php glass

সিনেমার কাহিনী বাস্তবে দেখাচ্ছে ভারত!

আরাফাত খান, নিউজরুম এডিটর | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

ভারতে ট্রাফিক আইন না মানলে বড় জরিমানা। ছবি: সংগৃহীত

walton

সিনেমার সব দৃশ্য মিথ্যা নয়, এটি জীবনেরও প্রতিচ্ছবি। কখনো কখনো এর কিছু অংশ মিলেও যায় আমাদের জীবনের সঙ্গে। কল্পকাহিনী হলেও সিনেমার কিছু আইডিয়া যে বাস্তবে পরিণত করা যায়, সেটাই যেন চোখে আঙুল দিয়ে দেখিয়ে দিল ভারত। 

রোববার (১ সেপ্টেম্বর) থেকে দেশটিতে কার্যকর হয়েছে নতুন ট্রাফিক আইন। আগের নিয়ম বদলে এতে শাস্তি বাড়ানো হয়েছে কয়েকগুণ। শৃঙ্খলা ফেরাতে ভালো কথায় কাজ না হলে কড়া হওয়ার এমনই কিছু দৃশ্য দেখা গিয়েছিল কিছুদিন আগে ভারতেরই একটি সিনেমায়। 

দক্ষিণী তারকা মহেশ বাবু ও কিয়ারা আদভানি অভিনীত ‘ভারত আনে নেনু’ মুক্তি পেয়েছিল গত বছরের ১৯ এপ্রিল। ৬৫ কোটি রুপি বাজেটের ছবিটি ঝড় তুলেছিল বক্সঅফিসে। আয় করেছিল দুইশ’ কোটিরও বেশি। 

ওই সিনেমারই একটি দৃশ্যে দেখা যায়, বিদেশফেরত ভারত রাম (মহেশ) দেশে ফিরে ঘটনাক্রমে অন্ধ্রপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী বনে যায়। কিন্তু, পশ্চিমা দেশে পড়াশোনা করা ছেলেটি ভারতের সড়কে বিশৃঙ্খলা দেখে অবাক হয়। নিজের ক্ষমতা ব্যবহার করে সে জনগণকে আইন প্রতি শ্রদ্ধাশীল হতে বাধ্য করে। আর এক্ষেত্রে তার বড় পদক্ষেপ ছিল, ট্রাফিক আইনভঙ্গের গতানুগতিক জরিমানা বদলে তা কয়েকগুণ বাড়িয়ে দেওয়া। যেখানে আগের জরিমানা ছিল একশ’ রুপি, তা বদলে হাজার রুপি করা হয়। বড় জরিমানা দেওয়ার ভয়ে শেষপর্যন্ত জনগণ ট্রাফিক আইন মানতে শুরু করে।

সিনেমায় একটি রাজ্যের দৃশ্য হলেও সে পরিকল্পনা গোটা দেশের জন্যই বাস্তবায়ন করে দেখিয়েছে ভারত। গত মাসে লোকসভায় মোটরযান (অ্যামেন্ডমেন্ট) বিল-২০১৯ পাস হয়। রোববার (১ সেপ্টেম্বর) থেকে কার্যকরও হয়েছে সারাদেশে। এখন থেকে ট্রাফিক সিগন্যাল না মানা, গাড়িচালনার সময় মোবাইল ফোনে কথা বলা, উল্টো পথে গাড়িচালনা, গতিসীমা না মানার মতো বিষয়গুলোতে বড় ধরনের জরিমানা গুনতে হবে।

ভারতের নতুন আইনে লাইসেন্স ছাড়া গাড়িচালনার ক্ষেত্রে জরিমানা পাঁচশ’ থকে বাড়িয়ে পাঁচ হাজার রুপি করা হয়েছে। টেস্টে পাস না করেও গাড়িচালনার ক্ষেত্রে জরিমানা পাঁচশ’ থকে বাড়িয়ে করা হয়েছে ১০ হাজার রুপি।

জরুরি সেবার গাড়িকে পথ না ছাড়লে জরিমানা দিতে হবে ১০ হাজার রুপি। ট্যাক্সি সেবাদানকারী প্রতিষ্ঠানগুলো ড্রাইভিং লাইসেন্সের নিয়ম না মানলে জরিমানা হতে পারে এক লাখ রুপি পর্যন্ত।

ভারতেও ট্রাফিক আইন না মানার প্রবণতা যথেষ্ট। ছবি: সংগৃহীত

গতিসীমা না মানলে জরিমানা গুনতে হবে এক থেকে দুই হাজার রুপি পর্যন্ত। এর জন্য আগের নিয়মে জারিমানা চারশ’ রুপি থেকে বাড়িয়ে হালকা মোটরযানের জন্য এক হাজার ও মাঝারি মোটরযানের জন্য দুই হাজার করা হয়েছে।

আগে সিটবেল্ট না বেঁধে গাড়ি চালালে জরিমানা ছিল মাত্র একশ’ রুপি। এখন থেকে এর জন্য জরিমানা দিতে হবে এক হাজার রুপি। 

ইনস্যুরেন্স ছাড়া গাড়ি চালালে জরিমানা দুই হাজার রুপি।গাড়িতে ওভারলোডের জন্য জরিমানা গুনতে হবে ২০ হাজার রুপি পর্যন্ত। 

গাড়ি চালানোর সময় হেলমেট না পরলে এক হাজার রুপি জরিমানা, পাশাপাশি তিন মাসের জন্য লাইসেন্সও বাতিল হতে পারে।

বয়সসীমার নিচে কেউ গাড়ি চালালে এর জন্য দোষী সাব্যস্ত হবেন তার অভিভাবক। আর এর জন্য তার ২৫ হাজার রুপি জরিমানা, তিন বছরের জেল ও রেজিস্ট্রেশন বাতিল হবে।

বাংলাদেশ সময়: ১২১০ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ০১, ২০১৯
একে

ksrm
বাংলাদেশি নাগরিকদের ভিসা সহজীকরণের সুপারিশ
কারাবন্দির তথ্য ডাটাবেজে থাকবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী
ব্যক্তির কারণে সংগঠনের ইমেজ ক্ষুণ্ন করতে চাই না
‘ছাত্রলীগ দিয়ে সিগন্যাল দিলেন প্রধানমন্ত্রী’
ডে-কেয়ার সেন্টার নিশ্চিতের নির্দেশ শ্রম প্রতিমন্ত্রীর


জিপিএ-৫ প্রাপ্ত ডিআরইউ সদস্য সন্তানদের সংবর্ধনা
সুনামগঞ্জে ধোপাজান নদীতে অবৈধভাবে চলছে বালু উত্তোলন
শিয়াল ধরার বৈদ্যুতিক ফাঁদে প্রাণ গেল শিশুর 
চাঁপাইনবাবগঞ্জে সাড়ে ৪ হাজার ইয়াবাসহ গ্রেফতার ৫
বরিশালে সার্বজনীন শিক্ষা ব্যবস্থার দাবিতে বিক্ষোভ