php glass

জিয়াদের জন্য মানবতা

1017 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
ছোট্ট শিশু জিয়াদ। বয়স মাত্র সাড়ে তিন। এই বয়সেই ও নাড়িয়ে দিয়েছে সবাইকে। জাগ্রত করেছে মানবতা। ওর জন্য কেঁদেছে মানুষ। কেঁদেছে সারা দেশ। প্রার্থনা করেছে বিপদ মুক্তির। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আমরা ওকে বাঁচাতে পারিনি।

ছোট্ট শিশু জিয়াদ। বয়স মাত্র সাড়ে তিন। এই বয়সেই ও নাড়িয়ে দিয়েছে সবাইকে। জাগ্রত করেছে মানবতা। ওর জন্য কেঁদেছে মানুষ। কেঁদেছে সারা দেশ। প্রার্থনা করেছে বিপদ মুক্তির। কিন্তু শেষ পর্যন্ত আমরা ওকে বাঁচাতে পারিনি। ওকে আমরা নিজ হাতেই পাঠিয়ে দিয়েছি ওপারের দেশে। না ফেরার দেশে চলে গেছে জিয়াদ। জিয়াদকে আর দেখবে না এই পৃথিবী।
 
এইটুকুন বয়সের একটা বাচ্চার খেলাধুলা নিয়ে পড়ে থাকারই কথা। সেটাই করছিল ও। কিন্তু এটাই যে তার মৃত্যুর কারণ হবে জানতো না জিয়াদ। জানতো না আমাদের প্রশাসন এতো অদক্ষ। এতো কর্মহীন। এতো নিচু। কিন্তু আমরা জানি এই প্রশাসন কতোটা নিমকহারাম। আমরা জানি ওয়াসা কেন বিপদজনক একটা পাইপ এভাবে খুলে রাখে। বশিররা কেন উদ্ধার কাজে বাধার শিকার। তবে আমাদের সেই মুখ নেই। সেই হাত নেই। আমরা কিছু বলতে পারি না। প্রতিবাদ করতে পারি না। আমাদের চোখ অন্ধ। শ্রবণযন্ত্র নিষ্ক্রিয়।

জিয়াদ হয়তো আরো আগেই উদ্ধার হতে পারতো। কিন্তু হয়নি। সে আমাদের জানান দিয়েছে অনেক কিছু। আমরা কতোটা বোকা। আমরা কতোটা আত্মভোলা আর বিস্মৃতপ্রবণ জাতি। তারই একটা সমীকরণ দিয়েছে জিয়াদ। অন্য কোনো রাষ্ট্র হলে হয়তো এতক্ষণে পদত্যাগ করতে হতো স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীকে। কিন্তু আমাদের দেশে এখনো কিছুই হয়নি। হবেও না। আমরা দুদিন পরেই ভুলে বসে থাকবো এই ঘটনা।

শিশু জিয়াদ সাময়িক হলেও আমাদের আবেগপ্রবণ করে তুলেছে। তার প্রতি অন্যায়ে আমাদের হৃদয় পুড়েছে। আমরা বিভিন্ন মাধ্যমে এমন ঘটনার প্রতিবাদ জানিয়েছি। কিন্তু সেটা কতদিন অবশিষ্ট থাকবে আমাদের হৃদয়ে। থাকবে না। তাইতো এমন ঘটনা প্রতিনিয়ত ঘটে এই দেশে। এই মাটিতে।
 
আমাদের সরকার, রাজনীতিকরা মানুষের আবেগ নিয়ে খেলে। কখনো ইস্যু ঢাকতে ইস্যু তৈরি করে। আমরা নির্দ্বিধায় সেসবের গিনিপিগ বনে যাই। রানা প্লাজা আর রেশমা নিয়ে কি হলো আমরা জানি। কিন্তু বিশ্বের আলোচিত একটা ভবনধস ও ইস্যু নাটকে আমরা আবেগে তাল দিয়ে গেছি। মুগ্ধ হয়ে থেকে রেশমা নাটকের মাদকতায়। কোনো প্রশ্নের উদয় হয়নি আমাদের ভেতর। এভাবেই হয়তো খেলে যাবে তারা। আমাদের আবেগ আমাদের নীরবতা তারা ব্যবহার করে যাবে প্রতিনিয়ত। আমরা আঙ্গুল চুষবো আর হায় হায় করবো।

লেখক: সাংবাদিক

বাংলাদেশ সময়: ১৩৩২ ঘণ্টা, ডিসেম্বর ২৮, ২০১৪

২ বছরের মধ্যে ডিএনসিসির সব সুবিধা মিলবে অনলাইনে: আতিক
গণপরিবহনে যৌন হয়রানি বন্ধ চান সুজন
১৪২টি পদক নিয়ে ১৩তম আসর শেষ করল বাংলাদেশ
আইয়ুব বাচ্চুকে উৎসর্গ করে ‘উড়ে যাওয়া পাখির চোখ’
মোটরসাইকেল দুর্ঘটনায় ছাত্রলীগ নেত্রী নিহত


‘শান্তির দূত’ থেকে যেভাবে গণহত্যার কাঠগড়ায় সু চি 
টিকফা বৈঠক পিছিয়ে মার্চে
ব্যাট হাতে দাপট দেখিয়েছেন যারা
পেশীশক্তি নয়, আদর্শের রাজনীতি করুন: নওফেল
শিবচরে ইউএনও-চেয়ারম্যানের গাড়ি ভাঙচুর, আটক ২৫