মানুষের কঠিন বালা-মুসিবত দূর করবে সদকা

মোহাম্মদ মাকছুদ উল্লাহ, অতিথি লেখক  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ছবি প্রতীকী

walton

অর্থ-সম্পদ পার্থিব জীবনের যাবতীয় প্রত্যাশার কেন্দ্রবিন্দু। বৃত্তহীন জীবন মরিচিকার সমান। প্রত্যেকটি মানুষের জীবনে মৌলিক চাহিদার পরে আরো কিছু চাহিদা থাকে। কেউ ধর্মীয় সীমারেখা অতিক্রম করে জীবনটাকে ঝাঁকিয়ে  উপভোগ করতে চান। আবার কেউ ধর্মীয় চৌহদ্দির মধ্যে থেকেই অনেক অনেক পুণ্য লাভ করে ধন্য হতে চান। অর্থ-বিত্ত না থাকলে সব আশাই ধোঁয়াশা থেকে যায়, হতাশা আর নিরাশা জীবনটাকে কুরে কুরে খায়। তাই মানুষ জন্ম থেকে মৃত্যু, সকাল থেকে সন্ধ্যা অর্থের পেছনে ছুটে বেড়ায়।

কিন্তু শুধু নিজের চেষ্টাতেই বিপুল অর্থ বিত্ত-বৈভবের মালিক হওয়া সম্ভব নয়। সে জন্য সবার আগে মহান আল্লাহর ইচ্ছা থাকা চাই। এরশাদ হয়েছে, 'আপনি বলুন, হে আল্লাহ! তুমিই সার্বভৌম ক্ষমতার অধিকারী রাজাধিরাজ। তুমি যাকে ইচ্ছা রাজ ক্ষমতা দান করো আর যার কাছ থেকে ইচ্ছা রাজ্য ছিনিয়ে নাও, আর তুমি যাকে ইচ্ছা সম্মান দান করো আর যাকে ইচ্ছা অপমানিত করো। তোমারই হাতে যাবতীয় কল্যাণ। নিশ্চয়ই তুমি সর্ব বিষয়ে ক্ষমতাবান।' (সুরা আলে ইমরান: ২৬)

মহান আল্লাহ পার্থিব জীবনে যার জন্য যতটুকু সম্পদ বরাদ্দ রেখেছেন শত চেষ্টা করেও তার থেকে বেশি অর্জন করা সম্ভব নয়। সকাল-সন্ধ্যা পরিশ্রম করে উপার্জিত সম্পদ দান করা অর্থাৎ অজ্ঞাত-অপরিচিত, দুস্থ-অসহায়, দরিদ্র-মিসকিনকে দিয়ে দেওয়া কষ্টের বিষয় বৈকি! একজন মাথার ঘাম পায়ে ফেলে দিনের পর দিন, মাসের পর মাস পরিশ্রম করে শরীরের রক্ত পানি করে উপার্জন করা সম্পদ বছর শেষে নির্দিষ্ট হারে হিসাব করে অন্যকে বুঝিয়ে দেবে, তার কষ্টার্জিত সম্পদ এভাবে হারিয়ে যাবে এটা আবার কেমন বিধান? কিন্তু ইসলাম বলে ভিন্ন কথা।

আর তা হলো- দান করলে সম্পদ হারিয়ে যায় না, কমেও না বরং বাড়তে থাকে। হজরত আব্দুল্লাহ ইবনে উমার (রা.) একটি হাদিস বর্ণনা করেছেন। তিনি বলেন রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, শুধু দুই ব্যক্তির বিষয়ে ঈর্ষা করা যেতে পারে। একজন হলো ওই ব্যক্তি যাকে আল্লাহ কোরআনের জ্ঞান দান করেছেন আর সে সকাল-বিকেল তার ভিত্তিতে ফয়সালা দান করে।

দ্বিতীয় ওই ব্যক্তি যাকে আল্লাহ সম্পদ দান করেছেন এবং ওই সম্পদ থেকে আল্লাহর রাস্তায় ব্যয় করার সক্ষমতাও তাকে দিয়েছেন। (সহিহ আল-বোখারি, হাদিস: ১৪০৯, সহিহ মুসলিম, হাদিস: ৮১৫, সুনানে ইবনে মাযা, হাদিস: ৪২০৯, সুনানে তিরমিজি, হাদিস: ১৯৩৬, মুসনাদে আব্দুর রাজ্জাক, হাদিস: ৫৯৭৪, মুনাদে হুমাইদি, হাদিস স: ৯৯, মুসনাদে ইবনে আবি শাইবা, হাদিস: ১৯৪,) হজরত আবু হুরায়রা (রা.) একটি হাদিস বর্ণনা করেছেন।

তিনি বলেন রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, দান করলে সম্পদ কমে না। আর মানুষকে ক্ষমা করলে আল্লাহ তার সম্মান বাড়িয়ে দেন। আর যে ব্যক্তি আল্লাহর উদ্দেশে নত হয় আল্লাহ তাকে অনেক ইজ্জত দান করেন। (সুনানে দারেমি, হাদিস: ১৭২৯)

দানের সীমাহীন নেকির বিষয়েমহান আল্লাহ ইরশাদ করেছেন, যারা আল্লাহর রাস্তায় দান করে তাদের দৃষ্টান্ত হলো ওই শস্যদানার মতো যা থেকে সাতটি শীষ বের হয় আর প্রত্যেকটি শীষে থাকে একশটি করে শস্যদানা। আর আল্লাহ যাকে চান তাকে আরো বাড়িয়ে দেন।” (সুরা আল-বাক্বারা: ২৬১) সুতরাং নিজের সম্পদের প্রবৃদ্ধি ও নিরাপত্তার জন্য এবং সীমাহীন নেকি অর্জনের জন্য সম্পদশালী মুসলমানদের মাহে রমজানে যথাসম্ভব অধিকহারে দান করা উচিত।

রমজান মাসই আল্লাহর রাস্তায় দান করার সবচেয়ে উপযুক্ত সময়। সে কারণেই রাসুলুল্লাহ (সা.) রমজান মাসে অধিহারে দান করতেন।

দানে বালা-মুসিবত দূর হয়। বর্তমান পৃথিবী ইতিহাসের সবচেয়ে ভয়াবহ সময় অতিবাহিত করছে। গোটা পৃথিবী আজ নভেল করোনার তাণ্ডবে লণ্ডভণ্ড, ভয়ানক মৃত্যু প্রত্যেকটা বনি আদমকে তাড়িয়ে নিয়ে বেড়াচ্ছে।

মরদেহের স্তূপ দেশে দেশে সভ্যতার ক্লান্তিকালের পদধ্বনি শোনাচ্ছে। কর্মহীন হয়ে গৃহবন্দি মানুষ খাবার, ওষুধ ও প্রয়োজনীয় জিনিসের অভাবে ধুঁকছেন। এমন সময়ে যাদের হাতে অতিরিক্ত অর্থ-বিত্ত রয়েছে তাদের উচিত অসহায় মানুষের পাশে দাঁড়ানো, সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দেওয়া, মানবতাকে বাঁচিয়ে রাখা এবং বিপদাপদ থেকে আত্মরক্ষার জন্য সদকা করা। কারণ সদকা দিয়ে বালা- মুসিবত দূর হয়। হজরত আলী (রা.) একটি হাদিস বর্ণনা করেছেন। বলেন রাসুলুল্লাহ (সা.) বলেছেন, সদকা দেওয়ার বিষয়ে তোমরা দ্রুততর হও! কারণ বালা-মুসিবত সদকাকে ফেঁড়ে অগ্রসর হতে পারে না। (মেশকাত)

 

.

 

 

লেখক: পেশ ইমাম, রাজশাহী কলেজ কেন্দ্রীয় মসজিদ।      

বাংলাদেশ সময়: ১০৩৩ ঘণ্টা, মে ০৯, ২০২০
এসএস/এএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: ইসলাম রমজান
করোনা রোগীর সেবা ও দাফন-কাফন আমাদের দ্বীনি দায়িত্ব
আমতলীর পৌর মেয়রের ওপর হামলা, চাপাতিসহ ৩ জন আটক
রায়সাহেব বাজারে গোডাউনে অগ্নিকাণ্ডের সূত্রপাত কেমিক্যালে
ধর্মপাশায় বজ্রপাতে জেলের মৃত্যু
কানাডায় বর্ণবাদবিরোধী আন্দোলনে ট্রুডো


যুগ্মসচিব পদে পদোন্নতিপ্রাপ্ত কর্মকর্তাদের যোগদান অনলাইনে
‘করোনা রোধে নারায়ণগঞ্জের সিস্টেমটা সারাদেশে প্রয়োগ হবে’
বর্ণ-বৈষম্য দূরীকরণে ১০০ মিলিয়ন ডলার অনুদান দেবেন জর্ডান
ফেনীতে করোনা আক্রান্ত বাড়লেও তোয়াক্কা নেই স্বাস্থ্যবিধির
করোনা উপসর্গে মৃত্যু: পরিবার পিছুহটায় দাফন করলো প্রশাসন