কড়া নিরাপত্তায় আশুলিয়ার সব গার্মেন্ট কারখানা খুলেছে

| বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম

walton

কড়া নিরাপত্তার মধ্যে বুধবার সকালে খুলে দেওয়া হয়েছে আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলের সব তৈরি পোশাক কারখানা। এই এলাকার দু’শতাধিক কারখানায় সকাল থেকেই কাজ শুরু করেছেন শ্রমিকরা।

ঢাকা: কড়া নিরাপত্তার মধ্যে বুধবার সকালে খুলে দেওয়া হয়েছে আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলের সব তৈরি পোশাক কারখানা। এই এলাকার দু’শতাধিক কারখানায় সকাল থেকেই কাজ শুরু করেছেন শ্রমিকরা।

তবে স্ক্যানডেস্ক নামের একটি কারখানার একটি ফোরে কর্মবিরতিতে গেছেন শ্রমিকরা।

শ্রমিকদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে তারা কর্মবিরতি করছেন বলে বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডিকে জানিয়েছেন এসব শ্রমিক।

পরিস্থিতি পর্যবেণে আশুলিয়ায় অবস্থান করছেন স্থানীয় সংসদ সদস্য, সংশ্লিষ্ট সরকারি কর্মকর্তা, র‌্যাব ও পুলিশের উর্ধ্বতন কর্মকর্তা ও বিজিএমইএ’র প্রতিনিধিরা।

গত কয়েকদিনের সহিংসতার পর আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলের সব কারখানা অনির্দিষ্টকালের জন্যে বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয় বিজিএমইএ। একদিন বন্ধ থাকার পর পর্যাপ্ত নিরাপত্তা নিশ্চিত করার আশ্বাসে বুধবার কারখানা খুলে দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেয় গার্মেন্ট মালিকদের এই সংগঠন।

এদিকে আগামী ২৮ জুলাইয়ের মধ্যে নতুন বেতন কাঠামো দিতে সরকার কাজ করে যাচ্ছে মর্মে  শ্রম ও কর্মসংস্থানমন্ত্রী খন্দকার মোশাররফ হোসেন ঘোষণা দেওয়ার পর শ্রমিকদের মধ্যে কিছুটা স্বস্তি ফিরেছে।

সকাল থেকেই তারা নিজ নিজ কারখানায় গিয়ে কাজে যোগ দিতে শুরু করেন। তবে কিছু কিছু কারখানায় কম শ্রমিক-উপস্থিতি লক্ষ্য করা গেছে।

সকাল থেকেই শ্রমিকদের পরিচয়পত্র দেখে তল্লাশির পর তাদের কারখানায় ঢুকতে দেওয়া হয়।
 
এদিকে গোটা শিল্পাঞ্চল জুড়েই দেখা গেছে পুলিশ ও র‌্যাবের বিশেষ টহল। এ ছাড়াও সাইরেন বাজিয়ে পুলিশের জলকামান ও বিশেষ যানবাহনের তৎপর দেখা গেছে।

বিজিএমইএ অতিরিক্ত সচিব মনসুর খালেদ শ্রমিকদের কম উপস্থিতির সত্যতা নিশ্চিত করে বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডিকে বলেন, অনির্দিষ্টকালের জন্যে কারখানা বন্ধের ঘোষণায় অনেক শ্রমিক কর্মস্থল ছেড়ে চলে গেছেন বলেই এমনটা হয়েছে। তা সত্ত্বেও উপস্থিতির হার ৮০ শতাংশ বলে জানান তিনি।

শ্রম মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শক আজিজুল ইসলাম বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডিকে বলেন, আশুলিয়া শিল্পাঞ্চলের সব ক’টি কারখানায় স্বাভাবিক পরিবেশে কাজ শুরু হয়েছে বলে সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত পাওয়া খবরে জানা যায়। তবে কেবল স্ক্যানড্যাক্স নামের তৈরি পোশাক কারখানার শ্রমিকরা একটি ফোরে কাজ বন্ধ রেখেছেন।

সতীর্থ শ্রমিকদের বিরুদ্ধে দায়ের করা মামলা প্রত্যাহারের দাবিতে শ্রমিকরা কর্মবিরতিতে গেছেন বলে নিশ্চিত করেন তিনি।

বিজিএমইএর সভাপতি সালাম মুর্শেদী বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডিকে বলেন,‘আমরা সরকারের নিরাপত্তার আশ্বাস পেয়ে সব কারখানা খুলে দিয়েছি, বর্তমানে পরিস্থিতি পর্যবেণ করছি, আশা করি সরকারের প থেকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা নিশ্চিত করা হবে।’

ঢাকা জেলা পুলিশ সুপার ইকবাল বাহার বাংলানিউজটোয়েন্টিফোর.কম.বিডিকে বলেন, ‘সার্বিকভাবে পরিস্থিতি ভালো।’

তিনি জানান, নিরাপত্তা ব্যবস্থা শতভাগ নিশ্চিত করা আপেকি ব্যাপার। আলাদাভাবে (ইনডিভিউজুয়্যালি) কারো নিরাপত্তা নিশ্চিত করা সম্ভব নয়, তবে সামগ্রিকভাবে অবস্থা ভালো, যে কোন পরিস্থিতি মোকাবেলায় আমরা প্রস্তুত আছি’।

বাংলাদেশ সময় ১০৩৩ ঘণ্টা, জুন ২৩, ২০১০
জেডআর/এমএমকে/জেএম

Nagad
শেষ শ্রদ্ধা শেষে সিমেট্রিতে এন্ড্রু কিশোরের কফিন
বুড়িগঙ্গায় লঞ্চডুবি: ময়ূরের দুই ইঞ্জিন ড্রাইভার গ্রেফতার
স্বাস্থ্য সংকট হ্রাসে ‘ডাটা বিপ্লব’
এন্ড্রু কিশোরের শেষ যাত্রায় জায়েদ খান
মাশরাফির ছোট ভাই সেজারেরও করোনা নেগেটিভ


খনন হবে সাঙ্গু-চাঁদখালী নদী, সোনাইছড়ি বেড়িবাঁধে সংস্কার
র‍্যাঙ্কিংয়েও বড় লাফ হোল্ডারের
সাহেদের যত প্রতারণা
ইউআইটিএস ও গুলশান ক্লিনিকের মধ্যে সমঝোতা স্মারক
সিরাজগঞ্জে বেড়েই চলেছে যমুনার পানি, প্লাবিত নতুন এলাকা