php glass

মাদকমুক্ত মৌলভীবাজার গড়ে তুলবেন ফজলুর

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি: বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
মৌলভীবাজার পৌরসভার জনগণ আমাকে ভোট দিয়েছেন এলাকার উন্নয়ন করার জন্য, আমি দলমত নির্বিশেষে সবার সহযোগিতা নিয়ে বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের জন্য যথাযথভাবে কাজ করে যাব। তবে মাদকমুক্ত মৌলভীবাজার গড়ে তোলাই আমার প্রধান লক্ষ্য থাকবে।

মৌলভীবাজার: মৌলভীবাজার পৌরসভার জনগণ আমাকে ভোট দিয়েছেন এলাকার উন্নয়ন করার জন্য, আমি দলমত নির্বিশেষে সবার সহযোগিতা নিয়ে  বিভিন্ন সমস্যা সমাধানের জন্য যথাযথভাবে কাজ করে যাব। তবে মাদকমুক্ত মৌলভীবাজার গড়ে তোলাই আমার প্রধান লক্ষ্য থাকবে। 
 
শনিবার (২ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় বাংলানিউজের সঙ্গে একান্ত আলাপচারিতায় এমন প্রত্যয় ব্যক্ত করেন মৌলভীবাজার  পৌরসভার নবনির্বাচিত মেয়র ফজলুর রহমান। 
 
৩০ ডিসেম্বর মৌলভীবাজার পৌরসভা নির্বাচনে ফজলুর রহমান ১৩৬৩৮ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী ছিলেন বিএনপির অলিউর রহমান। তিনি পেয়েছেন ৭৫৫০ ভোট।
 
কতদিন ধরে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার পরিকল্পনা করছেন- এমন প্রশ্নের জবাবে মেয়র বলেন, নির্বাচনে অংশ নেওয়ার আগাম কোনো পরিকল্পনা ছিল না। হজ্জ থেকে আসার পর নির্বাচনে অংশ নেওয়ার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেই।
 
মেয়র ফজলুর রহমান বলেন, যেহেতু আওয়ামী লীগের সরকার ক্ষমতায়, সবার মতামত নিয়ে প্রথমে একটি মাস্টার প্ল্যান তৈরি করে পৌরসভার ভেতরের যেসব এলাকায় উন্নয়নের ছোঁয়া লাগেনি তা চিহ্নিত করে উন্নয়ন করার চেষ্টা করবো। শহরকে আধুনিক  একটি শহরে পরিণত করবো। শহরের ভেতরে শিশুদের জন্য একটি পার্ক স্থাপন করবো। 
 
মেয়র বলেন, কোন কেন্দ্রে ভোট পেলাম, কোথায় ভোট পেলাম না- তা বড় বিষয় নয়। সবাই আমাকে ভোট দিয়েছে বলে আজ আমি মেয়র হতে পেরেছি । 
 
ফজলুর রহমান ১৯৬৩ সালের ১ ডিসেম্বর মৌলভীবাজার শহরের বড়হাট এলাকায় একটি সম্ভ্রান্ত পরিবারে জন্মগ্রহণ করেন। তার বাবা আব্দুল হাই মুতালিব ছিলেন সদর উপজেলার ১১নং মোস্তফাপুর ইউনিয়নের দুই মেয়াদের ইউপি সদস্য। চার ভাই বোনের মধ্যে তিনি বড়। চাচা গিয়াস উদ্দিন একজন মুক্তিযোদ্ধা। মামা মৃত নুরুল ইসলাম মুকিত মুক্তিযোদ্ধা সংগঠক।  

মৌলভীবাজার সরকারি কলেজ থেকে এইচএসসি ও জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় থেকে বি এ পাস করেন।  মৌলভীবাজার সরকারি কলেজ থেকে ছাত্র সংসদের ক্রীড়া সম্পাদক নির্বাচিত হওয়ার পর  থেকে তার রাজনৈতিক জীবন শুরু হয়। পরে ১৯৯১ সালে তিনি ছাত্রলীগের সভাপতি, সিলেট বিভাগ আন্দোলনের সর্বদলীয় ছাত্র সংগ্রাম পরিষদের জেলা আহ্বায়ক, ২০০৫ সালে জেলা যুবলীগের সভাপতি ও কেন্দ্রীয় যুবলীগের সদস্য সর্বশেষ জেলা আওয়ামী লীগের সদস্য হিসেবে রয়েছেন। 

ফজলুর রহমান জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহকারী সম্পাদক ও ক্রিকেট কন্ট্রোল বোর্ডের একজন কাউন্সিলর। এছাড়া তিনি মৌলভীবাজার প্রেসক্লাব, রেডক্রিসেন্ট সোসাইটি, পাবলিক লাইব্রেরি ও শিল্পকলা একাডেমির আজীবন সদস্য। পেশায় ঠিকাদার।  গত দুই বছর জেলার শ্রেষ্ঠ আয়কর দাতা হিসেবে নির্বাচিত হয়েছেন।     
 
নির্বাচনী প্রতিশ্রুতি প্রসঙ্গে তিনি বলেন, শহরের পাশ দিয়ে বয়ে যাওয়া কোদালী ছড়া সংস্কার, রাস্তা-ঘাট সংস্কার, ড্রেনেজ ব্যবস্থার উন্নয়ন, সড়কে লাইট স্থাপনসহ অগ্রাধিকার ভিত্তিতে অবকাঠামোগত উন্নয়ন কাজ করবো।  
 
দলীয় প্রতীক নিয়ে প্রথম নির্বাচনে অংশ নেওয়ার বিষয়ে তিনি বলেন, প্রথমে দেশনেত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানাই নৌকা মার্কা নিয়ে নির্বাচন করতে পেরে।  এটি আমার জন্য অনেক বড় পাওয়া।  দলীয় প্রতীক নিয়ে নির্বাচনে অংশ নেওয়ার পাশাপাশি আমার ব্যক্তি ইমেজ থাকায় মৌলভীবাজার পৌরবাসী আমাকে বিপুল ভোট দিয়ে জয়যুক্ত করেছেন। 
 
আর নির্বাচন করার কোনো পরিকল্পনা এখন নেই। তবে জীবনের শেষদিন পর্যন্ত মানুষের পাশে থেকে তাদের জন্য কাজ করে যাবেন বলেও আশাবাদ ব্যক্ত করেন ফজলুর রহমান।

বাংলাদেশ সময়: ১৫৪৩ ঘণ্টা, জানুয়ারি ৫, ২০১৬   
এমজেড

আড়িয়াল বিলে বিমানবন্দরের সম্ভাবনা বহু দূরে চলে গেছে 
রাস্তায় আন্দোলন করে খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা যাবে না
বাংলাদেশে বিনিয়োগের পরিবেশ এখন ভালো: গণপূর্তমন্ত্রী
মুক্তি পেল দণ্ডিত ১২১ শিশু
বড় ভাইকে গলা কেটে হত্যা, সৎভাই আটক


উন্মোচিত হলো নুমাইর আতিফ চৌধুরীর ‘বাবু বাংলাদেশ’
চুরির দায়ে বেনাপোল কাস্টমস হাউজের ৫ সদস্য বরখাস্ত 
বিএনপি জাতীয়তাবাদী শক্তির প্লাটফর্ম: গয়েশ্বর
রাজধানীতে র‍্যাবের অভিযানে আটক ২
ভয়াল ১২ নভেম্বর