php glass

নরেন্দ্র মোদির যতো অজানা

4566 | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton
সাম্প্রদায়িক দাঙ্গাসহ নানা কারণে গত অন্তত দুই দশক ধরে বেশ আলোচিত ও সমালোচিত ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ছোট বেলায় ছিলেন চা বিক্রেতা। সেই চা বিক্রেতা থেকে সন্যাস জীবন, হিন্দুত্ববাদী সংগঠন আরএসএসের গুরুত্বপূর্ণ কর্মী থেকে ক্রমাগত রাজনৈতিক নেতা হয়ে ওঠেন মোদি।

সাম্প্রদায়িক দাঙ্গাসহ নানা কারণে গত অন্তত দুই দশক ধরে বেশ আলোচিত ও সমালোচিত ভারতের বর্তমান প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। ছোট বেলায় ছিলেন চা বিক্রেতা। সেই চা বিক্রেতা থেকে সন্যাস জীবন, হিন্দুত্ববাদী সংগঠন আরএসএসের গুরুত্বপূর্ণ কর্মী থেকে ক্রমাগত রাজনৈতিক নেতা হয়ে ওঠেন মোদি। জীবনের এক দুঃসাহসিক অভিযাত্রার মধ্য তিনি সর্বশেষ ভারতের প্রধানমন্ত্রী। এসবের বাইরেও তার রয়েছে আরো অনেক অজানা কাহিনী।     


এক.
১৯৫০ সালের ১৭ই সেপ্টেম্বর নরেন্দ্র দামোদরদাস মোদির জন্ম। তার পিতার নাম দামোদরদাস মুলচান্দ ও মায়ের নাম হীরাবেন। ৬ সন্তানের মধ্যে মোদি ছিলেন তৃতীয়। মুদি ব্যবসায়ী পরিবারেই মোদির জন্ম। শৈশব থেকেই মোদি চায়ের স্টলে তার পিতাকে সাহায্য করতেন।

দুই.
নারী ইস্যুটি নরেন্দ্র মোদির জীবনে বড় ধরনের ঘটনা। অনেকেই মনে করেন, মোদি নারীদের এড়িয়ে চলেন। অনেকে ব্যাপারটিকে তার সাধনা হিসেবে দেখেছেন। অনেকে আবার তার যৌনতা নিয়ে প্রশ্ন তুলেছেন। মোটকথা ভারতের সব মহলই মোদির নারী সম্পর্ক ব্যাপারটি বুঝতে ব্যাপক আগ্রহী। কারণ এত বড় একজন প্রভাবশালী ব্যক্তির জীবনে নারীর সঙ্গে সম্পর্কের ব্যাপারটি একদমই রহস্যময়।

তিন.
চা বিক্রি ছিলো মোদির আদি পেশা। মোদির প্রতিটি নির্বাচনে ভোট প্রচারণার বড় ধরনের অনুসঙ্গ হয়ে ওঠে তার চা; মানে চা প্রচারণা। আহমেদাবাদে স্টেট ট্র্যান্সপোর্ট অফিসে নরেন্দ্র মোদি তার ভাইয়ের সঙ্গে চা বিক্রি করতেন। তখনই তিনি কঠোর সংগ্রাম এবং স্থির ও দৃঢ় প্রতিজ্ঞ হবার সত্যিকার অর্থ অনুধাবন করেছিলেন।

চার.
২০০৫ সাল থেকে নরেন্দ্র মোদি যুক্তরাষ্ট্র ভ্রমণের ভিসা না পেলেও, মজার ব্যাপার হচ্ছে যুক্তরাষ্ট্রে তিনি পাবলিক রিলেশন্স ও ইমেইজ ম্যানেজমেন্ট বিষয়ে ৩ মাসের একটি সংক্ষিপ্ত কোর্স সম্পন্ন করেছেন। বিজেপি’র জয়ের জন্য এবারের লোকসভা নির্বাচনে মোদির স্বতঃস্ফূর্ত ও বুদ্ধিদীপ্ত নির্বাচনী প্রচারণা ভীষণ প্রয়োজন ছিল।

পাঁচ.
স্বামী বিবেকানন্দ ও ইন্দিরা গান্ধীকে নিজের আইডল বা আদর্শ মনে করেন নরেন্দ্র মোদি।

ছয়.
১৯৬৫ সালে ভারত-পাকিস্তান যুদ্ধে ভারতীয় সেনাদের স্বেচ্ছায় সহযোগিতা করেছিলেন তিনি। বয়স তখন তার মাত্র ১৫ বছর। ১৯৬৭ সালে গুজরাটে যখন ভয়াবহ বন্যা হয়, তখন ১৭ বছরের মোদি স্বেচ্ছায় বন্যা দুর্গতদের পাশে দাঁড়িয়ে সহযোগিতা করেন। 

সাত.
ধর্মীয় সাধনাও তাকে শৈশব থেকে ব্যাপকভাবে মুগ্ধতা দিয়েছিলো। বেশ অল্প বয়সেই তিনি সন্যাসব্রত পালনের জন্য বাড়ি থেকে পালিয়ে সাধুদের সঙ্গে থাকতে শুরু করেন। শেষ পর্যন্ত হিমালয়ে গিয়ে ২ বছর সন্ন্যাস জীবন কাটান তিনি।

আট.
সন্ন্যাস জীবন কাটানোর সময় নরেন্দ্র মোদির মাত্র দুটি পোশাক ছিল। কিন্তু, ভারতের সম্ভাব্য প্রধানমন্ত্রী জনসমক্ষে নিজেকে উপস্থাপনের ব্যাপারে বেশ সজাগ। ইস্ত্রি করা পরিপাটি পোশাক পরতে পছন্দ করেন তিনি। অন্য রাজনীতিবিদদের চেয়ে নিজেকে ভিন্নভাবে উপস্থাপন ও মোদি ব্র্যান্ডটাকে রূপ দেয়ার ব্যাপারে বেশ সচেতন তিনি।

নয়.
নারীদের কাছেও মৌদি বেশ আকর্ষণীয়। ভারতের গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, মোদির নির্বাচনী এলাকায় নারীরা তাকে দেবতা হিসেবে স্থান দিয়েছে। যে কারণে মনে করা হয়, ভারতের এবারের নির্বাচনে নারীদের উপস্থিতি ছিলো আগেরে যেকোনো সময়ের চেয়ে সবচেয়ে বেশি। ধারণা করা হয়, ভারতীয় রাজনীতিবিদদের মধ্যে শশী ঠারুরের পর নরেন্দ্র মোদিই নারীদের কাছে বেশি জনপ্রিয়। তবে সেটা হয়েছে, বিশেষত তার তাকানোর ভঙ্গির কারণেই। তার তাকানোর ভঙ্গি খুবই তীক্ষ্ণ।

দশ.
খুব কাজ পাগল মোদি। দিন রাত মিলিয়ে মাত্র ৩ ঘণ্টা ঘুমান। সকাল ৭টায় তিনি অফিসে ঢুকেন, রাত ১০টা বা আরও রাত পর্যন্ত সেখানে কাজ করে তবে বাড়ি ফেরেন।

এগারো.
নরেন্দ্র মোদি বেশ রক্ষণশীল বটে। তবে শিক্ষা ও প্রযুক্তিতে একেবারে আধুনিক। প্রতিদিনই ইন্টারনেটে নিজের খবরগুলো দেখে নেন তিনি। ফেসবুক ও আর ট্যুইটার ব্যবহারেও মোদি খুবই আধুনিক।

বারো.
২০১৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের আগে নিজের বিয়ের ব্যাপারে কোনোদিন মুখ খোলেননি মোদি। এর আগে ৪ বার নির্বাচনী প্রচারণায় অংশ নিলেও, আবেদনপত্রে স্ত্রীর কলামটি বরাবরই ফাঁকা রেখেছিলেন। ১৩ বছর বয়সে যশোদাবেন নামের এক নারীকে বিয়ে করেন।তবে ব্যাচেলর বা কুমার জীবন কাটানোর প্রতি তীব্র ঝোঁক থাকায় যশোদাবেনের সঙ্গে বিয়ে কখনও মেনে নেননি মোদি। এক সময়ে যশোদাবেনও একাকী থাকার সিদ্ধান্ত নেন। এবারের নির্বাচনে যশোদাবেনের বিষয়টি মাধ্যমে আসে।

তেরো.
গুজরাটের ইতিহাসে সবচেয়ে দীর্ঘ সময় মুখ্যমন্ত্রী ছিলেন নরেন্দ্র মোদি। একটানা ২ হাজার ৬৩ দিন ক্ষমতায় ছিলেন।

চৌদ্দ.
নরেন্দ্র মোদির শখের মধ্যে রয়েছে ছবি তোলা। নিজের মোবাইলে সেলফি তুলেও গণমাধ্যমে বেশ প্রচারিত হন। নিজের তোলা ছবির প্রদর্শনীরও আয়োজন করেছেন তিনি।

পনের.
কবি হিসেবেও মোদির নাম ও খ্যাতি রয়েছে। লিখতে ভালোবাসেন, সমাবেশে যে বক্তৃতাগুলো দেন, তার একটি বড় অংশ তার নিজেরই লেখা।

ষোলো.
নিরামিষাশী মোদী নিঃসঙ্গ থাকতে ভালোবাসেন ও অন্তর্মুখী স্বভাবের।

সতেরো.
টাইম ম্যাগাজিনের এশিয়া এডিশনের প্রচ্ছদে নরেন্দ্র মোদিকে স্থান দেয়া হয়েছিল। টাইম ম্যাগাজিনের বিশ্বের ১০০ শীর্ষ প্রভাবশালী ব্যক্তিত্বের তালিকায় স্থান করে নিয়েছিলেন তিনি।

আটারো.
নরেন্দ্র মোদির রসিকতাবোধও সাধারণ নয়। বিরোধী দল মোদির এ গুণটিকে প্রশ্নবিদ্ধ করলেও, তার এক-বাক্যের রসনাগুলোর মধ্যে তীক্ষ্ণ মেধা ও বুদ্ধির ছটা লক্ষণীয়।

উনিশ.
অসম্ভব শ্রদ্ধা, ভালোবাসা আর মমতা রয়েছে তার মায়ের প্রতি। প্রতিটি কাজে, উদ্যোগে প্রথমেই মায়ের পদতলে যাবেন মোদি। তারপরই শুরু। তার রয়েছে চার ভাই এক বোন। তবে বোনটি কখনো লোকচোখে আসেন না, অন্তরালে থাকেন।

কুড়ি.
ইংরেজিতে বেশ দক্ষ। তবে ভারতের অন্যান্য শীর্ষ রাজনীতিকরা যেমন ইংরেজি বলেন, মোদি ইংরেজিতে একদমই কথা বলেন না।

একুশ.
জীবনের বড় সময় কেটেছে তার রাষ্ট্রীয় স্বয়ংসেবক সংঘ কিংবা আরএসএস এর সঙ্গে। হিন্দুত্ববাদই তার রাজনীতির মৌল দর্শন। স্বামী পরমানন্দ তার আধ্যাত্মিক গুরু। 

বাইশ.
তার কোনো ঘনিষ্ট বন্ধু নেই।

তেইশ.
গুজরাটের স্থানীয় খাস্তার মতো মচমচে এক ধরনের রুটি এবং গুজরাটি খিচুড়ি তার প্রিয় খাবার।

চব্বিশ.
মুসলিম বিরোধী ভয়াবহ দাঙ্গার পর ক্ষমতার স্বার্থে মোদি বরাবরই সাম্প্রদায়িক ও পরিচয়ের রাজনীতির জন্য খুবই সমালোচিত। যেকারণে গুজরাটের আহমেদাবাদের মুসলমানদের কাছে মোদি দীর্ঘদিনই শত্রুর মতো ছিলেন। তবে এবারের নির্বাচনী প্রচারণা ও পরবর্তী সময়ে মুসলমানদের সঙ্গে ঘনিষ্টতা রক্ষার চেষ্টা করছেন।

পঁচিশ.
প্রধানমন্ত্রী হিসেবে দায়িত্ব নেয়ার পর প্রথমেই তিনি ভারতের আমলাতান্ত্রিক সংস্কারের দিকে সিরিয়াসলি দেন।

ছাব্বিশ.
প্রতিরক্ষা, অভ্যন্তরীণ অবকাঠামো উন্নয়ন ও পররাষ্ট্র নীতি তার প্রধান অগ্রাধিকার ইস্যু।

বাংলাদেশ সময়: ১৭৫৯ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৭, ২০১৪

‘আমার এই বাজে স্বভাব’ খ্যাত সংগীত পরিচালক পৃথ্বীরাজ আর নেই
মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত স্থানগুলো এখনো অরক্ষিত
ফেরাউনের বাড়িতেই বেড়ে ওঠেন মুসা
অন্ধকার ময়মনসিংহে আসছে আলো
ডিমলায় দুর্যোগ সহনীয় বাসগৃহ পেয়ে আনন্দিত ৩৬ পরিবার


পিরোজপুরে গণপূর্ত মন্ত্রীর নেতৃত্বে সুসংগঠিত আ’লীগ
৪৮ বছর ধরে উপেক্ষিত ধনবাড়ীর শহীদ বুদ্ধিজীবী মুহাম্মদ আখতার 
‘বিসমিল্লা’ দিয়ে শেষ হলো দুই বাংলার নাট্যমেলা
জাতিকে মেধাশূন্য করতেই বুদ্ধিজীবী হত্যা: শিল্পমন্ত্রী
বুয়েট কেমিস্ট্রি অ্যালামনাই অ্যাসোসিয়েশনের সাধারণ সভা