ঢাকা, সোমবার, ১৩ আশ্বিন ১৪২৭, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯ সফর ১৪৪২

জাতীয়

বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বস্তুনিষ্ঠ একাডেমিক গবেষণা অপ্রতুল

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০১৩০ ঘণ্টা, আগস্ট ১৫, ২০২০
বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বস্তুনিষ্ঠ একাডেমিক গবেষণা অপ্রতুল বক্তব্য দেন মুনতাসীর মামুন

ঢাকা: বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে বস্তুনিষ্ঠ একাডেমিক গবেষণা অপ্রতুল বলে মন্তব্য করেছেন ইতিহাসবিদ অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন৷ 

তিনি বলেছেন, এখন বঙ্গবন্ধুর তিনটি বই আমাদের হাতে আছে, সেজন্য সেগুলোর ওপর ভিত্তি করে নতুন গবেষণার সুযোগ সৃষ্টি হয়েছে।

শনিবার মুজিববর্ষ ও জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষে শুক্রবার (১৪ আগস্ট)  বাংলাদেশ ইতিহাস সম্মিলনীর ভার্চ্যুয়াল একক বক্তৃতায় তিনি এ কথা বলেন৷  

বক্তৃতার বিষয় ছিল 'বঙ্গবন্ধু, নয়াচীন এবং সমাজতন্ত্র/সাম্যবাদ'৷

এতে অতিথি ছিলেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সভাপতি শাহরিয়ার কবির এবং সভাপতিত্ব করেন অধ্যাপক ড. মো. মাহবুবর রহমান৷

মুনতাসীর মামুন বলেন, বঙ্গবন্ধু সারা জীবন যা চেয়েছেন তার নির্যাস তিনি ১৯৭২ সালের সংবিধানে লিপিবদ্ধ করেছিলেন।

তিনি জানতেন যে সমাজতন্ত্র বা ধর্মনিরপেক্ষতা বাঙালি সম্পূর্ণ মেনে নেবে না। বাস্তব অবস্থার পরিপ্রেক্ষিতে তাই তিনি জাতীয়তাবাদের কথা ভেবেছেন। চীনে তিনি নারী-পুরুষ সমতা দেখেছেন, আমাদের সংবিধানেও তার নিশ্চয়তা আছে। ওই আমলের পরিপ্রেক্ষিতে খুবই আধুনিক ছিল আমাদের সংবিধান। শুধু তাই নয়, পররাষ্ট্র নীতির ক্ষেত্রেও তিনি সবার সঙ্গে বন্ধুত্ব, কারো সঙ্গে বৈরিতা নয়- এ অবস্থান নিয়েছিলেন।

শাহরিয়ার কবির বলেন, একাত্তরের পরাজিত শক্তিরাই জাতির জনককে হত্যা করেছিল। এ হত্যাকাণ্ডের নেপথ্যের কারিগরদের বিচারের জন্য কমিশন গঠন করতে হবে৷

বাংলাদেশ সময়: ০১২৯ ঘণ্টা, আগস্ট ১৫, ২০২০
ডিএন/এসআই
 

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa