মনিবের অপেক্ষায় ৩ মাস ধরে রাস্তায় বসে আছে কুকুর

অফবিট ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

রাস্তার পাশে বসে আছে পোষা কুকুরটি, ছবি: সংগৃহীত

walton

ঢাকা: শখ করে পোষা প্রাণীর সঙ্গে নিয়মিত সময় কাটান একজন মনিব। এতে তাদের মধ্যে গড়ে উঠে গভীর সম্পর্কও। কিন্তু এই সম্পর্ক যে মনিবের আত্মীয়-স্বজনকেও ছাড়িয়ে যাবে সেটা কারও ধারণা না থাকলেও এমনটিই হয়েছে এশিয়া দেশ চীনে।

php glass

মনিব সড়ক দুর্ঘটনায় মরে গেছেন প্রায় তিন মাস হয়ে গেছে। এর মধ্যে কয়েকদিন শোকে সময় কাটিয়েছে তার আত্মীয়-স্বজন। তারা মনকে কিছুদিনের মধ্যেই বুঝিয়েছে, যিনি মরে গেছেন, তিনি আর আসবেন না। তাকে ভুলে থাকাই ভালো; অন্তত কষ্ট দূর হবে। কিন্তু ওই মনিবের কুকুরটি তাকে আজও ভুলতে পারেনি।

তার ‘বিশ্বাস’ মনিব ফিরবেন। আর এই আশায়ই তিনি অপেক্ষা করছেন সেই দুর্ঘটনাস্থলেই। তা-ও কম সময় নয়। ৮০ দিন হয়ে গেছে কুকুরটি রাস্তার পাশেই বসে আছে প্রিয় মনিবের দেখা পেতে।

মনিবের জন্য পোষা কুকুরের এতো টান কী করে হয়! এমন ভেবে অবাক হচ্ছেন রাস্তায় চলাফেরা করা মানুষ। অনেকেই গাড়ি থামিয়ে কুকুরের অপেক্ষার অবিশ্বাস্য দৃশ্যটি দেখে আবেগ ছড়াচ্ছেন। আবার কেউ এটার ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমেও ছড়িয়ে দিচ্ছেন। যদিও ইতোমধ্যেই ব্যাপারটি ভাইরাল হয়ে গেছে ভার্চুয়াল জগতে।

এ বিষয়ে চীনের রাষ্ট্রীয় সংবাদমাধ্যম বলছে, চীনের অভ্যন্তরীণ মঙ্গোলিয়ার হুহুত শহরের একটি রাস্তার মধ্যখানে প্রায় তিন মাস ধরে কুকুরটি বসে বসে অপেক্ষা করছে তার মনিবের জন্য। আর যারা এই রাস্তা দিয়ে চলাফেরা করছেন, তারা কুকুরটিকে ভালোবেসে খাবার দিয়ে যাচ্ছেন। দৃশ্যটি খুব মায়া-মমতার উদাহরণ।

সংবাদমাধ্যমটি এও বলছে, প্রভুভক্ত কুকুরটি যেখানে বসে আছে, সেখানে গত ২১ আগস্ট সড়ক দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছিলেন তার মনিব।

বাংলাদেশ সময়: ১৬৪৫ ঘণ্টা, নভেম্বর ১৩, ২০১৮
টিএ

ক্লিক করুন, আরো পড়ুন: চীন
এলিভেটেড এক্সপ্রেসওয়েতে কাটলো বিনিয়োগ সংকট, গতি কাজে
রংপুরে হোটেল-বেকারির অনির্দিষ্টকালের ধর্মঘট
ভবন থেকে ফেলে দেওয়ায় নবজাতকের মৃত্যু
মেসির গোলেও শিরোপা ধরে রাখতে পারল না বার্সা
ব্রাহ্মণবাড়িয়ায় ট্রেনে কাটা পড়ে যুবক নিহত


পাহাড়ি ফুটবলকন্যা মনিকার বিশ্বজোড়া খ্যাতি!
জাহাজশিল্পে ক্যারিয়ার গড়ুন বাগেরহাট মেরিন ইনস্টিটিউটে
চকরিয়ায় ছিনতাইকারীর ছুরিকাঘাতে শিক্ষার্থীর মৃত্যু
এতিমখানা ও মাদ্রাসায় ঈদ বস্ত্র বিতরণ
বিপদসীমার নিচে মনু নদের পানি, জনমনে স্বস্তি