ঢাকা, রবিবার, ১০ কার্তিক ১৪২৭, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৭ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

জাতীয়

রং-ঝালাইয়ের কাজ বাকি পদ্মাসেতুর শেষ স্প্যানের

সাজ্জাদ হোসেন, ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট  | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৪৭ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৭, ২০২০
রং-ঝালাইয়ের কাজ বাকি পদ্মাসেতুর শেষ স্প্যানের ছবি: বাংলানিউজ

মুন্সিগঞ্জ: পদ্মাসেতুর সবশেষ ‘টু-এফ’ নামে স্প্যানের টুকরোগুলো জোড়া দেওয়ার কাজ সম্পন্ন হয়েছে। এখন আনুষঙ্গিক বেশকিছু কাজ বাকি আছে।

রঙের কাজ শেষ হয়ে পুরোপুরি সম্পন্ন হতে সময় লাগবে আরও দুই সপ্তাহের বেশি।  

এই স্প্যানটির কাজ শেষ হলে পদ্মাসেতুতে স্প্যান প্রস্তুতের কাজও শেষ হবে। রং ও ঝালাইয়ের কাজ শেষে সবশেষ এ স্প্যানটি ১২ ও ১৩ নম্বর পিলারের ওপর বসানো হবে। সেতুতে ৪২টি পিলারের ওপর বসবে ৪১টি স্প্যান। এরই মধ্যে ৩২টি স্প্যান বসে গেছে। বাকি আছে ৯টি স্প্যান। আর এসব স্প্যানের সবগুলোই মুন্সিগঞ্জের লৌহজং উপজেলার মাওয়া কন্সট্রাকশন ইয়ার্ডে আছে।  

শনিবার (১৭ অক্টোবর) বিকেলে এ তথ্য নিশ্চিত করেছে পদ্মাসেতুর প্রকৌশল সূত্র।

পদ্মাসেতুর প্রকৌশলী সূত্রে জানা গেছে, চলতি মাসের মধ্যেই সেতুতে ৩টি স্প্যান বসানোর কথা রয়েছে। এর মধ্যে ৩ ও ৪ নম্বর পিলারের ওপর বসবে আগামী ২০ অক্টোবর সেতুর ৩৩তম স্প্যান। ২৫ অক্টোবর ৩৪তম স্প্যান এবং ৩৫তম স্প্যান ৩০ অক্টোবর বসানোর পরিকল্পনা রয়েছে। বাকি স্প্যানগুলো ডিসেম্বর মাসের মধ্যে বসানোর ব্যাপারে আশাবাদী প্রকৌশলীরা।  

এদিকে, ৪১টি স্প্যানের ওপর ২ হাজার ৯১৭টি রোড স্লাব বসানো হবে। এ পর্যন্ত বসানো হয়েছে ১ হাজার রোড স্লাব। এছাড়া রেললাইনের জন্য লাগবে ২ হাজার ৯৫৯টি রেল স্ল্যাব। এ পর্যন্ত বসানো হয়েছে ১ হাজার ৬০০ রেলওয়ে স্ল্যাব।  

জানা যায়, ২০১৪ সালের ডিসেম্বরে পদ্মাসেতুর নির্মাণ কাজ শুরু হয়। মূল সেতু নির্মাণের জন্য কাজ করছে চীনের ঠিকাদারি প্রতিষ্ঠান চায়না মেজর ব্রিজ ইঞ্জিনিয়ারিং কোম্পানি (এমবিইসি) ও নদী শাসনের কাজ করছে দেশটির আরেকটি প্রতিষ্ঠান সিনো হাইড্রো করপোরেশন।  

৬ দশমিক ১৫ কিলোমিটার দীর্ঘ এ বহুমুখী সেতুর মূল আকৃতি হবে দোতলা। কংক্রিট ও স্টিল দিয়ে নির্মিত হচ্ছে পদ্মাসেতুর কাঠামো।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৪৫ ঘণ্টা, অক্টোবর ১৭, ২০২০
এসআরএস

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa