকুরগাঁও-১ আসনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন। তবে সেখানে মহাজোট প্রার্থী রমেশ চন্দ্র সেনের কাছে পরাজিত হন তিনি।

বগুড়া-৪ (নন্দীগ্রাম-কাহালু) আসনে বিজয়ী হন ধানের শীষের আরেক প্রার্থী মোশারফ হোসেন। ১ লাখ ৭৬ হাজার ৭২২ ভোট পান তিনি। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী এ কে এম রেজাউল করিম তানসেন পেয়েছেন ৮৪ হাজার ৬৭৯ ভোট।

বগুড়ার মতো চাপাইনবাবগঞ্জের তিনটির মধ্যে দুটি আসনে জয় পেয়েছে বিএনপি। চাঁপাইনবাবগঞ্জ-২ (ভোলাহাট, নাচোল ও গোমস্তাপুর) আসনে আমিনুল ইসলাম ১ লাখ ৭৫ হাজার ৪৬৬ ভোট পেয়ে জয়লাভ করেন। অন্যদিকে তার নিকটতম আওয়ামী লীগ মনোনীত নৌকার প্রার্থী জিয়াউর রহমান পান ১ লাখ ৩৯ হাজার ৯৫২ ভোট।

এছাড়াও চাঁপাইনবাবগঞ্জ-৩ (সদর) আসনে বিএনপিপ্রার্থী হারুনুর রশিদ ১ লাখ ৩৩ হাজার ৬৬১ ভোট পেয়ে আওয়ামী লীগ প্রার্থী আবদুল ওদুদকে পরাজিত করেন। নৌকা প্রার্থী পান ৮৫ হাজার ৯৩৮ ভোট।

মির্জা ফখরুল না পারলেও ঠাকুরগাঁও থেকে বিজয় নিয়ে এসেছেন ধানের শীষ মার্কায় বিএনপি প্রার্থী জাহিদুর রহমান। ঠাকুরগাঁও-৩ আসনে ৮৮ হাজার ৫০৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন জাহিদুর রহমান। মোটর গাড়ি মার্কা নিয়ে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করা ইমদাদুল প্রায় চার হাজার ভোটে হেরে যান জাহিদুরের কাছে। ইমদাদুল হক পেয়েছেন ৮৪ হাজার ১০৯ ভোট। মহাজোটের হয়ে নৌকা মার্কা না পাওয়ায় এই আসনে স্বত্রন্ত্রপ্রার্থী হিসেবে নির্বাচন করছিলেন ইমদাদুল।

অল্পসংখ্যক আসনে জয়ী হলেও ভোটগ্রহণের দিন রাতে নির্বাচন প্রত্যাখ্যান করে বিএনপি ও ঐক্যফ্রন্ট পুনঃনির্বাচনের দাবি জানিয়েছে। তাই শেষ পর্যন্ত একাদশ জাতীয় সংসদে বিএনপিসমর্থিত প্রার্থীদের যোগ দেওয়ার সম্ভাবনা নেই বললেই চলে।

বাংলাদেশ সময়: ০৭০১ ডিসেম্বর ৩১, ২০১৮
এসএইচএস/এমজেএফ

ভারত সফরে যাচ্ছেন না স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীও
খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে বিএনপির বিক্ষোভ রোববার
শাহ আমানতে ২৭১ কার্টন সিগারেট উদ্ধার
ভাসানীর জন্মদিন পালন নিয়ে ডা. জাফরুল্লার উষ্মা
কেরানীগঞ্জে অগ্নিকাণ্ড: আর্থিক সহায়তার ঘোষণা


জ্বলছে আসাম, বিজেপি নেতাদের বাড়িঘরে হামলা
মুশফিকদের সামনে ১৪৫ রানের টার্গেট দিল ইমরুল-নাসিররা 
খালেদা জিয়ার মুক্তির দাবিতে যুবদলের বিক্ষোভ শনিবার
সিলেটে শিশু খাদ্য বিক্রি করা ৪ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা
লন্ডন-ম্যানচেষ্টার রুটেই চলবে ‘সোনার তরী’ ও ‘অচিন পাখি’