php glass

শিশুর ভালে বিরল হৃদয় জড়ুল!

অফবিট ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

সংগৃহীত

walton

সে একটা প্রেমময় শিশু! নিশ্চই অবাক হয়েছেন! সব শিশুইতো প্রেমময়। তাহলে আর আলাদা করে বলা কেন? সত্যি কথা বলতে কি এই শিশুটি তার কপালেই বহন করছে প্রেমের চিহ্ন। কপালের একদিক জুড়ে তার একটি হার্টের চিহ্ন। ওটি তার জন্ম দাগ।

হুম সিনার ইঞ্জিন, মাত্র ১৪ মাস বয়সী এই শিশুটির কথা বলছি। জন্ম নেওয়ার কিছুক্ষণ পর যখন নার্স শিশুটির মাথা ও মুখ পরিষ্কার করে দিচ্ছিলেন তখন “অবিশ্বাস্য” বলে চিৎকার করে উঠলেন। সবাই অবাক! এমন চিৎকার কেনো? কারণ তখনই তার চোখে পড়েছে জন্মদাগটি যা হুবহু দেখতে একটি হৃদয়ের মতো। হ্যারিপটারের বাজ চিহ্নের মতো সিনারের ডান ভ্রুর ঠিক উপরে লাল রং এই হৃদয় চিহ্নটি!

বাচ্চাটিকে প্রথম দেখা মাত্রই বাবা মুরাত ইঞ্জিনের জন্য কান্না চেপে রাখা কষ্টের ছিল।
একটি সংবাদমাধ্যকে তিনি বলছিলেন, আমরা আমাদের সন্তান ও তার জড়ুল (জন্মদাগ) দুটোকেই খুব ভালোবাসি।

মুরাত জানালেন, জন্মাবার পর থেকেই সবাই ওকে দেখতে আসতো আর ছবি তুলতে চাইতো।

ওর জন্মদাগটি মানুষকে কাছাকাছি এনে দিয়েছে, এমনটাই মনে করি আমি, বলেন এই বাবা।  

ঈশ্বরের কাছ থেকে পাওয়া এই উপহার পেয়ে তারা খুব খুশি এবং এই চিহ্নটিকে  ইতিবাচকতার সাথেই নিয়েছেন।

ভালোবাসার ‍ঋতু সমাগত, সিনারের কপালে এই চিহ্নটি যেনো তারই বার্তা দেয়। পরিবারের সবাই তাকে ভ্যালে্ন্টাইন’স ডে’র উপহার বলেই মনে করছেন। তার হৃদয় চিহ্নের জড়ুল দেখে প্রত্যেকেরই মনভরে উঠছে ভালবাসায়।

সিনারের দিকে তাকালে তাকে না ভালোবেসে পারা যায় না। হতে পারে এটি স্রেফ একটি জন্মদাগ কিংবা ‍অন্য কোন অর্থবহ চিহ্ন। আমার ধারণা প্রকৃত সত্যিটা আমরা কখনোই জানতে পারবো না, বলেন এই বাবা।

বাংলাদেশ সময় ০০৩০ ঘণ্টা, জানুয়ারি ১৩, ২০১৭
এসএএস/এমএমকে

পাটুরিয়া-দৌলতদিয়ায় ফেরি চলাচল শুরু
দুই হাত হারানো ক্রিকেটভক্ত রইসের মাসিক আয় ১৫ হাজার
দেশে ভ্রমণে আগ্রহ বাড়ছে নারীদের
ঘন কুয়াশার কারণে পাটুরিয়া-দৌলতদিয়া নৌরুটে ফেরি চলাচল বন্ধ
সড়ক দুর্ঘটনায় প্রধান শিক্ষকের মৃত্যু


নম্বরপ্লেট বিহীন বিআরটিসি বাস ফেরত পাঠালেন শ্রমিকরা
ভেজাল-নিম্নমানের আইসক্রিম উৎপাদনে এক ব্যবসায়ীকে জরিমানা
বশেমুরবিপ্রবিতে আক্কাস আলীর বিরুদ্ধে পুনঃতদন্ত কমিটি গঠন
সোনারগাঁয়ে অস্ত্রসহ সন্ত্রাসী আটক
নোয়াখালীতে ২য় শ্রেণীর মাদ্রাসা ছাত্রীকে গণধর্ষণের অভিযোগ