ঢাকা, রবিবার, ১২ আশ্বিন ১৪২৭, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮ সফর ১৪৪২

জাতীয়

মঠবাড়িয়ায় চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের  দায় স্বীকার

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ০৬৪৯ ঘণ্টা, আগস্ট ১২, ২০২০
মঠবাড়িয়ায় চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের  দায় স্বীকার মঠবাড়িয়ায় ট্রিপল মার্ডারের মূল পরিকল্পনাকারী ঘাতক অলি বিশ্বাস

পিরোজপুর: পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় অটো চালক আয়নাল হক (৩৫), তার স্ত্রী খুকু মনি (২৫) ও তাদের ৩ বছরের একমাত্র শিশু কন্যা আশফিয়ার চাঞ্চল্যকর হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী ঘাতক অলি বিশ্বাস (৩৮) ওই কাণ্ডের মুল পরিকল্পনাকারী হিসাবে নিজের জড়িত থাকার দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দী দিয়েছেন।

থানা পুলিশ সূত্র জানায়, মঙ্গলবার (১১ আগস্ট) বিকেলে মঠবাড়িয়া সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যজিস্ট্রেট আল-ফয়সালের আদালতে হাজির করলে এ ট্রিপল মার্ডারে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয় হত্যাকাণ্ডের মাস্টার মাইন্ড অলি বিশ্বাস।

এ ছাড়াও ঘাতক অলির সহযোগী রাকিব বেপারী (২০) গত রোববার (০৯ আগস্ট) আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

এর আগে গত শুক্রবার (০৭ আগস্ট) রাত ০১টার দিকে মঠবাড়িয়া থানা পুলিশ ও ডিবি পুলিশের যৌথ অভিযানে উপজেলার ধানীসাফা গ্রামের মৃত তুজাম্বর আলী বিশ্বাসের ছেলে অলি বিশ্বাস ও একই গ্রামের কাওসার বেপারীর ছেলে রাকিব বেপারীকে আটক করে।

শনিবার (০৮ আগস্ট) সন্ধ্যায় জেলা পুলিশ সুপার হায়াতুল ইসলাম খান এক প্রেস কনফারেন্সের মাধ্যমে ওই ২ জনের গ্রেফতারের বিষয়টি নিশ্চিত করেন। পরের দিন তাদেরকে আদালতে হাজির করলে আটক রাকিব আদালতে নিজেকে হত্যাকাণ্ডে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করেন। পরে মামলার তদন্ত কর্মকর্তা এসআই বশির এ হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী আসামী অলি বিশ্বাসকে ৭ দিনের রিমান্ড চাইলে আদলত ৪ দিনের রিমান্ড মঞ্জুর করে।

রিমান্ডের তৃতীয় দিনে মঙ্গলবার বিকালে হত্যাকাণ্ডের মূল আসামী হিসাবে অলি বিশ্বাস নিজেকে জড়িত থাকার বিষয় স্বীকার করে থানা পুলিশ ও সহ-আদালতে স্বীকার করেন।

মঠবাড়িয়া থানার অফিসার ইনচার্জ আ.জ.ম. মাসুদুজ্জামান মিলু জানান, চাঞ্চল্যকর এ হত্যাকাণ্ডের মূল পরিকল্পনাকারী অলি বিশ্বাসের সহোযোগী রাকিব বেপারী রোববার আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দিয়েছেন। রিমান্ডে থাকা অলি বিশ্বাসকে জিজ্ঞাসাবাদ শেষে মঙ্গলবার বিকালে আদালতে হাজির করলে মূল পরিকল্পনাকারী ঘাতক অলি বিশ্বাস স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেয়।

উলেখ্য,গত শুক্রবার (৩১ জুলাই) সকালে উপজেলার ধানীসাফা গ্রামের একটি বসতঘর থেকে হাত বাঁধা অবস্থায় অটো চালক আয়নাল তার স্ত্রী খুকু মনি ও তাদের একমাত্র কন্যা শিশু আশফিয়ার ঝুলন্ত লাশ উদ্ধার করে থানা পুলিশ। এর আগে ৩০ জুলাই রাতে হত্যার সঙ্গে জড়িতরা তাদের হত্যা করে ওই ঘরের আড়ার সঙ্গে ঝুলিয়ে রাখে।

বাংলাদেশ সময়: ০৬৪৮ ঘণ্টা, আগস্ট ১২, ২০২০
এইচএমএস/কেএআর

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa