php glass

বেফাঁস কৌতুকে সৌদি-মিসর সম্পর্কে কাঁটা!

অফবিট ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

স্ফুলিঙ্গ থেকে যেমন জ্বলে ওঠে দাবানল, তেমনি একটি বেফাঁস উক্তি ডেকে আনতে পারে বিপদ। এবার একটা বেফাঁস কৌতুক মধ্যপ্রাচ্যের দুই শক্তিধর মুসলিম দেশ মিসর ও সৌদি আরবের সম্পর্কে বিছিয়ে দিয়েছে কাঁটা।

ঢাকা: স্ফুলিঙ্গ থেকে যেমন জ্বলে ওঠে দাবানল, তেমনি একটি বেফাঁস উক্তি ডেকে আনতে পারে বিপদ। এবার একটা বেফাঁস কৌতুক মধ্যপ্রাচ্যের দুই শক্তিধর মুসলিম দেশ মিসর ও সৌদি আরবের সম্পর্কে বিছিয়ে দিয়েছে কাঁটা।

কৌতুকের ছলে মিসরের বর্তমান প্রেসিডেন্ট সিসির প্রতি করা একটা আপত্তিকর মন্তব্যই এর জন্য দায়ী। উক্তিটা করেছিলেন ওআইসির মহাসচিব সৌদি নাগরিক ইয়াদ বিন আমিন মাদানি।

এ কারণে তাকে পদত্যাগও করতে হয়েছে-(The OIC said late Monday that Madani has resigned ‘for health reasons’.)

 

এরপরও সৌদি আরবের সঙ্গে এ নিয়ে সৃষ্ট জটিলতা ও টানাপোড়েন কমেনি। বরং তা আরও বেড়েছে। সাধারণ মিসরীয়রা ব্যাপারটাকে ভালোভাবে নেয়নি।

তারা ভাবছে, সিসির প্রতি ব্যঙ্গোক্তি করে মাদানি প্রকারান্তরে গোটা মিসরীয় জাতিকেই অপমান করেছেন।

গত সপ্তাহে ওআইসির এক বৈঠকে মাদানি প্রথমে মিসরীয় প্রেসিডেন্ট আবদেল ফাত্তাহ আর সিসির নাম তিউনিসিয়ার প্রেসিডেন্ট বেজি কায়েদ এসেবসির নামের সঙ্গে ইচ্ছে করেই গুলিয়ে ফেলেন।

এসেবসিকে তিনি সিসি বলে সম্বোধন করতে থাকেন। এখানেই না থেমে তিনি এও বলতে থাকেন, ‘আমি নিশ্চিত আপনার ফ্রিজে পানি ছাড়া আরও কিছু থাকে!’

আসলে তার উদ্দেশ্য ছিলো মিসরীয় নেতাকেই পরোক্ষভাবে অপমান করা বা মিসরকে ‘মিসকিন’ ঠাউরে একহাত নেওয়া। কেননা মিসরকে সৌদিরা ভর্তুকিতে তেল দিয়ে থাকে।

নিদারুণ আর্থিক দুর্দশায় থাকা মিসরকে এভাবে ব্যঙ্গ করে মজা লুটতে চেয়েছিলেন মাদানি। মাদানি যেটা করেছিলেন সেটা টাকার জোরে সৌদিরা অন্যদের সঙ্গে বরাবরই করে থাকে। কিন্তু তিনি হিসেবে ভুল করে ফেলেছিলেন।

শক্ত মনের লোক সাবেক জেনারেল প্রেসিডেন্ট সিসি তা সহ্য করা পাত্র নন। তিনিও মাদানিকে বুঝিয়ে দিয়েছেন ঢিলটি মারলে পাটকেলটি খেতে হয়। ‘শঠে শাঠ্যং’--মাদানি এটা হাড়ে হাড়ে টের পাচ্ছেন এখন।

বাংলাদেশ সময়: ০০২৩ ঘণ্টা, নভেম্বর ০৫, ২০১৬
এমএ/জেএম/

 

খা‌লেদার অবমাননা মামলার অ‌ভি‌যোগ গঠন শুনা‌নি ৪ ডিসেম্বর
মহেশপুরে অস্ত্রসহ ডাকাত আটক
ডিএসইর সূচক বাড়লেও কমেছে সিএসইতে
মাঠে সতীর্থকে মেরে বড় শাস্তির অপেক্ষায় শাহাদাত
দীপন হত্যা মামলার সাক্ষ্যগ্রহণ পিছিয়ে ১ ডিসেম্বর


নতুন বিয়ে, জরুরি ঘর আর অফিস ব্যালেন্স 
বন্দুকযুদ্ধে ‘আইজ্জা ডাকাত’ নিহত
‘রোহিঙ্গাদের ফেরত পাঠানো যাবে, কিন্তু রাতারাতি সম্ভব নয়’
২ ঘণ্টা লাইনে দাঁড়িয়ে পেঁয়াজ কিনলেন সিসিক মেয়র
শিক্ষার্থীদের চতুর্থ শিল্পবিপ্লবের উপযোগী করতে হবে