‘কিছুই জানেন না’ বিএনপি নেতারা

মহসিন হোসেন, স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

লোগো

ঢাকা: বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের জাতিসংঘ মিশন আর যুক্তরাষ্ট্রে দলটির লবিস্ট নিয়োগের খবর নিয়ে মুখ খুলছেন না দলটির নেতারা। এ নিয়ে দলের বিভিন্ন পর্যায়ের নেতাদের সঙ্গে কথা বললেও তারা ‘কিছুই জানেন না’ বলে জানিয়েছেন।

গত মঙ্গলবার (১১ সেপ্টেম্বর) দিনগত রাতে নিউয়র্কের উদ্দেশে ঢাকা ছেড়ে যান মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। তখন বলা হয়, ‘জাতিসংঘ মহাসচিব অ্যান্তোনিও গুতিয়েরেসের আমন্ত্রণে’ জাতিসংঘ কার্যালয়ে গেছেন তিনি। কিন্তু বিষয়টি অত্যন্ত গোপন রাখেন ফখরুল। গণমাধ্যমতো দূরের কথা, দলের দফতরও এ বিষয়ে ‘বেখবর’ বলে দাবি করা হয়। 

দলের যেকোনো কর্মসূচি দফতর থেকে ঘোষিত হলেও মির্জা ফখরুলের জাতিসংঘ মহাসচিবের সঙ্গে দেখা বা বৈঠকের বিষয়ে কিছু ‘জানেন না’ বলে জানান দফতরের দায়িত্বপ্রাপ্ত সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভীও।

দলীয়ভাবে কিছু না জানালেও পরদিন বুধবার (১২ সেপ্টেম্বর) মোটামুটি সব গণমাধ্যমে ফলাও করে মির্জা ফখরুলের নিউইয়র্ক সফরের বিষয়টি প্রচার করা হয়। শুধু সফরই নয়, জাতিসংঘ মহাসচিবের সঙ্গে ‘বৈঠকের’ খবরও প্রচার করা হয়। যদিও দলের কোনো সূত্র বিষয়টি জানায়নি। পাশাপাশি এও জানানো হয়, মির্জা ফখরুল ‘জাতিসংঘ মহাসচিবের আমন্ত্রণেই’ সেখানে গিয়েছেন।

পরদিন বৃহস্পতিবার (১৩ সেপ্টেম্বর) জানা যায়, মির্জা ফখরুল জাতিসংঘ মহাসচিবের সাক্ষাৎ পাননি। তবে ‘জাতিসংঘ মহাসচিবের আমন্ত্রণে’ যে মির্জা ফখরুল সেখানে গেছেন তা তার বক্তব্য থেকেই বোঝা যায়।

নিউইয়র্কে জাতিসংঘের সদর দফতরের সামনে বাংলাদেশি সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে মির্জা ফখরুল বলেন, জাতিসংঘ মহাসচিবের আমন্ত্রণে এখানে এসেছিলাম। জাতিসংঘের সহকারী মহাসচিব জেনকার সঙ্গে বৈঠক করেছি। ফেসবুক লাইভসহ বিভিন্ন মাধ্যমে বাংলাদেশের মানুষ তা দেখেছেন।

শুক্রবার (১৪ সেপ্টেম্বর) বিকেলে নতুন করে গণমাধ্যমে খবর বের হয়, মির্জা ফখরুলকে জাতিসংঘের মহাসচিব আমন্ত্রণই জানাননি। বরং বিএনপির অনুরোধেই সহকারী সেক্রেটারি মিরো স্লেভ জেনকা তাকে সময় দিয়েছেন। 

এ বিষয়ে জানতে চাইলে নামপ্রকাশে অনিচ্ছুক বিএনপি চেয়ারপারসন কার্যালয়ের এক কর্মকর্তা বাংলানিউজকে বলেন, মির্জা ফখরুলকে জাতিসংঘ মহাসচিব আমন্ত্রণ জানিয়েছেন কি-না তা তিনিই ভালো বলতে পারবেন। এ নিয়ে বিএনপির পক্ষ থেকে কিছু বলা হয়নি। তিনি না আসা পর্যন্ত বলাও হবে না।

এদিকে, বৃহস্পতিবার যুক্তরাষ্ট্রের একটি ম্যাগাজিনের বরাত দিয়ে বিভিন্ন গণমাধ্যমে প্রকাশ হয়, বিএনপি যুক্তরাষ্ট্র প্রশাসনে তদবির করার জন্য সেখানে দু’টি প্রতিষ্ঠানকে লবিস্ট হিসেবে নিয়োগ করেছে।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে দলের স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান শুক্রবার (১৪ সেপ্টেম্বর) সকালে বাংলানিউজকে বলেন, বিষয়টি সম্পর্কে আমার কিছু জানা নেই। বাংলানিউজকে একই কথা বলেন সিনিয়র যুগ্ম-মহাসচিব রুহুল কবির রিজভী ও সহ-আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা। তাদের সবার একই কথা, এ বিষয়ে কিছুই জানেন না তারা।

বাংলাদেশ সময়: ০২৪০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৪, ২০১৮
এমএইচ/ওএইচ/

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: বিএনপি
বাগেরহাটে দুই বাসের মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত ১
নাইক্ষ্যংছ‌ড়ি‌তে ‘বন্দুকযু‌দ্ধে’ ডাকাত নিহত
বেড়েছে সবজির দাম
সৌম্য-ইমরুল বিষয়ে মাশরাফির সঙ্গে আলোচনা হয়নি!
ডিএনসিসি’র প্যানেল মেয়র ওসমান গণির ইন্তেকাল
নৌকা ভাসতে ভাসতে বিজয়ের বন্দরে পৌঁছবে
ফেনীতে আ’লীগের জনসভা, টার্গেট লক্ষাধিক লোকের সমাগম
মেহেরপুরে বিএনপির ৪ নেতাকর্মীসহ আটক ১৪
কাঁঠালবাড়ী-শিমুলিয়া নৌপথে ফেরি চলাচল কিছুটা উন্নত
ঢাবি মনোবিজ্ঞান বিভাগের চেয়ারম্যানের আর্থিক অনিয়ম!