সুন্দরতম চরিত্র গঠনে পবিত্র সিয়াম সাধনা

মুফতি আমজাদ হোসাইন হেলালী, অতিথি লেখক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

প্রতীকী ছবি

walton

সময়ের পরিক্রমায় আমাদের কাছে পুনরায় হাজির হয়েছে মাহে রমজান। আর রমজান মাস আমাদের তাকওয়া, সবর, ক্ষমা, আত্মসংযম ও পরোপকারী হওয়ার শিক্ষা দেয়। কারণ রমজান মাসে প্রবাহিত হতে থাকে অনবরত রহমতের বারিধারা। এই রহমতকে পুরো জীবন ধরে রাখাটাই সফলতার পরিচায়ক। মূলত তারাই হেদায়াতপ্রাপ্ত আর তারাই পূর্ণ সফল।

এই মাসে খুলে দেওয়া হয় জান্নাত ও ক্ষমার রাস্তা। বন্ধ করে দেওয়া হয় জাহান্নামের দরজা ও কবরের আজাব। রোজার মাধ্যমে মানুষ তাকওয়া বা আল্লাহর ভালোবাসার প্রতি ধাবিত হয়। ক্ষুধা, তৃষ্ণায় কাতর হয়েও মহান প্রভুর ভালোবাসা ও ভয়ে কিছুই গ্রহণ না করা, যাবতীয় অন্যায়-অনাচার থেকে নিজেকে বিরত থাকা তাকওয়ারই উত্তম নিদর্শন।

এ ব্যাপারে পবিত্র কোরআনুল করিমের বিভিন্ন জায়গায় আল্লাহপাক বলেছেন, ‘তোমরা তাকওয়া অবলম্বন কর।’

তাকওয়া এমন একটি মহৎ গুণ, যার সুফলের দ্বারা একজন ব্যক্তি, একটি সমাজ, একটি রাষ্ট্র এমনকি সারা বিশ্ব মানবতার শান্তিতে ছেয়ে যাবে। আর এই তাকওয়ার সঙ্গেই রোজার গভীর সম্পর্ক রয়েছে।

যার কারণে আল্লাহতায়ালা পবিত্র কোরআনে ইরশাদ করেন, ‘‘হে ঈমানদারগণ! তোমাদের ওপর রোজাকে ফরজ করা হয়েছে, যেমন করা হয়েছিল তোমাদের পূর্ববর্তীদের ওপর। যাতে তোমরা তাকওয়া অর্জন করতে পার।’’ (সুরা আল-বাকারা : ১৮৩)

রমজান মাসে তাকওয়া অর্জনের মাধ্যমেই মানুষ অন্তরের প্রবৃত্তি তথা নফসে আম্বারাকে বশীভূত করে। আর লাভ করে আল্লাহর নৈকট্য। প্রকৃত রোজা দ্বারাই সমাজ থেকে সকল অন্যায়-অবিচার, জিনা-ব্যভিচার, চুরি-ডাকাতি ও সন্ত্রাসবাদ দূরীভূত হয়। পুরো ব্যক্তিজীবন ও সামাজিক জীবন নিরাপদ ও নির্বিঘ্নে চলাচলের নিশ্চয়তা লাভ করে। আর রোজা রাখা হয় একমাত্র আল্লাহরই জন্য। এতে কোনোরূপ লোক দেখানো বা রিয়ার কোনো অবকাশ নেই। কেননা হাদিসে কুদসিতে মহান আল্লাহতায়ালা ফরমান, ‘রোজা কেবল আমার জন্যই, আমি নিজেই এর প্রতিদান দেব।’

আর এই রোজাই প্রকৃত রোজাদারকে মিথ্যা বলা থেকে বারণ করে। কারণ মিথ্যা এমন একটি গুনাহ যার দ্বারা একজন ব্যক্তি বা একটি সমাজ নিমিষেই ধ্বংস হয়ে যায়। আর এই মিথ্যা বর্তমান সমাজের রন্ধ্রে রন্ধ্রে ছড়িয়ে পড়েছে। মানুষ মিথ্যা বলাকে কোনো গুনাহই মনে করে না। প্রত্যেক দিন সে অহরহ মিথ্যা বলে যাচ্ছে। আর রোজা পালনকালে কোনোরূপ মিথ্যাচারে লিপ্ত হলে সেই রোজা আল্লাহর কাছে গ্রহণযোগ্য হবে না।

এ কারণে প্রিয় নবীজী (সা.) ইরশাদ করেন, যে ব্যক্তি মিথ্যা বলা ও মিথ্যাচার করা বর্জন করে না, তার খাওয়া-দাওয়া ও পানীয় গ্রহণ পরিত্যাগ করার আল্লাহর কোনো প্রয়োজন নেই। (বুখারি শরিফ)

আদর্শ ব্যক্তিজীবন গঠনে রোজার ভূমিকা অনন্য। রোজা পালনের মাধ্যমে মানুষ প্রবৃত্তির তাড়না থেকে মুক্তিলাভ করে। ফলে একজন রোজাদার ব্যক্তি সব ধরনের লোভ-লালসা, ক্রোধ, নেশা, মিথ্যা, প্রতারণা, প্রবঞ্চনা, গীবত, শেকায়েত, পরনিন্দা, ঝগড়া-ফ্যাসাদ ও অশ্লীলতা প্রভৃতি থেকে মুক্ত থাকে।

এই প্রশংসিত স্বভাব নিয়ে সুন্দর থেকে সুন্দরতম জীবন গঠন করা অতি সহজ একটি বিষয়। প্রিয় পাঠক! লক্ষ্য করুন। সিয়াম সাধনা একজন ব্যক্তির জীবনে কীরূপ প্রভাব বিস্তার করে। অসুন্দর জীবনকে সুন্দরতম করে তোলে। তবে শর্ত হলো, সিয়াম সাধনা থেকে নিয়ে জীবনের সকল নেক আমলগুলো করতে হবে একমাত্র আল্লাহর জন্য। আল্লাহর সন্তুষ্টিই হবে আমাদের জীবনের একমাত্র মাকসাদ। তাহলেই আমরা প্রকৃতভাবে সিয়াম সাধনার দ্বারা উপকৃত হতে পারব। ইনশা আল্লাহ।

মহান আল্লাহ আমাদের সবাইকে সিয়াম সাধনার মাধ্যমে সুন্দরতম জীবন গঠন করার তাওফিক দান করুন। আমিন।

লেখক: মুহাদ্দিস, মুফাসসির, খতিব ও টিভির ইসলামী প্রোগ্রাম উপস্থাপক।

বাংলাদেশ সময়: ১৬০৭ ঘণ্টা, মে ১৬, ২০২০
এইচএডি/

ধর্মপাশায় বজ্রপাতে জেলের মৃত্যু
কানাডায় বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনে ট্রুডো
যুগ্মসচিব পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের যোগদান অনলাইনে
‘করোনা রোধে নারায়ণগঞ্জের সিস্টেমটা সারাদেশে প্রয়োগ হবে’
বর্ণ-বৈষম্য দূরীকরণে ১০০ মিলিয়ন ডলার অনুদান দেবেন জর্ডান


ফেনীতে করোনা আক্রান্ত বাড়লেও তোয়াক্কা নেই স্বাস্থ্যবিধির
করোনা উপসর্গে মৃত্যু: পরিবার পিছুহটায় দাফন করলো প্রশাসন
বর্ণবাদবিরোধী বিক্ষোভে উত্তাল বিশ্ব
ভার্চ্যুয়াল আদালতে সারাদেশে সাড়ে ২৭ হাজার আসামির জামিন
ভোলার মেঘনায় মিলছে না ইলিশ, কষ্টে দিন কাটছে জেলেদের