আ.লীগকে সতর্ক বার্তা ওয়ার্কার্স পার্টির

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতি, অব্যাহত বিদ্যুৎ সংকট, আইন-শৃঙ্খলার অবনতি, শেয়ারবাজারের কেলেঙ্কারিসহ জনজীবনে সৃষ্ট সংকট জনমনে হতাশা ও ক্ষোভের সঞ্চার করছে বলে মনে করছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলের অন্যতম শরিক বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি।

ঢাকা: দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতি, অব্যাহত বিদ্যুৎ সংকট, আইন-শৃঙ্খলার অবনতি, শেয়ারবাজারের কেলেঙ্কারিসহ জনজীবনে সৃষ্ট সংকট জনমনে হতাশা ও ক্ষোভের সঞ্চার করছে বলে মনে করছে ক্ষমতাসীন আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন ১৪ দলের অন্যতম শরিক বাংলাদেশের ওয়ার্কার্স পার্টি।

সম্প্রতি অনুষ্ঠিত পৌরসভা ও উপ-নির্বাচনে জনগণের এই হতাশা ও ক্ষোভের বর্হিপ্রকাশ ঘটেছে। এটাকে উপেক্ষা করা ভবিষ্যতের জন্য আত্মঘাতী হতে পারে বলে দলটির পক্ষ্য থেকে আওয়ামী লীগকে সতর্ক করে দেওয়া হয়েছে।

আওয়ামী লীগের সভাপতিমণ্ডলী সদস্য, ১৪ দলের সমন্বয়ক সংসদ উপনেতা সৈয়দা সাজেদা চৌধুরীর কাছে বৃহস্পতিবার এ সংক্রান্ত চিঠি পাঠিয়েছেন ওয়ার্কার্স পার্টির সভাপতি রাশেদ খান মেনন।

চিঠিতে সুনির্দিষ্ট করে বেশ কিছু সংকট তুলে  ধরে সেসব সমাধানে সমন্বিত উদ্যোগের প্রস্তাব করা হয়েছে।

চিঠিতে বলা হয়, ইতিমধ্যেই খাদ্যসহ দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতি, অব্যাহত বিদ্যুৎ সংকট, শেয়ার বাজারের কেলেঙ্কারি, আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি, জনমনে হতাশা ও বিক্ষোভ তৈরি করেছে। সংকট মোকাবেলায় ঐক্যবদ্ধ ও সমন্বিত উদ্যোগ দূরে থাক, ন্যুনতম আলোচনা পর্যন্ত নেই।

১৪ দল তথা মহাজোটের কার্যকর ঐক্যের অনুপস্থিতি এবং নানা সংকটে সৃষ্ট জনহতাশা ও বিক্ষোভের প্রতিফলন ঘটেছে সাম্প্রতিক পৌর ও উপনির্বাচনে। ভবিষ্যত নির্বাচনের স্বার্থে এ ফলাফল উপেক্ষা করা হবে আত্মঘাতী।

চিঠিতে আরো বলা হয়, গত দুই বছরে বিশাল প্রতিকুলতার মধ্যে কৃষি, শিক্ষা, জলবায়ু পরিবর্তন সংক্রান্ত নীতি ও অন্যান্য ক্ষেত্রে যে সকল সাফল্য অর্জিত হয়েছে তা ম্লান করে দিয়েছে দ্রব্যমূল্যসহ আরও কিছু সমস্যা। এসব সরকার ও মহাজোট সম্পর্কে জনমনে বিভ্রান্তি সৃষ্টি করার সুযোগ দিচ্ছে বিরোধী শক্তিকে।

এছাড়া ১৪ দলের আগের সভায় গৃহীত বেশ কিছু রাজনৈতিক ও সাংগঠনিক সিদ্ধান্ত বাস্তবায়ন না হওয়ায় চিঠিতে ক্ষোভ প্রকাশ করা হয়েছে। এতে বলা হয়েছে, ১৪ দলের আগের সভায় রাজনৈতিক ক্ষেত্রে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার ও ৭২ এর সংবিধানে প্রত্যাবর্তন বিষয়ে ১৪ দলসহ এ ক্ষেত্রে সংগ্রামরত বিভিন্ন শ্রেণী-পেশার সংগঠনের প্রতিনিধিদের নিয়ে জাতীয় কনভেশন করার সিদ্ধান্ত হয়েছিলো।
 
সাংগঠনিক ক্ষেত্রে সভায় গৃহীত সিদ্ধান্ত ছিলো জেলা পর্যায় পর্যন্ত ১৪ দলের ঐক্য কার্যকর করা। এ বিষয়ে জেলাগুলোকে সক্রিয় করতে ১৪ দলের শরিকদলগুলোর সাধারণ সম্পাদকদের যৌথ স্বাক্ষরে সার্কুলার দেওয়ার কথা হয়েছিলো। এর পর তৃণমুল পর্যায়ে ১৪ দলকে কার্যকর রূপ দেওয়ার বিষয়েও আলোচনা হয়। এসব ক্ষেত্রেও কোনো অগ্রগতি হয়নি।

এছাড়া রাষ্ট্রপরিচালনার সকল ক্ষেত্রে ১৪ দলের অংশগ্রহণকে নিশ্চিত করতে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে সরকারি কমিটিগুলোকে আওয়ামী লীগসহ ১৪ দলের অন্যান্য শরিকদের যুগোপোযুক্তভাবে সম্পৃক্ত করার বিষয়েও কোন বাস্তবায়ন হয়নি।  

সমস্যা সমাধানে ১৪ দল তথা মহাজোটের সঙ্গে আলোচনা ও জনমতকে সংগঠিত রাখতে কর্মসূচি নেওয়া জরুরি বলে ওয়ার্কার্স পার্টি মনে করছে। এছাড়া পৌরসভা ও উপনির্বাচনকে মূল্যায়ন করার বিষয়েও দৃষ্টি আকর্ষণ করা হয়েছে।

সেই সঙ্গে ১৪ দলের ঐক্য বহাল ও সুদৃঢ় রাখা আরো জরুরি বলে চিঠিতে উল্লেখ করা হয়। এসব বিষয়ে কার্যকর ব্যবস্থা গ্রহণের অনুরোধ জানানো হয় ওয়ার্কার্স পার্টির পক্ষ থেকে।

বাংলাদেশ সময়: ১৯৪০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৪, ২০১১

Nagad
সরকারিভাবে শহীদ শেখ কামালের জন্মদিন উদযাপনের সিদ্ধান্ত
ড. মুহম্মদ শহীদুল্লাহর জন্ম
এন্টিবডি কিট থেকে পাটকল ll মুহম্মদ জাফর ইকবাল
যাত্রাবাড়ীতে ১০ হাজার পিস ইয়াবাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক
ব্রহ্মপুত্র-যমুনা-সুরমা-কুশিয়ারার পানি দ্রুত বাড়ার শঙ্কা


ফেসবুকে বন্ধুত্বে প্রতারণা: ১৬ নাইজেরিয়ান কারাগারে
সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে আমির হোসেন আমুর শোক
সাহারা খাতুনের মৃত্যুতে তাপস-আতিকের শোক
সাহারার মৃত্যুতে বিরোধীদলীয় নেতা-জাপা চেয়ারম্যানের শোক
করোনায় রিজেন্ট হাসপাতাল মালিকের বাবার মৃত্যু