ঢাকা, বুধবার, ২৮ শ্রাবণ ১৪২৭, ১২ আগস্ট ২০২০, ২১ জিলহজ ১৪৪১

জাতীয়

মঠবাড়িয়ায় যৌতুক না পেয়ে গৃহবধূকে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ

ডিস্ট্রিক্ট করেসপন্ডেন্ট | বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম
আপডেট: ১৮৫৯ ঘণ্টা, জুন ৩০, ২০২০
মঠবাড়িয়ায় যৌতুক না পেয়ে গৃহবধূকে পুড়িয়ে হত্যার অভিযোগ

পিরোজপুর: পিরোজপুরের মঠবাড়িয়ায় যৌতুক না পেয়ে রহিমা বেগম (৩০) নামে এক গৃহবধূকে গায়ে আগুন দিয়ে পুড়িয়ে হত্যা করা হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। 

মঙ্গলবার (৩০ জুন) গোপালগঞ্জ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান তিনি। রহিমা উপজেলার ঘোষের টিকিকাটা গ্রামের ইমাম হোসেনের স্ত্রী এবং জেলার নাজিরপুর উপজেলার মালিখালী ইউনিয়নের দক্ষিণ ঝনঝনিয়া গ্রামের আলমগীর শেখের মেয়ে।

নিহতের ভাই মো. হাসান শেখ বাংলানিউজকে জানান, ৬ বছর আগে জেলার মঠবাড়িয়া উপজেলার ঘোষের টিকিকাটা গ্রামের মৃত শামসুল আলমের ছেলে ইমাম হোসেনের সঙ্গে তার বোন রহিমার বিয়ে হয়। বিয়ের পর থেকে ভগ্নিপতি ইমাম হোসেন প্রায়ই তাকে যৌতুকের জন্য মারাধর করে আসছিল। গত ১১ জুন সন্ধ্যা সাড়ে ৭টার দিকে আবারও যৌতুকের টাকার জন্য চাপ দেয় ইমাম। এ সময় টাকা দিতে অপারগতা জানালে রহিমাকে মারধর করা হয়। পরে তাকে হত্যার জন্য তার পরনে থাকা শাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয়। এ সময় স্থানীয়রা  তাকে উদ্ধার করে প্রথমে মঠবাড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে   নেয়। পরে ওই রাতেই তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য বরিশাল শেবাচিম হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করা হয়। সেখানে চিকিৎসাধীন অবস্থায়  মঙ্গলবার (৩০ জুন) সকালে তার মৃত্যু হয়।

ঘটনার পরের দিন ১২ জুন ওই গৃহবধূর ভাই মো. হাসান শেখ বাদী হয়ে ভগ্নিপতি ইমাম হোসেনকে প্রধান আসামি করে পাঁচ জনের বিরুদ্ধে থানায় মামলা দায়ের করেন।

নাজিরপুর থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. মুনিরুল ইসলাম জানান, ময়নাতদন্তের জন্য মরদেহ পিরোজপুর জেলা হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়েছে।

মঠবাড়িয়া থানার ওসি আ. জ মো. মাসুদুজ্জামান জানান, ওই গৃহবধূকে আগুন দেওয়ার অভিযোগে তার স্বামী ইমামকে গ্রেফতার করা হয়েছে। অভিযুক্ত বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

বাংলাদেশ সময়: ১৮৫৮ ঘণ্টা, জুন ৩০, ২০২০
আরএ

বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম'র প্রকাশিত/প্রচারিত কোনো সংবাদ, তথ্য, ছবি, আলোকচিত্র, রেখাচিত্র, ভিডিওচিত্র, অডিও কনটেন্ট কপিরাইট আইনে পূর্বানুমতি ছাড়া ব্যবহার করা যাবে না।
Alexa