ঢাকা, সোমবার, ১৩ আশ্বিন ১৪২৭, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৯ সফর ১৪৪২

জাতীয়

আইএসের দৃষ্টি আকর্ষণে হামলার পরিকল্পনা নব্য জেএমবির

স্টাফ করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৫১৬ ঘণ্টা, আগস্ট ১২, ২০২০
আইএসের দৃষ্টি আকর্ষণে হামলার পরিকল্পনা নব্য জেএমবির

ঢাকা: মধ্যপ্রাচ্যভিত্তিক জঙ্গি গোষ্ঠি ইসলামিক স্টেটের (আইএস) দৃষ্টি আকর্ষণে গত ইদুল আজহা কেন্দ্রীক দেশের বিভিন্ন স্থানে হামলার পরিকল্পনা করে নিষিদ্ধ ঘোষিত জঙ্গি সংগঠন নব্য জেএমবি। পরিকল্পনা অনুযায়ী গত মাসে পল্টনে পুলিশ চেকপোস্টের পাশে এবং নওগাঁর একটি মন্দিরে বোমা হামলা চালায়।

পুলিশের নজরদারির কারণে সিলেটের হজরত শাহজালাল (রহ.) মাজারে হামলার চেষ্টা চালিয়ে ব্যর্থ হয়।

মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) সিলেটের মিরাবাজার, টুকের বাজার, দক্ষিণ সুরমার বিভিন্ন স্থানে ধারাবাহিকভাবে পরিচালিত ‌‘অপারেশন এলিগ্যান্ট বাইটে’ নব্য জেএমবির পাঁচ সদস্যকে আটক করে ডিএমপির কাউন্টার টেরোরিজম অ্যান্ড ট্রান্সন্যাশনাল ক্রাইম (সিটিটিসি) ইউনিট।

আটকরা হলেন- শেখ সুলতান মোহাম্মদ নাইমুজ্জামান (২৬), সানাউল ইসলাম সাদি (২৮), রুবেল আহমেদ (২৮), আব্দুর রহিম জুয়েল (৩০) ও সায়েম মির্জা (২৪)। এসময় তাদের কাছ থেকে বোমা তৈরির সরঞ্জাম, ল্যাপটপ ও মোবাইল উদ্ধার করা হয়।

বুধবার (১২ আগস্ট) ডিএমপি মিডিয়া সেন্টারে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ তথ্য জানান সিটিটিসির অতিরিক্ত কমিশনার মনিরুল ইসলাম।

তিনি জানান, আইএসের দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য ঈদুল আযহার আগে দেশের বিভিন্ন স্থানে হামলার পরিকল্পনা করে নব্য জেএমবি। এর অংশ হিসেবে তারা গত ২৪ জুলাই পল্টনে পুলিশ চেকপোস্টের পাশে, ৩১ জুলাই নওগাঁর সাপাহার এলাকায় হিন্দু ধর্মালম্বীদের মন্দিরে বোমা হামলা করে। এছাড়া গত ২৩ জুলাই সিলেটের হযরত শাহজালাল (রহ.) মাজার শরীফে আরেকটি হামলার পরিকল্পনা ছিলো। কিন্তু পুলিশের কড়া নজরদারির কারণে ব্যর্থ হয়।

মনিরুল ইসলাম বলেন, আটকরা নব্য জেএমবির সামরিক শাখার সদস্য। নব্য জেএমবির শুরা সদস্য শেখ সুলতান মোহাম্মদ নাইমুজ্জামানের নেতৃত্বে তারা সিলেটের শাপলাবাগের একটি বাসায় কম্পিউটার প্রশিক্ষণের আড়ালে সামরিক প্রশিক্ষণ নিচ্ছিলো।

আটকদের মধ্যে শেখ সুলতান মোহাম্মদ নাইমুজ্জামান বারিস্তা নামে একটি কফি শপে কফি মেকার হিসেবে কাজ করেন। তিনি ২০১৯ সালে শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় থেকে রাষ্ট্র বিজ্ঞানে অনার্স সম্পন্ন করেন। ছাত্রজীবনে ইসলামী ছাত্রশিবিরের সক্রিয় সদস্য ছিলেন। তিনি সামরিক শাখার প্রধান প্রশিক্ষক এবং সামরিক প্রশিক্ষণের উদ্দেশ্যে সিলেটের শাপলাবাগের বাসাটি ভাড়া নেন।

সানাউল ইসলাম শাহজালাল বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ে পরিসংখ্যান বিভাগের ছাত্র। রুবেল আহমেদ ২০১৬ সালে উন্মুক্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীন সিলেট শাখা থেকে এইচএসসি পরীক্ষা দেন। তিনি সিলেটে টুকেরবাজারে সার, বীজ ও কিটনাশকের ব্যবসা করেন। আব্দুর রহিম জুয়েল রেন্ট-এ-কারের ড্রাইভার হিসেবে কাজ করতেন। তার গাড়ি ব্যবহার করে সন্ত্রাসী হামলার পরিকল্পনা করেছিলেন তারা। সায়েম মির্জা সিলেটের মদন মোহন কলেজের অনার্স শেষবর্ষের ছাত্র।

গত ২৪ জুলাই রাত সাড়ে ৯ টার দিকে পল্টন মডেল থানার পুরানা পল্টন এলাকায় বোমা বিস্ফোরণের ঘটনা ঘটে। এরপর ঘটনাস্থল থেকে আইইডিতে ব্যবহৃত ইলেকট্রিক টেপ, জিআই পাইপের কনটেইনার, সার্কিটের অংশ, তারের অংশ বিশেষ, লোহার তৈরি বিয়ারিং ও বল, নাইন ভোল্ট ব্যাটারির অংশ বিশেষ উদ্ধার করা হয়।

বাংলাদেশ সময়: ১৫১১ ঘণ্টা, আগস্ট ১২, ২০২০
পিএম/ওএইচ/

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa