এক মঞ্চে দেখা যাবে নোমান-খসরুকে

১০ বছর পর চট্টগ্রাম শ্রমিক দলের বিভাগীয় সম্মেলন আজ

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

দীর্ঘ ১০ বছর পর আজ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে চট্টগ্রাম বিভাগীয় শ্রমিক দলের সম্মেলন। আগামী ১২ মার্চ অনুষ্ঠেয় শ্রমিক দলের সম্মেলন সামনে রেখে কেন্দ্রের নির্দেশে এই সম্মেলন করা হচ্ছে।

চট্টগ্রাম : দীর্ঘ ১০ বছর পর আজ অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে চট্টগ্রাম বিভাগীয় শ্রমিক দলের সম্মেলন। আগামী ১২ মার্চ অনুষ্ঠেয় শ্রমিক দলের সম্মেলন সামনে রেখে কেন্দ্রের নির্দেশে এই সম্মেলন করা হচ্ছে।

সম্মেলনে চট্টগ্রামে বিএনপির বিবদমান গ্রুপগুলোকে এক মঞ্চে আনার উদ্যোগ নেওয়া হচ্ছে বলে জানিয়েছেন শ্রমিক দলের নেতারা। এর মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠন করা হবে।
 
চট্টগ্রামের লালদীঘি ময়দানে দীর্ঘ প্রতীক্ষিত এই সম্মেলন অনুষ্ঠিত হচ্ছে।

সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন কেন্দ্রীয় বিএনপির সহ-সভাপতি এবং শ্রমিক দলের সাবেক সভাপতি আব্দুল্লাহ আল নোমান।

সাবেক পররাষ্ট্রমন্ত্রী মোরশেদ খানের সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে। শ্রমিক দলের সাবেক সভাপতি এবং বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খানকে এই সম্মেলনে সংবর্ধনা দেওয়া হবে।
 
এছাড়া নোমান বিরোধী হিসেবে পরিচিত সাবেক বাণিজ্যমন্ত্রী এবং নগর বিএনপির সভাপতি আমীর খসরু মাহমুদ চৌধুরী বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন বলে জানান আয়োজকরা।
 
এ প্রসঙ্গে চট্টগ্রাম বিভাগীয় শ্রমিক দলের সভাপতি এবং কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি এম নাজিমুদ্দিন বাংলানিউজকে জানান, ‘চট্টগ্রামে শ্রমিক দলের সম্মেলনে কোনো গ্রুপিং থাকবে না। সব গ্রুপের নেতারা সম্মেলনে উপস্থিত থাকবেন বলে সম্মতি দিয়েছেন। তাদের জানিয়েই আমাদের দাওয়াত কার্ড ছাপা হয়েছে।’
 
নাজিমুদ্দিন আরও বলেন, ‘এই সম্মেলনের মাধ্যমে আমরা নগর বিএনপির নেতাদের এক মঞ্চে আনার উদ্যোগ নিয়েছি।’

উল্লেখ্য, চট্টগ্রামে বিএনপির রাজনীতি এখন নোমান এবং খসরু এই দুই ধারায় বিভক্ত। আগে সাবেক বিমান ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মীর মোহাম্মদ নাসিরুদ্দিন পৃথক একটি ধারার নেতৃত্ব দিলেও নগর বিএনপির কমিটি গঠনকে কেন্দ্র করে সম্প্রতি তিনি নোমানের সঙ্গে হাত মেলান।

চট্টগ্রামের মেয়র নির্বাচনের দিন সর্বশেষ আউটার স্টেডিয়ামের জিমনেসিয়ামের নির্বাচন কমিশনের নিয়ন্ত্রণ কক্ষে নোমান-খসরুকে এক সঙ্গে দেখা গেলেও এরপর আর দু’জনকে এক মঞ্চে দেখা যায়নি।  
এ প্রসঙ্গে বিএনপি’র কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি আব্দুল্লাহ আল নোমান বাংলানিউজকে বেেলন, ‘খসরু সাহেবের সঙ্গে আমার মুখ দেখাদেখি-বন্ধ এমন নয়। তার সঙ্গে সে রকম কোনো দ্বন্দ্বও নেই। বড় দলে কিছুটা মতবিরোধ থাকেই।’
 
শ্রমিক দলের সম্মেলনে এক হওয়া প্রসঙ্গে তিনি আরও বলেন, ‘সাংগঠনিকভাবে সবার দায়-দায়িত্ব থাকে। এর মধ্যে সে রকম কোনো সাংগঠনিক প্রোগ্রাম না হওয়ায় এক সঙ্গে দেখা যায়নি। এটা এক হওয়া বা না হওয়ার কোনো বিষয় নয়। শ্রমিক দলের সম্মেলনে সবাই আসবেন।’
 
নোমান আরও বলেন, ‘আমি কখনো বিএনপির কোনো কমিটি (ছাত্রদল, যুবদল, শ্রমিকদল) গঠন করে দেইনি। চট্টগ্রামের শ্রমিক দল আমারই হাতে গড়া। তাই হয়তো তারা কোনো সমস্যায় আমাকে ডাকে।’

নগর  বিএনপির কাউন্সিল নিয়ে খসরুর সঙ্গে বিরোধ সৃষ্টি হওয়া প্রসঙ্গে বলেন, ‘সেদিন আমি কোনো  মিছিল নিয়ে যাইনি। কিন্তু  মিডিয়ায় ভুল সংবাদ প্রকাশ হওয়ায় এ নিয়ে সমস্যা হয়েছিল।’

 দরজা বন্ধ করে কাউন্সিল করতে চাওয়ায় ঝামেলা হয়েছিল বলে তিনি জানান।
 
এদিকে নগর বিএনপির সভাপতি আমীর খসরু শ্রমিক দলের সম্মেলন উপস্থিত থাকবেন বলে বাংলানিউজকে জানালেও মিটিংয়ে থাকায় এ নিয়ে আর কোনো কথা বলা সম্ভব হয়নি।

শ্রমিক দলের সম্মেলনে ১৯টি জেলার আড়াই শ’ কাউন্সিলর উপস্থিত থাকার কথা রয়েছে। নতুন কমিটি গঠনের জন্য এরই মধ্যে বর্তমান চট্টগ্রাম বিভাগীয় সভাপতি নাজিমুদ্দিনকে আহবায়ক করে নয় সদস্যের বিষয় নির্ধারণী কমিটি (সাবজেক্ট কমিটি) গঠন করা হয়েছে। এই কমিটি একমত হলে সমঝোতার মাধ্যমে নতুন কমিটি গঠন করা হবে। না হয় কাউন্সিলররা ভোটের মাধ্যমে কমিটি গঠন করবেন বলে জানান নাজিমুদ্দিন। নতুন কমিটিতে তরুণদের প্রাধান্য থাকবে বলে তিনি জানান।

বাংলাদেশ সময় : ১০৫৪ ঘণ্টা, ফেব্রুয়ারি ০১, ২০১১

Nagad
মালদ্বীপে বিক্ষোভের সময় ৩৯ বাংলাদেশি আটক
করোনা পরিস্থিতি ‘খারাপ থেকে আরও খারাপের’ দিকে যেতে পারে: হু
বগুড়ায় ই-পাসপোর্ট কার্যক্রমের উদ্বোধন
মুজিব শতবর্ষ ঘিরে ১০০ নদীর তীরে বৃক্ষরোপণ কর্মসূচি নোঙর’র
চালককে মারধরের পর অটোরিকশা ছিনতাই


আর্যবিশপ মজেস কস্তার মৃত্যুতে নওফেলের শোক
স্বল্প পরিসরে বেচাকেনা হচ্ছে, স্বপ্ন দেখছেন ব্যবসায়ীরা
‘সংগঠন বিরোধী কর্মকাণ্ডে’ যুক্ত জায়েদ, প্রযোজক সমিতির শোকজ
মেয়াদোত্তীর্ণ ওষুধ রাখায় ৩ ফার্মেসিকে জরিমানা
পশুর হাটের ইজারাদারদের মেয়র নাছিরের কড়া নির্দেশনা