ঢাকা, শুক্রবার, ১২ অগ্রহায়ণ ১৪২৭, ২৭ নভেম্বর ২০২০, ১০ রবিউস সানি ১৪৪২

জাতীয়

নৌ শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৩৬ ঘণ্টা, অক্টোবর ২২, ২০২০
নৌ শ্রমিকদের ধর্মঘট প্রত্যাহার ফাইল ছবি

ঢাকা: খোরাকি ভাতাসহ ১১ দফা দাবিতে নৌযান শ্রমিকদের ডাকা ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নেওয়া হয়েছে।

বৃহস্পতিবার (২২ অক্টাবর) বিকেলে সচিবালয়ে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ে বৈঠকের পর এই ঘোষণা দেন নৌযান শ্রমিক নেতারা।

খোরাকি ভাতাসহ ১১ দফা দাবিতে নৌ শ্রমিকদের ধর্মঘট তৃতীয় দিনে গড়ায় বৃহস্পতিবার। এদিন দুপুরে সচিবালয়ে নৌ পরিবহন প্রতিমন্ত্রী খালিদ মাহমুদ চৌধুরী জানিয়েছিলেন, বৃহস্পতিবারের মধ্যে শ্রমিকদের সমস্যা সামাধান হয়ে যাবে। এ নিয়ে তারা আলোচনা চালিয়ে যাচ্ছেন।

নৌ প্রতিমন্ত্রী বলেন, নৌযান শ্রমিকদের মূল দাবি খোরাকি ভাতা। এটা অবশ্যই তাদের ন্যায্য দাবি। এ ব্যাপারে কোনো সন্দেহ নেই। তারা নৌযানে যে কাজ করেন সেখানে তাদের এই ভাতাটা ন্যায্য।

শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী মন্নুজান সুফিয়ানের সভাপতিত্বে বৈঠকে সরকার, নৌযান মালিক ও শ্রমিক নেতারা উপস্থিত ছিলেন। বৈঠকে বাংলাদেশ নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি মো. শাহ আলম ধর্মঘট প্রত্যাহারের ঘোষণা দেন।

সভার সিদ্ধান্ত অনুযায়ী, আগামী ১ অক্টোবর থেকে শূন্য টন থেকে এক হাজার টন ধারণ ক্ষমতা সম্পন্ন জাহাজে কর্মরত শ্রমিকরা মাসিক এক হাজার টাকা হারে খোরপোষ ভাতা পাবেন। এছাড়া এক হাজার এক টন থেকে এক হাজার ৫০০ পর্যন্ত ধারণ ক্ষমতার জাহাজের শ্রমিকরা মাসিক এক হাজার ২০০ টাকা এবং এক হাজার ৫০১ টন থেকে সর্বোচ্চ টন পর্যন্ত ধারণ ক্ষমতার জাহাজের শ্রমিকরা এক হাজার ৫০০ টাকা হারে মাসিক খোরপোষ ভাতা পাবেন।

এ বিষয়ে নৌযান মালিক ও শ্রমিকদের মধ্যে চুক্তি হয়েছে জানিয়ে শ্রম প্রতিমন্ত্রী বলেন, দীর্ঘক্ষণ আলোচনার মধ্য দিয়ে নৌযান শ্রমিক ও শ্রমিকরা সমস্যা সমাধান করে ফেলেছেন। নেতৃবৃন্দ চলমান ধর্মঘট প্রত্যাহার করেছেন। আমি আশা করি এই ধর্মঘট প্রত্যাহারের মধ্য দিয়ে জনজীবনে শান্তি ফিরে আসবে। মানুষের ভোগান্তির অবসান ঘটবে।

বাংলাদেশ অভ্যন্তরীণ নৌ চলাচল (যাত্রী পরিবহন) সংস্থার চেয়ারম্যান মাহবুব উদ্দিন আহমেদ বলেন, শ্রমিক, মালিক ও সরকারের মধ্যে আলোচনায় সমঝোতা হয়েছে।

বৈঠকে নৌযান শ্রমিক ফেডারেশনের সভাপতি বলেন, আমরা যা পেয়েছি তা দ্রব্যমূল্যের সঙ্গে সামঞ্জস্যহীন। তারপরও দেশের বর্তমান পরিস্থিতিতে আমরা তা মেনে নিয়ে ধর্মঘট প্রত্যাহার করে নিচ্ছি।

ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক চৌধুরী আশিকুল আলম বলেন, তিনদিন ধর্মঘটের কারণে রাষ্ট্র বিব্রত হয়েছে, এজন্য আমরা দুঃখিত। শ্রমিককদের কাছে আমার আহ্বান- তারা যাতে দ্বিগুণ উৎসাহে কাজ শুরু করেন।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৩২ ঘণ্টা, অক্টোবর ২২, ২০২০/আপডেট: ২১০০ ঘণ্টা
এমআইএইচ/এমজেএফ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa