রাজশাহীর ১৬ ইউপিতে আ’লীগ ৭, বিএনপি ৪ ও অন্যান্যরা ৫

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

রাজশাহী জেলার তিন উপজেলার ১৬টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে বেসরকারি ফলাফল অনুযায়ী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা ৭টিতে, বিএনপি মনোনীত প্রার্থীরা ৪টিতে ও ৫টিতে অন্যান্য প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন।

রাজশাহী: রাজশাহী জেলার তিন উপজেলার ১৬টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে বেসরকারি ফলাফল অনুযায়ী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থীরা ৭টিতে, বিএনপি মনোনীত প্রার্থীরা ৪টিতে ও ৫টিতে অন্যান্য প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন।
 
শনিবার (০৪ জুন) শেষ ধাপে রাজশাহীর পবা উপজেলায় ৭টি, মোহনপুরে ৬টি ও বাঘায় তিনটি ইউনিয়নে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে।
 
রাজশাহী জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা আমিরুল ইসলাম রাতে এই তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

রাজশাহীর পবা উপজেলার ৭টি ইউনিয়নের মধ্যে হরিপুরে আওয়ামী লীগের বজলে রিজভী আল হাসান মুঞ্জিল ৮ হাজার ৩২২ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থী নজরুল ইসলাম পেয়েছেন ৭ হাজার ৬৩৯ ভোট ।

পবার পারিলা ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সাইফুল বারী ভুলু ৬ হাজার ৬৭৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের প্রার্থী ফাহিমা বেগম পেয়েছেন ৬ হাজার ১২১ ভোট।

দর্শনপাড়ায় আওয়ামী লীগ প্রার্থী কামরুল হাসান রাজ ৪ হাজার ৪৬৭ ভোটে পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি প্রার্থী রমজান আলী পেয়েছেন ৩ হাজার ২০৩ ভোট। হড়গ্রামে জামায়াতের অধ্যাপক আবুল কালাম আজাদ ৫ হাজার ৬৫৫ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন।

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী অ্যাডভোকেট আবু আসলাম (মোটরসাইকেল) পেয়েছেন ৩ হাজার ৯৪৬ ভোট, হুজুরিপাড়ায় স্বতন্ত্র প্রার্থী আকতার ফারুক ৪ হাজার ১৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী দেওয়ান মোহাম্মদ রেজাউল করিম পেয়েছেন ৩ হাজার ৮৪৯ ভোট। দামকুড়ায় বিএনপি প্রার্থী আব্দুস সালাম ৩ হাজার ৩৭১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত রফিকুল ইসলাম পেয়েছেন ৩ হাজার ২৭০ ভোট।

বড়গাছিতে বিএনপি প্রার্থী সোহেল রানা ১০ হাজার ৩৭৪ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ইমদাদুল হক ৮ হাজার ৬২৮ ভোটে পেয়েছেন।
 
রাজশাহীর মোহনপুর উপজেলার ৬টি ইউনিয়নের মধ্যে আওয়ামী লীগ ৩, বিএনপি ২ ও ১টিতে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থীরা বিজয়ী হয়েছেন।

ধুরইল ইউনিয়নে বিএনপি মনোনীত প্রার্থী বর্তমান চেয়ারম্যান কাজিম উদ্দিন সরকার (ধানের শীষ) ৭ হাজার ৯৬৮ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন।

তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী খন্দকার রবিউল ইসলাম (নৌকা) ৭ হাজার ৯০২ পেয়েছেন।

ঘাসিগ্রাম ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আজাহারুল ইসলাম বাবলু (নৌকা)  ৮ হাজার ২৪৭ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির মনোনীত প্রার্থী জাফর ইকবাল (ধানের শীষ) ৪ হাজার ১৬ ভোট পেয়েছেন।

রায়ঘাটি ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী খলিলুর রহমান (ঘোড়া) ২ হাজার ৬৫৩ ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী স্বতন্ত্র প্রার্থী আব্দুর গোফুর মৃধা (চশমা) ২ হাজার ৫৫ ভোট পেয়েছেন।

মৌগাছি ইউনিয়নে আওয়ামীলীগ মনোনীত প্রার্থী আল-আমিন বিশ্বাস (নৌকা) ৮ হাজার ৪৬২ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত প্রার্থী আবুল হোসেন খান (ধানের শীষ) ৭ হাজার ৫০৯ ভোট পেয়েছেন।

বাকশিমইল ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের মনোনীত প্রার্থী আল মোমিন শাহ গাবরু (নৌকা) ৬ হাজার ভোট পেয়ে বেসরকারি ভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপি মনোনীত প্রার্থী (ধানের শীষ) ৫ হাজার ৫৩৬ ভোট পেয়েছেন।

জাহানাবাদ ইউনিয়নে বিএনপির মনোনীত প্রার্থী এমাজ উদ্দিন খাঁন (ধানের শীষ) ৮ হাজার ১৭৮ ভোট পেয়ে বেসরকারিভাবে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামীলীগে মনোনীত প্রার্থী (নৌকা) ৬ হাজার ১১৯ ভোট পেয়েছেন।
 
রাজশাহীর বাঘা উপজেলার আড়ানী, বাউসা ও চকরাজাপুর এ তিনটি ইউনিয়নে নির্বাচনে আওয়ামী লীগের ২ জন ও বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) একজন চেয়ারম্যান প্রার্থী বিজয়ী হয়েছেন।

আড়ানী ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের প্রার্থী প্রভাষক রফিকুল ইসলাম রফিক (নৌকা) ৩ হাজার ৪৭৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী প্রভাষক নাসির উদ্দিন (ধানের শীষ) পেয়েছেন ৩ হাজার ১৮০ ভোট।
 
বাউসা ইউনিয়নের আওয়ামী লীগের প্রার্থী শফিকুর রহমান শফিক (নৌকা) ৯ হাজার ২৬৬ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী বিএনপির প্রার্থী আশরাফ আলী মলিন (ধানের শীষ) ভোট পেয়েছেন ৪ হাজার ৬০৫ ভোট।
 
এদিকে, চকরাজাপুর ইউনিয়নে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী আজিযুল আযম (আনারস) ৪ হাজার ৫১১ ভোট পেয়ে বিজয়ী হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামীলীগের প্রার্থী ডিএম বাবলু মনোয়ার (নৌকা) ১ হাজার ৩১৮ ভোট পেয়েছেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৫১ ঘণ্টা, জুন ০৫, ২০১৬
এসএস/আরআরএস/আরআই

Nagad
ঈদের ছুটিতে কর্মস্থলে থাকার নির্দেশ
মালদ্বীপে বিক্ষোভের সময় ৩৯ বাংলাদেশি আটক
করোনা পরিস্থিতি ‘খারাপ থেকে আরও খারাপের’ দিকে যেতে পারে: হু
বগুড়ায় ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন
মুজিব শতবর্ষ ঘিরে ১০০ নদীর তীরে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি নোঙর’র


চালককে মারধরের পর অটোরিকশা ছিনতাই
আর্যবিশপ মজেস কস্তার মৃত্যুতে নওফেলের শোক
স্বল্প পরিসরে বেচাকেনা হচ্ছে, স্বপ্ন দেখছেন ব্যবসায়ীরা
‘সংগঠন বিরোধী কর্মকাণ্ডে’ যুক্ত জায়েদ, প্রযোজক সমিতির শোকজ
মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখায় ৩ ফার্মেসিকে জরিমানা