সরকারকে মামলার হুমকি খালেদার

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

সরকারকে মামলার হুমকি দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া। আড়িয়ল বিলের জনবিক্ষোভে সোমবার এসআই নিহত হওয়ার ঘটনায় মঙ্গলবার মুন্সীগঞ্জে তাকে প্রধান আসামি করে মামলা দায়েরের পর রাতেই তিনি এ  ঘোষণা দিলেন।

ঢাকা: সরকারকে মামলার হুমকি দিয়েছেন বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া।

আড়িয়ল বিলের জনবিক্ষোভে সোমবার এসআই নিহত হওয়ার ঘটনায় মঙ্গলবার মুন্সীগঞ্জে তাকে প্রধান আসামি করে মামলা দায়েরের পর রাতেই তিনি এ  ঘোষণা দিলেন।

মঙ্গলবার রাতে তার গুলশান কার্যালয়ে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম নেতাদের সঙ্গে বৈঠক করেন বিএনপি প্রধান। ওই বৈঠকে আসন্ন ঢাকা আইনজীবী সমিতি নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিত নীল প্যানেলের ২৫ প্রার্থী চূড়ান্ত করার পর সাংবাদিকদের মুখোমুখি হন খালেদা জিয়া।

তিনি বলেন, ‘সরকার মানুষকে ভাত-কাপড়-সার দিতে পারে না। দ্রব্যমূল্য কমাতে পারেনি। গ্যাস-বিদ্যুৎ দিতে পারে না। যখন তখন মানুষকে ধরে নিয়ে গুম ও হত্যা করে। এজন্য সরকারের নামে মামলা হওয়া উচিত। এখন মামলা না হলেও ভবিষ্যতে তাদের বিরুদ্ধে মামলা হবে। কাঠগড়ায় দাঁড়াতে হবে।’

এ সময় বিএনপি স্থায়ী কমিটির সদস্য ব্যারিস্টার জমির উদ্দিন সরকার, ব্যারিস্টার রফিকুল ইসলাম মিয়া, চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা ব্যারিস্টার আমিনুল হক, ব্যারিস্টার শাহজাহান ওমর, বিএনপি নেতা অ্যাডভোকেট জয়নাল আবেদীন, ঢাকা জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি অ্যাডভোকেট সানাউল্লাহ মিয়া প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সরকার দু’বছর কি করেছে প্রশ্ন তুলে তিনি বলেন, ‘ঘরে ঘরে চাকরি, দশ টাকায় চাল, বিনামূল্যে সার দেওয়ার কথা বলেও তারা দিতে পারেনি। বিদেশ থেকে হাজার হাজার মানুষ ফিরে আসছে।’   

খালেদা জিয়া বলেন, ‘দেশে যে এয়ারপোর্ট আছে তা কতোটুকু ব্যবহার হয় তা সরকারকে জানাতে হবে। সাধারণ মানুষকে উচ্ছেদ করে কিসের জন্য এয়ারপোর্ট বানাবে? এয়ারপোর্ট নির্মাণের মতো এসব খামখেয়ালিপনা বন্ধ করতে হবে। এসবের জন্য কথা বলেছি, বলবো। জনগণের বিপদের সময় পাশে ছিলাম। এখনো আছি। ভবিষ্যতেও থাকবো।’
 
সরকারকে উদ্দেশ্য করে খালেদা জিয়া বলেন, ‘জনগণের জন্য কিছু করতে না পারলে ক্ষমতা ছেড়ে দিন, পদত্যাগ করুন।’

আইনজীবীদের উদ্দেশে তিনি বলেন, ‘আপনারা জানেন দেশের আজ কি অবস্থা। এ সরকার গণতান্ত্রিক সরকার নয়। তারা এক নম্বর স্বৈরাচারী সরকার। দেশে আইনের শাসন নেই। মানবাধিকার নেই। সংবাদপত্রের স্বাধীনতা নেই। সরকার একতরফাভাবে স্বৈরাচারী শাসন কায়েম  করেছে। এ অবস্থায় আমরা বসে থাকতে পারি না।’

নির্বাচন কমিশনের পদত্যাগ দাবি  করে তিনি বলেন, ‘আমরা সেনাবাহিনী চেয়েছিলাম। কিন্তু নির্বাচন কমিশন সরকারে কাছে সেনাবাহিনী চাইলেও সরকার তা দেয়নি। তারা তাদের দায়িত্ব পালনে ব্যর্থ হয়েছে। এজন্য এই নির্বাচন কমিশনেরও পদত্যাগ দাবি করছি।’
 
বিএনপি প্রধান বলেন, ‘বিশ্বের বিভিন্ন দেশে আন্দোলন শুরু হয়েছে। বাংলাদেশেরও আন্দোলনের ইতিহাস আছে। আমরা স্বাধীনতার জন্য সংগ্রাম করেছি। ভাষার জন্য যুদ্ধ করেছি। আগামি দিনে দেশকে রক্ষা ও মানুষের অধিকার আদায়ের জন্য সকলে মিলে আন্দোলন সংগ্রাম করতে হবে। ’

আইনজীবী সমিতি নির্বাচনে বিএনপি সমর্থিতদের বিজয়ী করতে আইনজীবীদের প্রতি অনুরোধ জানান খালেদা জিয়া।  

বাংলাদেশ সময়: ২১৫০ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ১, ২০১১

Nagad
ঘরোয়া খেলাধুলা চালু করতে চান ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী রাসেল
আমদানি-রফতানি পণ্যের মান পরীক্ষার ল্যাবে চুরি
খুবির শিক্ষক শামীম আখতার আর নেই
জীবনের দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করলেন রাহী
ফুলছড়িতে বজ্রপাতে বাবা-ছেলের মৃত্যু


মিটফোর্ডে নকল হ্যান্ড স্যানিটাইজার-ওষুধের বিরুদ্ধে অভিযান
ভারতে বিনিয়োগের আহ্বান জানালেন মোদী
করোনা: নর্থ সাউথ ইউনিভার্সিটিতে ভার্চ্যুয়াল কনফারেন্স
বৃষ্টিপাত-পাহাড়ি ঢলে সুনামগঞ্জে ফের বন্যার আশঙ্কা
১৪ ঠিকাদারকে কালো তালিকাভুক্ত করলো স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়