php glass

জনগণ রুখে দাঁড়ালে পালানোর পথ পাবেন না: আসম রব

তামিম মজিদ, স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

আ স ম আবদুর রব (ফাইল ফটো)

walton

ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী প্রচারণার বহর থেকে: বিরোধীকর্মীদের ওপর ‘হামলা-মামলা’ বন্ধ করতে সরকারের প্রতি আহ্বান জানিয়ে জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের ও জেএসডি সভাপতি আ স ম আবদুর রব বলেছেন, জনগণ যদি রুখে দাঁড়ায়, তাহলে পালানোর পথ পাবেন না।

আসন্ন নির্বাচনে গাজীপুর-২ আসনে ঐক্যফ্রন্ট মনোনীত প্রার্থী সালাহ উদ্দিন সরকারের সমর্থনে শনিবার (১৫ ডিসেম্বর) বিকেলে আয়োজিত এক জনসভায় তিনি এ কথা বলেন। টঙ্গীতে সালাহ উদ্দিন সরকারের বাড়ির প্রাঙ্গণে এই জনসভা অনুষ্ঠিত হয়। 

আওয়ামী লীগ সভাপতি ও প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে উদ্দেশ্য করে আ স ম রব বলেন, শেখ হাসিনা ভয় পেয়েছেন, জাতীয় ঐক্যফ্রন্টকে। নির্বাচন থেকে কিভাবে পালিয়ে যাওয়া যায় সেই পথ খুঁজছেন! আপনি যদি চলে যেতে চান, তাও দেবো, আমরা বিজয়ী হলে কাউকে কোনো নির্যাতন করবো না। 

ঐক্যফ্রন্টের নেতাকর্মীদের গ্রেফতারের অভিযোগ তুলে জোটের এ নেতা বলেন, যদি হামলা ও মামলা বন্ধ না করেন, জনগণ যদি রুখে দাঁড়ায়, তাহলে পালানোর পথ খুঁজে পাবেন না। সেই অবস্থা সৃষ্টির সব দায়-দায়িত্ব শেখ হাসিনাকে নিতে হবে। 

তিনি ঐক্যফ্রন্টের নির্বাচনী প্রতীক সম্পর্কে বলেন, ধানের শীষ শুধু বিএনপির প্রতীক নয়, এটা দেশের ১৮ কোটি মানুষের প্রতীক। 

আ স ম রব বলেন, বঙ্গবন্ধু কবরের মধ্যে চিৎকার করছেন এই বলে যে- যারা আমাকে পাকিস্তানে কারাগারে নিয়ে গেছে, তাদের হাতে নৌকা তুলে দিয়েছো, মাগো তুমি এ কী করেছো! যারা বঙ্গবন্ধুকে হত্যার পর উল্লাস করেছে, শেখ হাসিনা তাদের হাতে নৌকা তুলে দিয়েছেন। 

ঐক্যফ্রন্টের এ নেতা বলেন, তারা বলে আমরা নাকি ঋণখেলাপীদের মনোনয়ন দিয়েছি। আমি বলি, তারাতো ব্যাংক ডাকাতদের মনোনয়ন দিয়েছে, শেয়ারবাজার লুটপাটকারীদের মনোনয়ন দিয়েছে। 

নির্বাচনে কারচুপির চক্রান্ত হচ্ছে জানিয়ে তিনি বলেন, আমাদের কাছে তথ্য আছে, তেজগাঁওয়ে বিজি প্রেসে ডাবল ব্যালট পেপার ছাপানো হচ্ছে। প্রেসের ভাইদের বলবো, আপনারা এই অন্যায় কাজ থেকে বিরত থাকেন। এজন্য আপনাদের চাকরি চলে গেলে ঐক্যফ্রন্ট ক্ষমতায় এলে চাকরি ফিরিয়ে দেবো। 

শেখ হাসিনা মুক্তিযুদ্ধ করেননি উল্লেখ করে আ স ম রব বলেন, আমরা মৃত্যুকে ভয় পাই না। আমরা কয়েকবার মরে গিয়েছি। আর শেখ হাসিনা, আপনি মুক্তিযুদ্ধ করেননি।

গাজীপুর মহানগর বিএনপির সভাপতি হাসান উদ্দিন সরকারের সভাপতিত্বে জনসভায় ঐক্যফ্রন্ট নেতাদের মধ্যে আরও বক্তব্য রাখেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান, ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমান, ডা. এজেডএম জাহিদ হোসেন, গণস্বাস্থ্য কেন্দ্রের ট্রাস্টি ডা. জাফরুল্লাহ চৌধুরী ও নাগরিক ঐক্যের আহবায়ক মাহমুদুর রহমান মান্না প্রমুখ। 

দুপুরে ঢাকার উত্তরা থেকে ময়মনসিংহ অভিমুখে যাত্রা করেছে ঐক্যফ্রন্ট। এই যাত্রাপথে সাতটি স্থানে জনসভা করবেন ফ্রন্টের নেতারা। এরই অংশ হিসেবে টঙ্গীতে জনসভাটির আয়োজন করা হলো।

বাংলাদেশ সময়: ১৬১৬ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ১৫, ২০১৮
টিএম/এইচএ/

** ময়মনসিংহ অভিমুখে যাত্রা করলো ঐক্যফ্রন্ট

মেহেরপুরে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় বৃদ্ধের মৃত্যু
বিদেশি পিস্তলসহ কিশোর গ্যাংয়ের দুই সদস্য আটক
রাত ২টা থেকে ঢাকা-আরিচা মহাসড়কে যানচলাচল বন্ধ
টটেনহামের রোমাঞ্চকর জয়
রক্তক্ষয়ী যুদ্ধে বাংলাদেশের জন্ম


দম ফেলার ফুসরত নেই সাভারের ফুল বিক্রেতাদের
১৬ ডিসেম্বর বাঙালির ইতিহাসে সর্বোচ্চ অর্জনের দিন
জাপার ভাইস চেয়ারম্যান নিগার সুলতানাকে অবাঞ্ছিত ঘোষণা
ফ্যান কারখানায় নিহত প্রত্যেকের পরিবার পাচ্ছে ৫০ হাজার টাকা
ইবি শিক্ষক সমিতির সভাপতি আখতার, সম্পাদক মোস্তাফিজ