php glass

থ্রি-ডি ঘর!

অফবিট ডেস্ক | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অল্প কয়েকটি থ্রি-ডি ঘর রয়েছে। বড় আকারের থ্রি-ডি মুদ্রিত ভবন এবং নিখুঁত থ্রি-ডি মুদ্রিত ঘর তৈরির উপকরণ ও কৌশলের উন্নয়ন নিয়ে এখন পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে।

বিশ্বের বিভিন্ন দেশে অল্প কয়েকটি থ্রি-ডি ঘর রয়েছে। বড় আকারের থ্রি-ডি মুদ্রিত ভবন এবং নিখুঁত থ্রি-ডি মুদ্রিত ঘর তৈরির উপকরণ ও কৌশলের উন্নয়ন নিয়ে এখন পরীক্ষা-নিরীক্ষা চলছে। এর লক্ষ্য একটি থ্রি-ডি ঘর অল্প সময়ের মধ্যে প্রিন্ট করা ও তৈরি করা, যেটি টেকসই, পরিবেশবান্ধব ও সস্তা হবে।

চীনা উইনসান কোম্পানি একদিনে ১০টি একতলা থ্রি-ডি বাড়ি তৈরি করে। বাড়ির মুদ্রিত বিভিন্ন প্যানেলগুলো আলাদা আলাদা তৈরি করে তারপর সংযুক্ত করা হয়। পরে যোগ করা হয় বিদ্যুৎ ও নদীর ইমেজ। ৬.৬ মিটার প্রিন্টার, ১০ মিটার নির্মাণ বর্জ্য ও সিমেন্টভিত্তিক গ্লাস ফাইবার দিয়ে এগুলো তৈরি করা হয়। প্রতিটি বাড়ির খরচ পড়ে ৫ হাজার ডলার।

নেদারল্যান্ডের স্থপতি আলটিমেকার আমস্টারডামে একটি থ্রি-ডি মুদ্রিত খাল বাড়ি তৈরি করছেন। ইট দিয়ে নির্মিত ডাচ ঐতিহ্যবাহী বাড়িটি হবে একটি বহুতল ইমারত। থ্রি-ডি প্রিন্টিং প্রক্রিয়ায় একটি জাদুঘরের মতো দেখতে ঘরটি হবে স্থানীয় সংস্কৃতির সঙ্গে সর্বশেষ প্রযুক্তির মিলিত রূপ। ঐতিহ্যগত খাল বেষ্টিত বাড়িটিতে ২X২X৩.৫ মিটার উঁচু পর্যন্ত প্রিন্ট করা যাবে। এটিতে নবায়নযোগ্য ও টেকসই বায়োপ্লাস্টিক, কাঠ ও প্রাকৃতিক পাথর বর্জ্য ব্যবহার করা হচ্ছে।
 
প্রিন্টারটি যেকোনো উপাদান গলিয়ে মুদ্রণ শেষে আবার সৃষ্টি করতে সক্ষম। মুদ্রিত বাড়িটি বিদ্যুৎ, নদীর গভীরতা নির্ণয় ও একটি লাইটওয়েট কংক্রিট দিয়ে ভরাট করা হবে।

বাড়িটি তৈরির মূল্য চূড়ান্ত করা হয়নি। নির্মাণ তিন বছরের মধ্যে সম্পন্ন হবে বলে আশা করছেন আলটিমেকার।


নিউইয়র্কের স্থপতি ও ঠিকাদার আদম কুশনার ২২২ বর্গমিটারের পুরো একটি থ্রি-ডি রাজ্যই তৈরি করে ফেলেছেন। একটি সুইমিং পুল, পুকুর ঘর এবং চারটি বেডরুম রয়েছে সেখানে। তিনি এনরিকো ডিনি ডি-আকৃতির প্রিন্টারের একটি পরিমার্জিত সংস্করণ ব্যবহার করেছেন। একটি ম্যাগনেসিয়াম ভিত্তিক বাঁধাই প্রক্রিয়ায় বালু, পাথর ও অন্য উপকরণের মিশ্রণ ব্যবহার করা হয়েছে এতে।
 
২০১৫ সালের জানুয়ারি মাসে এটির নির্মাণ শুরু হয়। কুশনার তার প্রচলিত বিল্ডিং সাইট থেকে স্থানীয় পুনর্ব্যবহৃত প্রত্যাখ্যাত শিলা ব্যবহার করেন। কংক্রিট মিশ্রিত ফাইবার, অ্যালুমিনিয়াম সুতা বা ইস্পাত যোগ বিবেচনা করা হয়। বর্তমান প্রিন্টারের ৫X৫X৫ এবং ১০মিX৫মি টুকরা ব্যবহার করা হয়। চূড়ান্ত খরচ এখনও অজানা। কিন্তু এটি প্রচলিত বিল্ডিং পদ্ধতির চেয়ে প্রায় ৪৫ শতাংশ কম হবে।

এখন থ্রি-ডি মুদ্রিত লবণ তৈরির প্রকল্প, একটি খামার এবং একটি কংক্রিট দুর্গ নির্মাণের কাজ করছেন কুশনার।
 
বাংলাদেশ সময়: ০০৩৯ ঘণ্টা, অক্টোবর ২৯, ২০১৬
এএসআর/এএ

 

মিরপুরে বাসের ধাক্কায় নারীর মৃত্যু
দেশের সব নাগরিককে স্বাস্থ্য বীমার আওতায় আনা হবে
ফিলিস্তিনিদের আকুতি কী কানে যাচ্ছে মেসি-সুয়ারেসদের?
পশ্চিমাঞ্চল রেলের টেন্ডার নিয়ে সংঘর্ষে আহত রাসেলের মৃত্যু 
যাত্রাবাড়ীতে বাস কাড়লো শিশুর প্রাণ


ট্রেন দুর্ঘটনার দশ কারণ খতিয়ে দেখছে তদন্ত কমিটি
প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের ফিড মিল লাইসেন্স অনলাইনে
লতা মঙ্গেশকরের শারীরিক অবস্থার উন্নতি
ভুয়া প্রকল্প দেখিয়ে চাল আত্মসাৎ, ৬ সরকারি কর্মকর্তা আটক
রূপগঞ্জে ৫ হাজার অবৈধ গ্যাস সংযোগ বিচ্ছিন্ন ও জেল-জরিমানা