সোমবার সারা দেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে বিএনপি

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

আড়িয়ল বিলের ঘটনায় খালেদা জিয়াসহ সাধারণ মানুষের নামে দেওয়া মামলা প্রত্যাহার, বিমানবন্দর নির্মাণের সিদ্ধান্ত বাতিল, দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতি নিয়ন্ত্রণ ও শেয়ারবাজার লুটপাটকারীদের শাস্তির দাবিতে আগামি ৭ ফেব্রুয়ারি সোমবার সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে বিএনপি।

ঢাকা: আড়িয়ল বিলের ঘটনায় খালেদা জিয়াসহ সাধারণ মানুষের নামে দেওয়া মামলা প্রত্যাহার, বিমানবন্দর নির্মাণের সিদ্ধান্ত বাতিল, দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতি নিয়ন্ত্রণ ও শেয়ারবাজার লুটপাটকারীদের শাস্তির দাবিতে আগামি ৭ ফেব্রুয়ারি সোমবার সারাদেশে সকাল-সন্ধ্যা হরতাল ডেকেছে বিএনপি।

বুধবার বিকেলে রাজধানীর মুক্তাঙ্গনে আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশ থেকে বিএনপি মহাসচিব খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন এ কর্মসূচি ঘোষণা করেন।

বিএনপির ভাইস চেয়ারম্যান সেলিমা রহমানের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন- বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন, ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ, ড. আব্দুল  মঈন খান, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, মির্জা আব্বাস, গয়েশ্বর চন্দ্র রায়, নজরুল ইসলাম খান, ভাইস-চেয়ারম্যান আবদুল্লাহ আল নোমান, চেয়ারপার্সনের উপদেষ্টা ফজলুর রহমান পটল, শামসুজ্জামান দুদু, সিনিয়র যুগ্ম-মহাসিচব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর, যুগ্ম-মহাসচিব আমান উল্লাহ আমান, রুহুল কবির রিজভী, মিজানুর রহমান মিনু, সাংগঠনিক সম্পাদক ফজলুল হক মিলন, এম ইলিয়াস আলী, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক নাজিম উদ্দিন আলম, অর্থ সম্পাদক আবদুস সালাম, শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক খায়রুল কবির খোকন, সমাজকল্যাণ সম্পাদক আবুল খায়ের ভূঁইয়া এমপি, ছাত্র বিষয়ক সম্পাদক শহীদউদ্দিন চৌধুরী এ্যানী এমপি, যুবদল সভাপতি মোয়াজ্জেম হোসেন আলাল, স্বনির্ভর বিষয়ক সম্পাদক রুহুল কুদ্দুস তালুকদার দুলু, স্বেচ্ছাসেবক দল সভাপতি হাবিব উন নবী খান সোহেল, মহিলা দলের সাধারণ সম্পাদক শিরিন সুলতানা প্রমুখ।

খোন্দকার দেলোয়ার হোসেন বলেন, ‘আজকের প্রতিবাদ সমাবেশ ছিলো শেয়ারবাজার কেলেঙ্কারী, দ্রব্যমূল্যের উর্দ্ধগতি, আইন-শৃঙ্খলার অবনতি, উপনির্বাচনে ভোট কারচুপির অভিযোগে নির্বাচন কমিশনের পদত্যাগ এর দাবিতে। এরই মধ্যে মঙ্গলবার দেশনেত্রী খালেদা জিয়াসহ আড়িয়ল বিল রক্ষা আন্দোলনের ২১ হাজার নিরীহ মানুষের বিরুদ্ধে মিথ্যা বানোয়াট মামলা দিয়েছে সরকার। এর প্রতিবাদে আজ সারাদেশব্যাপি বিক্ষোভ কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। সারাদেশ থেকে খবর পাওয়া গেছে যে বিক্ষোভ কর্মসূচি সফলভাবে পালন করা হয়েছে।’

তিনি বলেন, ‘অবৈধ অসাংবিধানিক তত্ত্বাবধায়ক সরকারের নিয়োগ দেওয়া এই নির্বাচন কমিশনের অধীনে কখনো সুষ্ঠু নির্বাচন সম্ভব নয়। এই নির্বাচন কমিশন দায়িত্ব নেওয়ার পরই বিএনপিকে ভেঙ্গে টুকরো টুকরো করতে চেয়েছিলো। তারা খালেদা জিয়া মনোনীত মহাসচিবকে না মেনে আবদুল মান্নান ভূঁইয়াকে বিএনপি মহাসচিব বানাতে চেয়েছিলো। সেজন্যই আগেও বলেছি যে-এদের অধীনে নিরপেক্ষ নির্বাচন হবে না। তাদের পদত্যাগ দাবি করছি।’

খোন্দকার দেলোয়ার বলেন, ‘আওয়ামী লীগ নীল নকশার নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসেছিলো। আবারও নীল নকশার নির্বাচন করে পুনরায় ক্ষমতায় যাওয়ার উদ্দেশ্যেই এই নির্বাচন কমিশনকে রাখতে চায়।’

প্রধানমন্ত্রীকে উদ্দেশ্য করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, ‘আপনার আর কতো রক্ত চাই। রক্তের এই হোলি খেলা বন্ধ করুন। রক্তপাত ঘটিয়ে ক্ষমতায় টিকে থাকা যায় না। ইতিহাস থেকে সেই শিক্ষা গ্রহণ করুন। মানুষকে হত্যা ও নির্যাতন করে পিতার নামে বিমানবন্দর নির্মাণ করবেন তাতে আপনার পিতার আত্মা কি শান্তি পাবে?’

তিনি সরকারকে ভ্রান্ত পথ পরিহার করার আহবান জানিয়ে বলেন, ‘তা না হলে স্বৈরাচারের যেভাবে পতন হয়েছে আপনাদেরও সেইভাবে পতন হবে।’

ড. মোশাররফ ২১ হাজার নিরীহ মানুষের বিরুদ্ধে করা মামলার প্রতিবাদ জানিয়ে বলেন, ‘আপনি খালেদা জিয়ার বিরুদ্ধে মামলা করে প্রতিহিংসার রাজনীতি চরিতার্থ করছেন।’

তিনি বলেন, ‘শেয়ার বাজার লুটের ঘটনায় গঠিত তদন্ত কমিটির রিপোর্ট পর্যন্ত অপেক্ষা করতে চাই না। আপনারা জানেন কারা এর সঙ্গে জড়িত। তাদের অবিলম্বে শাস্তির ব্যবস্থা করুন।’

ব্যারিস্টার মওদুদ আহমদ বলেন, ‘বিমানবন্দর নির্মাণের মূল উদ্দেশ্য হলো পিতার নাম ও অর্থ বরাদ্দ করে তা লুটপাট করা।’

তিনি বলেন, আড়িয়ল বিলের ঘটনা একটি স্বতস্ফুর্ত অভ্যূত্থান যা এই সরকারের উপর মানুষ যে ক্ষুব্ধ তারই প্রতিফলন। কিন্তু দেশের কোথাও এই বিমানবন্দর  নির্মাণ করতে দেওয়া হবে না।’

ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া বলেন, ‘আড়িয়ল বিলে বিমানবন্দর করার নামে পুলিশ যে হয়রানি করছে, তাদের বাড়িতে বাড়িতে গিয়ে লুটপাট করছে সেসবের ক্ষতিপূরণ দিতে হবে।’

মির্জা আব্বাস বলেন,  ‘এই সরকার দেশের জন্য কিছু করতে না পারলেও বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের বিরুদ্ধে মিথ্যা মামলা দিয়ে রাজনৈতিক পরিবেশ কলুষিত করেছে।’

গয়েশ্বর চন্দ্র রায় বলেন, ‘আর মিথ্যা মামলা নয়। মামলা খেতে হলে ঘটনা ঘটিয়েই খেতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘শেয়ারবাজারের লুটপাটের ঘটনা প্রধানমন্ত্রীর লোকেরাই ঘটিয়েছে বলেই তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হচ্ছে না।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৫০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ৩, ২০১১

Nagad
খুমেক হাসপাতালে বিক্রি হচ্ছে করোনা নেগেটিভ সার্টিফিকেট!
প্রভাতী ইন্স্যুরেন্সের লভ্যাংশ ঘোষণা
নিউইয়র্কে পাঠাওয়ের সহ-প্রতিষ্ঠাতা ফাহিম খুন
ছোটপর্দায় আজকের খেলা
কথায় কথায় অনলাইনে খাবার অর্ডার করেন, নিরাপদ তো? 


শীর্ষ চারের লড়াইয়ে এগিয়ে গেল চেলসি
এন্ড্রু কিশোরের শেষকৃত্যানুষ্ঠান শুরু, চলছে প্রার্থনা
বার বার অবস্থান পরিবর্তন, দালালের সহায়তায় দেশত্যাগের চেষ্টা
স্বাস্থ্যবিধি মেনেই চলছে ব্যাংকের কার্যক্রম
করোনা: চট্টগ্রামে নতুন শনাক্ত ১৬৭