ঢাকা, শুক্রবার, ৭ কার্তিক ১৪২৭, ২৩ অক্টোবর ২০২০, ০৫ রবিউল আউয়াল ১৪৪২

জাতীয়

কুকুর অপসারণ অমানবিক ও বেআইনি

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ২০১৬ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২০
কুকুর অপসারণ অমানবিক ও বেআইনি কুকুরের অসহায় চাহনি।

ঢাকা: ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের কুকুর অপসারণকে অমানবিক এবং প্রগতিশীলতার বিরুদ্ধে অবস্থান বলে মন্তব্য করেছেন বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতির (বেলা) চেয়ারম্যান সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান।

বৃহস্পতিবার (১৭ সেপ্টেম্বর) বিকেলে রাজধানীর জাতীয় প্রেসক্লাবে ৬টি প্রাণী কল্যাণ সংগঠনের একটি প্রতিবাদ সমাবেশে তিনি এ কথা বলেন।

রিজওয়ানা হাসান বলেন, ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন থেকে ৩০ হাজার কুকুর অন্যত্র অপসারণের যে সিদ্ধান্ত নিয়েছে, তা অবৈজ্ঞানিক ও বেআইনি সিদ্ধান্ত। এতে করে কুকুরের সঙ্গে মানুষের যে সহাবস্থান সেটা নষ্ট হবে। এছাড়াও কুকুর অপসারণ না করে স্থায়ী বন্ধ্যাত্বকরণ (লাইগেশন) পদ্ধতি গ্রহণ করতে হবে।

তিনি বলেন, ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে কুকুরদের বন্ধ্যাত্বকরণ করা হচ্ছে। যদি উত্তর সিটি করপোরেশনে এই প্রকল্প চলতে পারে তাহলে দক্ষিণে কেন এই প্রকল্প চলবে না! এছাড়া সিটি কর্পোরেশনের আইন-২০১৯ অনুযায়ী এই কার্যক্রম সম্পূর্ণ বেআইনি। আমাদের মেয়র তারুণ্যের প্রতীক, আমরা চাই আমাদের বর্তমান তরুণদের সঙ্গে তিনি বসে এই বিয়ষে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করুক। প্রয়োজনে বিভিন্ন সংগঠনের মাধ্যমে আমরা সাহায্য করবো। আমাদের বিরোধ নিরোশনের ব্যাপারে উদ্যোগী হতে হবে। .আয়োজনে একটি ভিডিও বার্তায় সংক্রামক রোগ বিশেষজ্ঞ এবং স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগ নিয়ন্ত্রণ বিভাগের সাবেক পরিচালক ও আইইডিসিআরের সাবেক প্রধান বৈজ্ঞানিক কর্মকর্তা অধ্যাপক ডা. বে-নজির আহমেদ বলেন, এটি একটি অবৈজ্ঞানিক সিদ্ধান্ত। কুকুরগুলো যে এলাকাগুলোতে থাকে সেসব এলাকার মানুষগুলোর সঙ্গে একটা শান্তিপূর্ণ সহাবস্থান বিরাজ করে। তারা সাধারণত স্থানীয় কাউকে কামড় দেয় না। যখন এই কুকরগুলোকে ঢাকার বাইরে নিয়ে যাওয়া হবে তখন তারা সেখানকার কুকুরদের মানবে না এবং স্থানীয়দের মানবে না। ফলে কুকুরে কুকুরে মারামারি হবে এবং কুকুর মানুষদেরও মারতে যাবে। এতে করে ওই এলাকার মানুষের ঝুঁকি আরো বেড়ে যাবে।

আয়োজনে এসময় আরও বক্তব্য রাখেন পিপল ফর এনিমেল ওয়েলফেয়ারের (ফাউন্ডেশন) প্রতিষ্ঠাতা চেয়ারম্যান স্থপতি রাকিবুল হক এমিল, প্রাণী সংগঠন অভয়ারণ্যের চেয়ারম্যান রুবাইয়া আহমেদ, বাংলাদেশ পরিবেশ আন্দোলনের (বাপা) যুগ্ম সম্পাদক বিধান চন্দ্র পাল প্রমুখ।

বক্তারা বলেন, প্রাণিকূলের একটি গুরুত্বপূর্ণ অংশ কুকুর। একে বাদ দিয়ে কখনো পরিবেশ হবে না। আমরা মহামারি থেকে শিখেছি পরিবেশ এবং প্রাণীদের মধ্যে কতটা সম্পৃক্ততা আছে। সেই শিক্ষাটা আমাদের কাজে লাগাতে হবে। তাই অপসারণ না করে কুকুরগুলোকে স্থায়ী বন্ধ্যাত্বকরণ পদ্ধতি গ্রহণ করা হলে সবথেকে ভালো হবে।

বাংলাদেশ সময়: ২০০৭ ঘণ্টা, সেপ্টেম্বর ১৭, ২০২০
এইচএমএস/এএটি

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa